বরগুনার আমতলী ইউপি নির্বাচনে অস্ত্রের মহড়া ও বহিরাগতদের অবাধ বিচরণ

আল নোমান আল নোমান

বরগুনা প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ২:১১ পূর্বাহ্ণ, জুন ২০, ২০২১ | আপডেট: ২:১১:পূর্বাহ্ণ, জুন ২০, ২০২১

আমতলী উপজেলার ছয়টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের আর মাত্র ১ দিন বাকী। নির্বাচনকে সামনে রেখে আওয়ামীলীগ ও স্বতন্ত্র প্রার্থীদের সমর্থনে বহিরাগত সন্ত্রাসীদের আনাগোনা বৃদ্ধি পেয়েছে। আগত সন্ত্রাসীরা স্ব-স্ব প্রার্থীর সমর্থনে প্রকাশ্যে অস্ত্রের মহড়া দিয়ে ভোটারদের ভয়ভীতি দেখাচ্ছেন এমন অভিযোগ স্বতন্ত্র প্রার্থী ও আওয়ামীলীগ প্রার্থীদের। প্রশাসনের কাছে অনতিবিলম্বে বহিরাগত ও অস্ত্র প্রদর্শনকারী সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার দাবী জানিয়েছেন অভিযোগকারীরা।
জানাগেছে, আমতলী উপজেলার ছয়টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন আগামী ২১ জুন। নির্বাচনের আর মাত্র এক দিন বাকী। প্রার্থী ও কর্মী সমর্থকদের মধ্যে টান-টান উত্তেজনা বিরাজ করছে। শেষ মুহুর্তে ভোটারদের মন জয় করতে আপ্রাণ চেষ্টা চালাচ্ছেন প্রার্থীরা। ছয়টি ইউনিয়নের মধ্যে গুলিশাখালী, আঠারোগাছিয়া ও আড়পাঙ্গাশিয়া ইউনিয়নে আওয়ামীলীগ ও স্বতন্ত্র প্রার্থীরা বহিরাগত সন্ত্রাসী এনে অস্ত্র দেখিয়ে ভোটারদের ভয়ভীতি প্রদর্শনের অভিযোগ রয়েছে। ওই তিন ইউনিয়নের আওয়ামীলীগ ও স্বতন্ত্র প্রার্থীদের মধ্যে রয়েছে পাল্টা-পাল্টি অভিযোগ। অভিযোগ রয়েছে আওয়ামীলীগ ও স্বতন্ত্র প্রার্থীরা স্ব-স্ব সমর্থনে বহিরাগত সন্ত্রাসী ভাড়া এনে ভোট কেন্দ্র দখলের চেষ্টায় লিপ্ত রয়েছেন। বহিরাগত সন্ত্রাসীরা ইতিমধ্যে প্রকাশ্যে দেশীয় অস্ত্র দিয়ে ভোটারদের ভয়ভীতি দেখাচ্ছেন এবং ভোট কেন্দ্রে যেতে বারন করছেন এমন অভিযোগ উপজেলার আঠারোগাছিয়া, গুলিশাখালী ও আড়পাঙ্গাশিয়া ইউনিয়নের স্বতন্ত্র প্রার্থীদের। আঠারোগাছিয়া স্বতন্ত্র প্রার্থী মোঃ রফিকুল ইসলাম রিপন অভিযোগ করে বলেন, আওয়ামীলীগ গ্রার্থী মোঃ হারুন অর রশিদ হাওলাদার চিহিৃত সন্ত্রাসী জুয়েল তালুকদার, রাপ্পি তালুকদার, রিয়াজ তালুকদার, পলাশ, বাদশা গাজী ও রাজিবের নেতৃত্বে দুই শতাধিক বহিরাগত সন্ত্রাসী ভাড়া এনে এলাকায় দেশীয় অস্ত্র প্রদর্শন করে ভোটারদের ভয়ভীতি দেখাচ্ছেন। হারুন অর রশিদ অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, উল্টো স্বতন্ত্র প্রার্থী সন্ত্রাসী ভাড়া এনে ভোটারদের কেন্দ্রে যেতে বারন করছে এবং ভোট কেন্দ্র দখলে পায়তারা চালাচ্ছেন। গুলিশাখালী ইউনিয়নের স্বতন্ত্র প্রার্থী আসাদুর রহমান আসাদ মৃধা অভিযোগ করেন , আওয়ামীলীগ প্রার্থী অ্যাডভোকেট মনিরুল ইসলাম মনি নির্বাচনের শুরু থেকেই তার কর্মী সমর্থকরা অস্ত্র প্রদর্শন করে আমার কর্মী-সমর্থক ও ভোটারদের ভয়ভীতি দেখাচ্ছেন। তিনি আরো বলেন, গত বৃহস্পতিবার দুই শতাধিক বহিরাগত সন্ত্রাসী এনে এলাকায় অস্ত্র দিয়ে ভোটার ও সাধারণ মানুষের মাঝে আতঙ্ক সৃষ্টি করছে। আওয়ামীলীগ প্রার্থী অ্যাডভোকেট মনিরুল ইসলাম মনি অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, উল্টো স্বতন্ত্র প্রার্থী ভোট কেন্দ্র দখলে বিভিন্ন এলাকা থেকে সন্ত্রাসী ভাড়ায় এনেছে। আমি তার সন্ত্রাসী বাহিনীর ভয়ে এলাকায় যেতে পারছি না। ইউনিয়নের সর্বত্র চলছে আতঙ্ক। অপর দিকে আড়পাঙ্গাশিয়া ইউনিয়নের স্বতন্ত্র প্রার্থী মোঃ আবুল কালাম আজাদ অভিযোগ করেন , আওয়ামীলীগ প্রার্থী মোসাঃ সোহেলী পারভীন মালা বহিরাগত সন্ত্রাসী এনেছে। ওই সন্ত্রাসীরা অস্ত্র দেখিয়ে ভোটারদের ভয়ভীতি দেখাচ্ছে। এমন অভিযোগ অস্বীকার করে আওয়ামীলীগ প্রার্থী সোহেলী পারভীন মালা বলেন, আজাদ তার সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে আমার ভোটারদের ভয়ভীতি দেখাচ্ছেন।
আমতলী থানার ওসি মোঃ শাহ আলম হাওলাদার বলেন, বহিরাগত সন্ত্রাসী ও অস্ত্র প্রদর্শনের অভিযোগ পাইনি। আইন শৃংখলা বাহিনী তৎপর রয়েছে। সুষ্ঠু নির্বাচনে কাউকে ছাড় দেয়া হবে না।

Print Friendly, PDF & Email