সাফল্যের দশটি মূলসূত্র জেনে নিন সহজেই

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ৯:৪০ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১২, ২০২২ | আপডেট: ৯:৫৩:অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১২, ২০২২

প্রবাদ আছে, ‘পরিশ্রম সাফল্যের চাবিকাঠি’। পরিশ্রমের দ্বারা ভাগ্যের চাবিকাঠি এমনভাবে পরিবর্তন করা সম্ভব, যা অলস মানুষের কাছে অলৌকিক বলে মনে হয়। যে কোনো ক্ষেত্রে সফলতার প্রথম শর্ত হল প্রবল ইচ্ছাশক্তি ও কঠোর পরিশ্রম। মানুষ যদি তার লক্ষ্যে অটুট থাকে এবং সেই অনুযায়ী কাজ করে, তবে একদিন সে সাফল্যের চূড়ায় পৌঁছতে পারে।

এক : নিজের স্বার্থ দিয়ে জীবনকে কোন দিন পরিমাপ করবেন না । তাতে সাফল্য আসার সম্ভাবনা কম । সংসারের সবাইকে নিয়ে আনন্দে বেঁচে থাকুন । জীবন শান্তিপূর্ণ ও সাফল্য মণ্ডিত হবে ।

দুই : মনকে সর্বদা খুশী রাখতে চেষ্টা করুন । চিন্তা ভাবনায় ডুবে থাকবেন না । সর্বদা দুশ্চিন্তায় ভুগলে কোন ভাল কাজ হবে না । মান – অপমানকে তুচ্ছ জ্ঞান করুন । সর্বদা ভাববেন , সব মানুষকেই একদিন পৃথিবী ছেড়ে চলে যেতে হবে । এটাও জানবেন , কেউ আপনাকে অপমান করে সে সুখে শান্তিতে নেই । আবার প্রচুর অর্থবান লোকেরাও নিশ্চিন্ত নন ৷ তাই সাফল্য আপনার মনে ।

তিন :  হতাশা বা টেনসনকে ধারে – কাছে ঘেসতে দেবেন না । নিয়মিত পরিশ্রম করুন । সেই সঙ্গে আত্মবিশ্বাস রাখুন । সাফল্য আসবেই ।

চার : বিবেকানন্দ বলেছেন – -জীবনের একটা লক্ষ্য রাখুন । মহাজ্ঞানী মহাজনদের পথ অনুসরণ করুন । জীবনে এলোই বা দুঃখ । তাতে ক্ষতি কি ? দুঃখের পর সুখ আসতে বাধ্য ৷ আমি কি কোনদিন ভাবতে পেরেছিলাম — আমেরিকার শিকাগোর ধর্ম সম্মেলনে বক্তব্য রাখতে পারব । তবে আত্মবিশ্বাসই আমাকে জয়ের মালা পরিয়ে দিয়েছে ।

পাঁচ : মন যে কাজ করে উন্নতি লাভ করতে চায় সে দিকেই এগিয়ে যান । প্রফেসর হতে চান — ধরে থাকুন । ব্যর্থতায় ভুগবেন না । আজ না হয় কাল – না হয় পরশু সাফল্য লাভ হবেই । অধ্যবসায়ী হোন — জয় অবশ্যম্ভাবী । লেগে থাকলে কোন কাজ আটকায় না ।

ছয় : বিবেকানন্দের মতে -ইচ্ছাকে প্রাধান্য দিন । সাফল্য হবেই । ইচ্ছার বিরুদ্ধে কাজ করলে সাফল্য আসবে না । সাফল্যের লক্ষ্য হবে ওপর দিকে তাকানো । আবার সাফল্যকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য কিছু অনুপ্রেরণাকারী প্রয়োজন ।

যেমন , আমার প্রাণের ঠাকুর শ্রীরামকৃষ্ণদেব আমাকে অনুপ্রেরণা দিয়েছিলেন । যার ফলে লোকে আমাকে বিবেকানন্দ বলে ৷ বিদ্যাসাগর তার মায়ের অনুপ্রেরণা পেয়েছিলেন । শচীন তেণ্ডুলকরকে তার গুরু রমাকান্ত সাফল্যের পথে পাঠিয়েছিলেন । অমিতাভ বচ্চনকে তার মা তেজি বচ্চন দিয়েছিলেন প্রেরণা । মারাদোনাকে তার বন্ধুবান্ধবরা প্রেরণা দিয়েছিলেন । আমেরিকার রাষ্ট্রনায়ক বিল ক্লিন্টনকে তার স্ত্রী হিলারী ক্লিন্টন দিয়েছিলেন সাফল্যের অনুপ্রেরণা । রবীন্দ্রনাথ তার দাদা ও বৌদির কাছ থেকে পেয়েছিলেন উৎসাহ ।

সাত : জড়তা ত্যাগ করে কাজে নেমে পড়ুন । উত্তিষ্ঠতঃ নিবোধত । সাফল্য পাবেন ।

আট : নিয়মানুবর্তিতা – অধ্যবসায় – চেতনাবোধ আর কথার মূল্যরক্ষা — এই চারটি জিনিস যার মধ্যে আছে তিনিই সফল ৷ বিবেকহীন মানুষ কোনদিন সফল ব্যক্তি হতে পারে না । বিশ্বাসঘাতকরা কোনদিন প্রতিষ্ঠালাভ করতে পারে না । এক প্রকাশক বই প্রকাশ ও ব্যবসার ব্যাপারে বছরে ২৫/৩০ লক্ষ টাকা বাজেট রাখেন । কিন্তু বিবেক – চেতনা – নিয়মানুবর্তিতা ও মানুষের সাথে কথার দাম রাখতে না পারার ফলে এবং অতি চালাকী করার জন্য দশবছর ব্যবসা করেও জীবনে সফল হতে পারেন নি । নিত্য অভাবে তিনি জর্জরিত ।

নয় : তাই বলছি অতি চালাকি করবেন না । বিশ্বাসের মূল্য দিন । কথার দাম দিন । চেতনাকে জাগ্রত রাখুন ৷ শৃঙ্খলা ও নিয়মানুবর্তিতা বজায় রাখুন । সাফল্যের সূর্য দেখতে পাবেন । চালাকির দ্বারা কোন মহৎ কাজ সম্ভব হয় না ।

দশ : আত্মনির্ভরশীল হোন । নিজের উপর ভরসা রেখে কাজ করুন । কাজের Negative Point গুলো ভাবুন । আত্মবিশ্বাসই বড় । তারপর ধৈর্য । Self confidence is the root of suceess . মনে মনে চিন্তা করে বড় কাজ করবেন । সাফল্যমূলক কাজ সম্পর্কে প্রথমেই কাউকে জানাবেন না । কারণ— মনসা চিন্তিতং কর্ম বচসা ন প্রকাশয়েৎ । অন্যলক্ষিত কার্যঞ্চ ততো সিদ্ধি ন জায়তে ।। বিশেষ করে Business , Weeding , Examination , Govt . Service , House Building , Printing and Publishing ইত্যাদি কাজ করার আগে কাউকে জানাবেন না । তাতে বাধা আসবে । কারণ কেউ কারো achievement বা development সহ্য করতে পারেন না । পরিশেষে বলি , উল্লিখিত সূত্রগুলি অনুসরণ করলে আপনি অবশ্যই জীবনে সাফল্য লাভ করবেন ।

Print Friendly, PDF & Email