প্যানোরামিক জাদুঘর নির্মাণে বাংলাদেশকে সহায়তা দেবে তুরস্ক

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ৫:১২ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১০, ২০২১ | আপডেট: ৫:১২:অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১০, ২০২১

১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের দৃশ্যপট তুলে ধরে অত্যাধুনিক প্যানোরামা জাদুঘর তৈরির পরিকল্পনা করছে বাংলাদেশ। আর সেটি বাস্তবায়নে তুরস্কের সাহায্য চেয়েছে ঢাকা। সম্প্রতি তুরস্ক সফরকালে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব খাজা মিয়া তুর্কি বার্তা সংস্থা আনাদোলু এজেন্সিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এ কথা জানিয়েছেন।

তিনি বলেছেন, বাংলাদেশ সরকার একটি প্যানোরামা জাদুঘর স্থাপনের পরিকল্পনা করছে, যা দেশের মুক্তিযুদ্ধ ও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবনকে তুলে ধরবে। সচিব বলেন, আমরা বিভিন্ন দেশ থেকে ধারণা নেওয়ার চেষ্টা করছি। এটি (তুরস্ক সফর) তার প্রথম পদক্ষেপ। আমি (তুরস্ক) সফর করছি এবং অন্য দেশ থেকেও কিছু তথ্য ও নকশা সংগ্রহের চেষ্টা করেছি।

সফরকালে তুরস্কের বেশ কয়েকটি যুদ্ধ জাদুঘর ঘুরে দেখেন খাজা মিয়া, যার মধ্যে ইস্তাম্বুলের বিখ্যাত প্যানোরামা ১৪৫৩ ইতিহাস জাদুঘর ও আফিয়ন প্রদেশের বিজয় জাদুঘর অন্যতম। এসময় তিনি প্যানোরামা জাদুঘরের ৩৬০ ডিগ্রি থ্রিডি পেইন্টিং দেখে মুগ্ধ হন।

সচিব বলেন, তাদের (তুর্কিদের) নিজস্ব ধারণা, দর্শন ও সংস্কৃতি রয়েছে। আমাদেরও রয়েছে নিজস্ব ধারণা, দর্শন ও সংস্কৃতি। এরপরও বিভিন্ন ক্ষেত্রে মিল দেখতে পাওয়া যায়। উভয় দেশ বিভিন্ন খাতে ধারণা ও অভিজ্ঞতা ভাগাভাগি করতে পারে বলে উল্লেখ করেন তিনি।

সচিব আরও উল্লেখ করেন, তুরস্কের অন্য কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান যদি জাদুঘরের নকশা বা প্রযুক্তিগত দিক থেকে বাংলাদেশকে সহায়তা করতে চায়, তাহলে তাদের কাজের সুবিধার্থে বাংলাদেশে নিয়ে যেতে যথাসাধ্য চেষ্টা করবেন।

মেহেরপুর জেলায় মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক প্যানোরামা জাদুঘর তৈরির পরিকল্পনা রয়েছে বাংলাদেশের। তবে নতুন প্রজন্মের যাতায়াতের সুবিধার্থে সেটি ঢাকাতেও স্থাপন করা হতে পারে। যদিও এ বিষয়ে এখনো চূড়ান্ত কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি।

খাজা মিয়া জানান, প্যানোরামা জাদুঘরের বিষয়ে তুরস্কের সঙ্গে এখনো আনুষ্ঠানিক কোনো চুক্তি হয়নি। তবে তুর্কি কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে যথাযোগ্য সহযোগিতা পাওয়ার বিষয়ে আশাপ্রকাশ করেন তিনি।

সূত্র: জাগো নিউজ

Print Friendly, PDF & Email