ডিজিটাল মার্কেটিং ক্যারিয়ার

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ৪:৪৪ অপরাহ্ণ, আগস্ট ২২, ২০২১ | আপডেট: ৪:৪৫:অপরাহ্ণ, আগস্ট ২২, ২০২১

ডিজিটাল মার্কেটিং মানে অনলাইনে পন্য বা সার্ভিসের বিজ্ঞাপন প্রচার করাকেই বুঝায়। এখন সেটা হতে পারে সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে, হতে পারে সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং এর মাধ্যমে, হতে পারে সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশনের মাধ্যমে, আবার হতে পারে ইমেইল মার্কেটিং এর মাধ্যমে।

চার বছর আগে দেশের সর্বপ্রথম ডিজিটাল মার্কেটিং কম্পিটিশন এনালাইটিক্স এর আয়োজন করে ইস্ট ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটি ক্রিয়েটিভ মার্কেটিং ক্লাব। দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে প্রায় একশো’র ও বেশি টিম অংশগ্রহণ করে। তারই ধারাবাহিকতায় চার বছর পর অনুষ্ঠিত হলো দেশের সর্ববৃহৎ ডিজিটাল মার্কেটিং কম্পিটিশন এনালাইটিক্স ২.০।

বর্তমান সময়ে পেশা বা একজন ফ্রীল্যান্সার হিসাবে ডিজিটাল মার্কেটিং এর চাহিদা আকাশচুম্বী বলা যায়। বাংলাদেশের কোম্পানি গুলোতে একজন ডিজিটাল মার্কেটার এর কাজের ক্ষেত্র যেরকম তৈরি হচ্ছে ঠিক সেভাবে অনলাইন মার্কেটিপ্লেস গুলোতেও ডিজিটাল মার্কেটিং এর ছোট ছোট কাজের জন্য ক্লায়েন্টরা প্রতিদন জব পোষ্ট করে যাচ্ছে।

ডিজিটাল মার্কেটিং এর এই কোর্সটি সাজানো হয়েছেই এই তিন ক্ষেত্রের মানুষদের কথা চিন্তা করে। কোর্সটিতে ডিজিটাল মার্কেটিং এর প্রতিটা চ্যানেল এবং চ্যানেলগুলো ব্যাবহার করে কিভাবে একটি সফল মার্কেটিং ক্যাম্পেইন পরিচালনা করা যায় সে সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে। সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন এবং কিভাবে সার্চ ইঞ্জিনে পেইড ক্যাম্পেইন শুরু করা যায়, সোশ্যাল মিডিয়া চ্যানেলগুলো সেট আপ করে কিভাবে ভাইরাল কনটেন্ট দিয়ে অপটিমাইজ করা যায়, সফল ইমেইল ক্যাম্পেইন তৈরি এবং সর্বশেষে কিভাবে গতানুগতিক ট্রেডিশনাল মার্কেটিং আর ডিজিটাল মার্কেটিং একই সুতোয় নিয়ে আসা যায় তা নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে।

ডিজিটাল মার্কেটিংয়ের ক্ষেত্রে কনটেন্ট তৈরি ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ বলে জানান মৃত্যুঞ্জয় দেবনাথ। আবার অনেকেই ভালো কনটেন্ট তৈরি করেও ডিজিটাল মার্কেটিং নিয়ে কাজ করার সুযোগ পাচ্ছে না। তাদের জন্য সবসময় কিছু একটা করার স্বপ্ন দেখেন মৃত্যুঞ্জয় দেবনাথ। নিজের ক্যারিয়ার শুরুতে পার করেছেন অনেক ধরনের বাধা বিপত্তি। তাই ডিজিটাল দুনিয়ার কাজ করতে আসা তরুণরা যেন বাধার সম্মুখীন না হয়, সেজন্য মৃত্যুঞ্জয় নাথ চেষ্টা করে যাচ্ছেন নিজ জায়গা থেকে।

