সিলেট বন্যাদুর্গত মানুষের পাশে নায়িকা “অন্তু রহমানী”

এ আল মামুন এ আল মামুন

স্টাফ রিপোর্টার

প্রকাশিত: ৮:৪৬ অপরাহ্ণ, জুন ২২, ২০২২ | আপডেট: ১০:১৬:অপরাহ্ণ, জুন ২২, ২০২২

আব্দুল্লাহ আল মামুন (এ আল মামুন) বিনোদন ডেস্কঃ

বাংলাদেশের শরিয়তপুর জেলায় জন্ম নেওয়া এক নারীর কথা বলবো আজ।
মেয়েটির নাম অন্তু রহমানী, নাম শুনে হয়তো কম বেশি সবাই চিনেছেন তাকে, হ্যা ঠিকই ধরেছেন, বলছি তেলেগু সিনেমা ইন্ডাস্ট্রির গ্লামারস কন্যা অন্তু রহমানীর কথা।

যখন তার জন্মভুমি বাংলাদেশের সিলেট সুনামগঞ্জ বন্যায় ভেঁসে লক্ষ্য লক্ষ্য মানুষের প্রাঁণ ঝুঁকিতে, তখন সে মেয়েটি আর থেমে থাকিনি। থেমে থাকতে পারেনি হয়তো নাড়ির টানে।
যখন সে দেখলো অনেক মানুষ সিলেট সুনামগঞ্জ নেত্রকোনা বগুড়া ফেনীর বন্যার্ত মানুষের পাশে দাঁড়াচ্ছে, তখন তিনিও ছুটে এসেছিলেন, তার জন্মভুমি বাংলাদেশে এবং তিনিও বিপদগ্রস্ত মানুষের দিকে বাড়িয়ে দেন তার সাহায্যের হাত। অনেকের কথা নিউজ পেপারে উঠে আসলেও তার কথা এখনো আমরা কেহ শুনতে পারিনি। আসেনি কোন নিউজ পেপারেও।

গতো ১৮ জুন রাত ১১.৩৭ মিনিটে এই নায়িকার দেয়া একটি ফেইসবুক পোস্ট নজরে আসে আমাদের, এবং সেই পোস্ট দেখে জানতে পারি সিলেট বিভাগের ৪ টি জেলার বন্যার্ত মানুষের জন্য তিনি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিকট ১৬ কোটি টাকা সাহায্য করেছেন, এবং প্রধানমন্ত্রীকে তিনি আশ্বস্ত করেছেন এই বলে, প্রয়োজনে বাংলাদেশের যেকোন দুর্যোগের সময় অন্তু রহমানীকে
বাংলাদেশ পাশে পাবে।
পাঠকদের সুবিধার্থে অন্তু রহমানির দেয়া পোস্টটি হুবাহু তুলে ধরা হলো।
অন্তু তার ফেইসবুকে লিখেছেনঃ

I have come to Hon’ble Prime Minister Sheikh Hasina with money for the people of Sylhet, Sunamganj, Netrokona, Bogra, Feni.
With my own hands and I have informed the Prime Minister Sheikh Hasina,
You will find it by all means, I promised yesterday, today I feel very light doing that,
For the people of 4 districts, I have given four crore rupees, a total of 16 crore rupees
I came to the country in a hurry, Sylhet, Sunamganj, hearing about this terrible situation, I will leave for India tomorrow.
I couldn’t tell anyone. I couldn’t spend time with anyone. Sorry.
I feel the biggest pain, I could not meet my mother
May Allah keep everyone healthy And if the helpless people need any kind of inshaAllah they will find me by their side.
Thanks.

বাংলায় যার অর্থ দাঁড়ায়

আমি সিলেট, সুনামগঞ্জ, নেত্রকোনা, বগুড়া, ফেনীর মানুষের জন্য টাকা নিয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে এসেছি।
নিজ হাতে টাকা দিয়ে এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে জানিয়েছি,
আপনি সব সময় এভাবে আমাকে পাশে পাবেন, আমি গতকাল প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলাম, আজ আমি এটি করতে খুব হালকা অনুভব করছি,
চার জেলার মানুষের জন্য চার কোটি করে টাকা দিয়েছি, মোট ১৬ কোটি টাকা।
হুট করে দেশে এসেছি সিলেট, সুনামগঞ্জ এর এই ভয়াবহ অবস্থার কথা শুনে, আগামীকাল ভারতে চলে যাব।
কাউকে বলতে পারিনি। কারো সাথে সময় কাটাতে পারিনি। দুঃখিত।
আমি সবচেয়ে বড় কষ্ট অনুভব করি, মায়ের সাথে দেখা করতে পারিনি বলে।
আল্লাহ সবাইকে সুস্থ রাখুক আর অসহায় মানুষের কোন প্রয়োজন হলে ইনশাআল্লাহ তারা আমাকে তাদের পাশে পাবেন।
ধন্যবাদ

এই পোস্ট পড়ে আমাদের প্রতিনিধি অন্তু রহমানীর সাথে ফেইসবুকে যোগাযোগ করলে অন্তু রহমানী আমাদের এই প্রতিনিধিকে বলেন, “বিপদগ্রস্ত মানুষের পাশে দাড়িয়েছি, দাড়াতে পেরেছি, এটাই তো আমার জন্য অনেক বড় পাওয়া যে আল্লাহ আমায় তাদের পাশে দাড়াতে সুযোগ করে দিয়েছেন। নাম ডাকের জন্য আমি মানুষকে সাহায্য করিনি। টাকার অংকে নয়, মানুষের ভালোবাসায় মানুষকে মুল্যায়ন করি আমি।”

এর আগে যখন চট্টগ্রাম সীতাকুন্ড আগুনে পুড়ে মানুষ মারা যায়। তখনও তিনি সেই মানুষ গুলোর জন্য সাড়ে তিন কোটি টাকা সাহায্য করেছেন৷
এবং যতোজন ফায়ারসার্ভিস কর্মীরা মারা গিয়েছেন, তাদের পরিবার থেকে এক এক সদস্য কে চাকুরী দেবার জন্য প্রধানমন্ত্রী কাছে সুপারিশ করেন। তিনি কথা দিয়েছেন তাদের চাকুরী সে দিয়ে দিবেন। অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়াবেন তিনি৷

এবার চলে আসি সিলেট সুনামগঞ্জ এর দিকে, যখন সে শুনতে পায়, তার দেশের মানুষেরা ভালো নেই, বন্যায় তাদের ঘর বাড়ি ভেঁসে যাচ্ছে, তখন তিনি ছুটে আসেন দেশে। যদি ও সিলেট সুনামগঞ্জ এর মানুষ তাকে চিনে না, তবুও দেশের মেয়ে হয়ে তার দ্বায়িত্ব থেকে তিনি এক পা পিছিয়ে ছিলেন না। ৪ জেলার জন্য তিনি কয়েক কোটি টাকা সাহায্য করে গেছেন।

অন্তু রহমানী আরো বলেন “যদি সিলেট সুনামগঞ্জ এর মানুষ খেতে না পারে, ঘুমাতে না পারে আমি সে দিকে ও লক্ষ্য রাখবো। যদি রোহিংগা রা বাংলাদেশে থাকতে পারে তাহলে আমাদের দেশের মানুষ ওর থেকে ও বিলাসবহুল ভাবে থাকবেই ইনশাআল্লা”

Print Friendly, PDF & Email