সংঘর্ষের সূত্রপাত নিয়ে ব্যবসায়ী-শিক্ষার্থী ভিন্ন ভিন্ন বক্তব্য

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ৯:৫৯ পূর্বাহ্ণ, এপ্রিল ২০, ২০২২ | আপডেট: ৯:৫৯:পূর্বাহ্ণ, এপ্রিল ২০, ২০২২

নিউমার্কেট এলাকার ওয়েলকাম ফাষ্ট ফুড এবং ক্যাপিটাল ফাষ্ট ফুড নামের দুই দোকানের কর্মচারীর বিরোধ থেকেই মূলত ঘটনার সূত্রপাত বলে জানিয়েছে নিউমার্কেটের ব্যবসায়ীরা। ওয়েলকাম দোকানের কর্মচারী বাপ্পির ডাকে বিরোধ মিটাতে সেখানে ঢাকা কলেজের কয়েকজন শিক্ষার্থী এসেছিলো। পরে ব্যবসায়ী-দোকান কর্মচারী এবং ঢাকা কলেজ শিক্ষার্থীদের মধ্যে সংঘর্ষ এবং হতাহতের ঘটনা ঘটেছে।

তবে এ বিষয়ে ভিন্ন কথা বলছেন ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীরা। ঢাকা কলেজের সাংবাদিক এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হাকিমসহ কয়েকজন শিক্ষার্থী আমাদের সময়কে জানিয়েছেন, এক ছাত্র নিউমার্কেটে কেনাকাটা করতে গেলে ব্যবসায়ীদের সঙ্গে বাগ্বিতণ্ডা হয়। এর জেরে ব্যবসায়ীরা তাঁকে কুপিয়ে আহত করেন। এর জেরেই নিউমার্কেটের ব্যবসায়ীদের সঙ্গে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।

জানা গেছে, ঘটনা সোমবার সন্ধ্যার। ইফতারের সময় টেবিল বসানো নিয়ে নিউমার্কেটের দুটি খাবারের দোকানের কর্মীদের মধ্যে বিরোধ হয়। এর জেরে ওয়েলকাম ফাস্ট ফুড নামের একটি খাবারের দোকানের কর্মচারী বাপ্পীকে মারধর করেন ক্যাপিটাল ফাস্ট ফুডের কাওসার। প্রতিশোধ নিতে বাপ্পী ঢাকা কলেজের কয়েকজন শিক্ষার্থীকে নিয়ে কাওসারের ওপর হামলা করেন। কাওসারের লোকজন শিক্ষার্থীদের মারধর করে বের করে দেন। এর জরে ধরেই রাতে শিক্ষার্থীরা নিউমার্কেটের দিকে এগিয়ে গেলে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হয়।

নিউমার্কেট ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি আমিনুল ইসলাম গণমাধ্যমকে বলেন, নিউমার্কেটের ভেতর দুই দোকানদারের মধ্যে ঝামেলা হয়। এর জেরেই এক পক্ষ ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীদের নিয়ে আসে। এতে করে দুই পক্ষের মধ্যে ধ্বস্তাধ্বস্তি ও মারামারির ঘটনা ঘটে। ওই সময় শিক্ষার্থীরা চলে যান। এরপর তাঁরা গুজব ছড়ান ব্যবসায়ীরা শিক্ষার্থীদের মারধর করেছেন, কুপিয়ে জখম করেছেন। পরে তাঁরা নিউমার্কেটে এসে হামলা ও অগ্নিসংযোগ করার চেষ্টা করেন।

ওয়েলকাম ফাস্ট ফুডের মালিক মো. রফিক বলেছেন, বাপ্পীকে মারধরের পর বিষয়টি নিয়ে বসার কথা ছিল। কিন্তু বাপ্পী এর আগে তাঁর পরিচিত ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীদের জানান। তাঁরা এসে এ বিষয়ে কাওসারের কাছে জানতে চান। তখন কাওসার তাঁর লোকজন নিয়ে শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা করে মার্কেট থেকে বের করে দেন। পরে কলেজের শিক্ষার্থীরা দল বেঁধে এসে হামলা করেন।

অপরদিকে রাতেই শিক্ষামন্ত্রী ড. দীপু মনি এমপি আহত ছাত্রদের দেখতে হাসপাতালে যান। সেখানে সাংবাদিকদের শিক্ষামন্ত্রী বলেন, এখন পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। আমরা আশা করি ব্যবসায়ী বা আমার শিক্ষার্থী সকল পক্ষ শান্তি বজায় রাখবে। কারণ শান্তি সবারই দরকার। কিছু পক্ষ আছে যাদের দরকার অশান্তি, যাদের দরকার অস্থিতিশীলতা-অরাজকতা এবং তারাই যে কোন জায়গায় ছোট কোন ঘটনা ঘটলেও সেটাকে বড় করে তুলার অপচেষ্টা চালাচ্ছে।

Print Friendly, PDF & Email