ডিজিটাল চ্যানেল ব্যবহার করে পণ্যের প্রমোশন করাই হচ্ছে ডিজিটাল মার্কেটিং। সোশ্যাল মিডিয়া, সার্চ ইঞ্জিন, ইনফ্লুয়েন্সার্ মার্কেটিং- এসবই ডিজিটাল মার্কেটিং এর অন্তর্ভুক্ত। প্রথাগত চাকরির বাজারে ছুটতে ছুটতে জীবনের অর্ধেক সময়টাই পার হয়ে যায় বাংলাদেশের শিক্ষার্থীদের। তাই বর্তমান সময়ে তাল মিলাতে চাইলে প্রথাগত চিন্তাভাবনা ছেড়ে ভাবতে হবে নতুন কিছু। এই দিক থেকে ডিজিটাল মার্কেটিং একটি সম্ভাবনাময় পেশা।

ডিজিটাল মার্কেটিং এর মাধ্যেমে যেভাবে বদলে যাবে আপনার ক্যারিয়ার।

ফ্রিল্যান্সিং বা মুক্তপেশার প্রতি বর্তমানে মানুষজন দিনে দিনে এতো বেশি আগ্রহী হচ্ছে বা এগিয়ে যাচ্ছে তাদের লক্ষ পূরণের উদ্দেশ্য তাতে করে এই সেক্টর থেকে আমাদের বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনের পথ যেমন সুগম হতে চলেছে, ঠিক তেমনি এই সেক্টর থেকে নিজে বদলে ফেলারও সময় চলে এসেছে শুধু শুধু চাকরির পেছনে না ছুটে।

ফ্রিল্যান্সিং বা মুক্তপেশাতে নিজেকে নিয়োজিত করার জন্য আপনাকে প্রথমে বেশ কয়েকটি বিষয়ের প্রতি নজর দিতে হবে। সেগুলো মধ্যে প্রথম ও প্রধান কাজটি হচ্ছে আপনি আসলে এই সেক্টরের কোন ক্যাটেগরিকে থেকে মুনাফা অর্জনের জন্যে বেছে নিবেন? নিচে প্রধান প্রধান কয়েকটি ক্যাটেগরির নাম উল্লেখ করা হলোঃ

উপরের তালিকা ব্যতিত আরো অনেক সেক্টর আছে যেখান থেকে আপনি চাইলে নিজেকে প্রস্তুত করে বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করতে পারেন। তবে তালিকায় বর্ণিত ক্যাটেগরিগুলোর মধ্যে বর্তমান সময়ে ডিজিটাল মার্কেটিং বেশ জনপ্রিয়। আপনি যদি একজন ডিজিটাল মার্কেটার হয়ে থাকেন বা হতে চাচ্ছেন তাহলে অবশ্যই এই পোস্টটি আপনার জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এইসমস্ত কাজের মাধ্যেমে আমাদের দেশ থেকেই অর্জিত হচ্ছে লক্ষ লক্ষ ডলার দেশীয় ফ্রিল্যান্সারদের মাধ্যমে।

সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন
সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং
এফিলিয়েট মার্কেটিং
সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং ইত্যাদি।

সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশান (SEO):

Search Engine Optimization একটি পদ্ধতি যার মাধ্যমে একটি ওয়েবসাইট বা ওয়েবপেজকে সার্চ ইঞ্জিন ব্যবহারকারীদের সার্চ বা অনুসন্ধান ফলাফলের তালিকায় প্রথম দিকে দেখানোর চেষ্টা করা বা সর্বোচ্চকরন করা যাতে এটি অনুসন্ধান করলে ফলাফলে প্রায়শই দেখা যায়। এসইও কোনো একক কাজ নয়, বরং বহুক্ষেত্রে বিভিন্ন ধরনের কাজের সাথে সম্পৃক্ত একটি পদ্ধতি, বলা যায় সমন্বিত পদ্ধতি।

সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং (SEM):

সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং বা SEM হচ্ছে আপনার ব্যবসার গঠনশৈলীর উপর ভিত্তি করে সাধারনত যে ধরনের মার্কেটিং করা হয়। এক্ষেত্রে কোন PPC (পে-পার-ক্লিক করুন) অথবা সিপিসি (খরচ প্রতি ক্লিকে) মডেল বা সিপিএম (খরচ প্রতি হাজার ইমপ্রেশন) মডেল নির্বাচন করতে পারবেন। বর্তমান SEM অনলাইন মার্কেটিং এর মধ্যে সবথেকে সাশ্রয়ী অনলাইন মার্কেটিং, যা কিনা আপনার রিটার্ন অন ইনভেস্টমেন্ট বাড়াতে পারে। এর মাধ্যেমে আমরা আমাদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে খুব সহজেই সকলের মাঝে তুলে ধরতে সক্ষম হতে পারি।

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং (SMM):

সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যেমে আপনি চাইলে খুব সহজেই নিজের পণ্যের প্রচার করতে পারেন খুব সহজেই। এর চাইতে সহজ আর সফল মাধ্যেম আপনি চাইলেও পাবেন না। সোশ্যাল মিডিয়াতে আপনি আপনার নিজের পণ্যের পেজ বা প্রচার করে বিক্রির পরিমান বাড়াতে পারেন।

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং (Affiliate Marketing):

আপনি যদি আপনার ডিজিটাল মার্কেটিং স্কিল ব্যবহার করে অন্য কোন ব্যক্তির প্রডাক্ট অথবা সার্ভিস সমূহ কমিশনের ভিত্তিতে প্রমোশন করান তখন সেটাকে বলা হবে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং। আর এই অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এর মাধ্যেমে আপনি অনেক টাকা অর্জন করতে পারবেন যদি ধর্য্য ধরে কাজ চালিয়ে যেতে পারেন। তবে এখান থেকে রাতারাতি ধনী হওয়ার চিন্তা না করাটাই আপনার জন্যে বেটার।

আজকে ডিজিটাল মার্কেটিং এর প্রাথমিক ধারণা এই পর্যন্তই। আমরা খুব শিঘ্রই বিস্তারিত আলোচনা করবো ডিজিটাল মার্কেটিং এর সকল ক্যাটেগরি সমূহ নিয়ে। আপনারা আমাদের ডিটেক্টবিডির সাথেই থাকুন আর নিজেকে আপডেট রাখুন প্রযুক্তির উন্নয়নের সাথে সাথে।

ডিজিটাল মার্কেটিং কোর্সে যা যা থাকছেঃ

ডিজিটাল মার্কেটিং কি?
ডিজিটাল মার্কেটিং এর ক্ষেত্রসমূহ
একটি পূর্ণাঙ্গ ওয়েবসাইট যা যা থাকা উচিত
ওয়েবসাইটের কনটেন্ট ডেভলপমেন্টে যে বিষয়গুলো গুরুত্বপূর্ণ
রেসপনসিভ ওয়েবসাইটের ডেভল্পমেন্টের প্রয়োজনীয়তা
অনলাইন এনালিটিকস
ওয়েবসাইটের গোল এবং ইভেন্ট ট্র্যাকিং
কনভার্শান ফানেল
কেপিয়াই (KPI – Key Performance Indicator) চিহ্নিতকরণ
সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন কি এবং এর ক্ষেত্রসমূহ?
কি ওয়ার্ড রিসার্চ
কনটেন্ট স্ট্র্যাটিজি
লোকাল সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন
সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং
ফেইসবুক মার্কেটিং
টুইটার মার্কেটিং
লিঙ্কডিন মার্কেটিং
ইউটিউব ভিডিও মার্কেটিং
ইমেইল মার্কেটিং
মোবাইল মার্কেটিং

Print Friendly, PDF & Email