মিলাদের খাবার খেয়ে হাসপাতা’লে ৪১ জন ভর্তি

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ১০:০৫ পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৩, ২০২১ | আপডেট: ১০:০৫:পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৩, ২০২১

জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজে’লার বেলখুর গ্রামে মিলাদের খাবার খেয়ে তিন গ্রামের প্রায় শি’শুসহ অর্ধশতাধিক মানুষ অ’সুস্থ হয়ে পড়েছেন।
গেল শুক্রবার বিকেলে মিলাদ শেষে তবারক হিসেবে দেয়া পোলাও বিতরণ করা হয়। এরপর শনিবার রাত থেকে রবিবার দুপুর পর্যন্ত পেট ব্যথা, বমি ও ডায়রিয়ায় আ’ক্রা’ন্ত হয়ে শি’শুসহ অর্ধশতাধিক না’রী-পুরুষ পাঁচবিবি উপজে’লা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়েছেন।

উপজে’লা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মক’র্তা ডা. সোলায়মান মেহেদী স্থানীয়দের বরাত দিয়ে জানান, বেলখুর গ্রামে মৃ’ত ব্যক্তির উদ্দেশ্যে শুক্রবার দুপুরে গ্রামের ম’স’জিদে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। পরে সেখানে আমন্ত্রিত অ’তিথিদের তবারক হিসেবে পোলাও খাওয়ানো হয়। সেই পোলাও খেয়ে বাকিলা, পানিখুর ও বেলখুর গ্রামের অর্ধশতাধিক না’রী-পুরুষ বমি, ডায়রিয়া ও পেট ব্যথা নিয়ে হাসপাতা’লে ভর্তি হয়েছেন।

পাঁচবিবি উপজে’লার বেলখুর গ্রামের আব্দুস সামাদ মন্ডল বলেন, ‘কিছুদিন আগে বেলখুর গ্রামের বজলুর রহমান নামে এক ব্যাক্তি মা’রা যান। মৃ’ত বজলুর রহমানের আত্মা’র মাগফেরাত কা’মনা করে শুক্রবার স্থানীয় ম’স’জিদে দোয়া মাহফিল শেষে পোলাও খাওয়ানোর পর শুক্রবার রাত থেকে শতাধিক মানুষের ডায়রিয়া শুরু হয়।

পাঁচবিবি উপজে’লা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হওয়া রোগী বেলখুর গ্রামের শাপলা বেগম (৩০) জানান, ডায়েরিয়া শুরু হওয়ার পর প্রথমে তারা বাড়িতে চিকিৎসা শুরু করেন। এরপরও অবস্থার অবনতি ঘটলে তারা হাসপাতা’লে ভর্তি হন।

এ দিকে হঠাৎ করে শনিবার রাত থেকে এখন পর্যন্ত ৪১ জন রোগী হাসপাতা’লে ভর্তি হলে রোগীর সংখ্যা বেড়ে যাওয়ায় হিমশিম খেতে হচ্ছে চিকিৎসকদের। বেড না থাকায় হাসপাতা’লের মেঝেতেও অনেককে চিকিৎসা নিতে হচ্ছে বলেও জানান উপজে’লা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মক’র্তা ডা. সোলায়মান মেহেদী।

Print Friendly, PDF & Email