বাস মালিক সমিতির দন্ধে আবারো বরিশাল থেকে ৬ রুটে সরাসরি বাস চলাচল বন্ধ

প্রকাশিত: ৩:০৯ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৫, ২০১৮ | আপডেট: ৩:০৯:অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৫, ২০১৮

বরিশাল ও ঝালকাঠি মিনিবাস মালিক সমিতির দন্দে আবারো বরিশাল থেকে সরাসরি ৬ রুটে সরাসরি বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে।

 

তবে ঝালকাঠি বাস মালিক সমিতি পূর্বের ন্যায় তাদের আওতাধীন রায়াপুরা নামক স্থান থেকে বাস চালনা করছেন ওইসব রুটে।

 

এতে করে যাত্রীদের বরিশাল নগরের রুপাতলী থেকে বিকল্প পরিবহনে ৩ কিলোমিটার দূরে গিয়ে গন্তব্যের উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করতে হচ্ছে।

 

ফলে যাত্রীদের কিছুটা বিরাম্বনায় পড়তে হচ্ছে।

 

ঝালকাঠি বাস ও মিনিবাস শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মো. বাহাদুর চৌধুরী জানান, দীর্ঘদিন ধরে ওই ছয় রুটে বরিশাল, পটুয়াখালী, পিরোজপুর ও বাগেরহাট সমিতির বাস সমন্বয় করে চলাচল করলেও বরিশাল-কুয়াকাটা রুটে ঝালকাঠি সমিতির কোনো বাস চলতে দেওয়া হচ্ছে না। কিন্তু বরিশাল কুয়াকাটা রুটে ঝালকাঠি জেলার নলছিটি উপজেলাধীন  ৮ কিলোমিটার রাস্তা রয়েছে।

 

তিনি বলেন,  ওই ৮ কিলোমিটার সড়ক বরিশাল ও পটুয়াখালী মালিক সমিতি ব্যবহার করলেও ঝালকাঠি মালিক সমিতির কোন বাস চলতে দেয়া হয় না। তাই ন্যায্য হিস্যা’র দাবীতে আল্টিমেটাম অনুযায়ী তারা গত বছরের ১৮ ডিসেম্বর প্রথম বরিশাল নগরের রুপাতলী বাসস্ট্যান্ড থেকে বাস চালনা বন্ধ করে দেন। এতে করে বরিশালের কোন বাস ঝালকাঠি কিংবা ঝালকাঠি হয়ে অন্য কোথাও যেতে পারেনি।

 

পরে বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়ে এক সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ২০ ডিসেম্বর বিকেল থেকেই বরিশাল থেকে বাস চলাচল স্বাভাবিক হয়।  এরপর  ২ জানুয়ারী হিস্যার বিষয় নিয়ে একটি সভায়  রুপাতলীস্থ বাস-মিনিবাস মালিক সমিতির কেউ না আসলে ৩ জানুয়ারি থেকে আবার  বরিশাল থেকে সরাসরি বাস চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয় এবং পূর্বের নিয়মানুযায়ী রায়াপুর থেকে বাস চালনা করেন।

 

তিনি বলেন, এরপর  রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর বরিশাল সফরকে ঘিরে ২৪ জানুয়ারী  থেকে প্রশাসনের আশ্বাসে আবারো বাস চলাচল স্বাভাবিক করা হয়। কিন্তু প্রধানমন্ত্রীর সফরের পর দীর্ঘদিন পারহেয়ে গেলেও বিষয়টি নিয়ে কোন সমাধান না হওয়ায় বুধবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) থেকে আবারো বরিশাল থেকে সরাসরি বাস চলাচল বন্ধ করে দেন। এতে করে বরিশালের কোন বাস ঝালকাঠি কিংবা ঝালকাঠি হয়ে অন্য কোথাও যেতে  পারছেনা।

 

তবে ঝালকাঠির রায়াপুর নামক স্থান থেকে যাত্রীদের ঝালকাঠি শহর, পিরোজপুর, মঠবাড়িয়া, ভান্ডারিয়া, বাগেরহাট, খুলনারুটে পৌছে দেয়া হচ্ছে। বরিশাল নগর থেকে যাত্রীরা সেখানে বিভিন্ন মাধ্যমে আসছে। আন্দোলনের কারনে শুধু বরিশাল মালিক সমিতির গাড়ি ঝালকাঠিতে প্রবেশ করতে দেয়া হচ্ছে না।

 

বরিশাল-পটুয়াখালী মিনিবাস শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি সুলতান মাহামুদ জানান, ঝালকাঠি বাস মালিক সমিতি গতকাল বুধবার থেকে তাদের কোনবাস ঝালকাঠিতে প্রবেশ করতে দিচ্ছে না। বিষয়টি নিয়ে সমাধানের চেষ্টা চলছে।