ঢাবিতে ছাত্রলীগের হামলার প্রতিবাদে ঢাকা কলেজ ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ

প্রকাশিত: ২:০৮ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২৫, ২০১৮ | আপডেট: ২:০৮:অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২৫, ২০১৮

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্দোলনরত সাধারণ শিক্ষার্থীদের উপর ছাত্রলীগ সন্ত্রাসী কর্তৃক নগ্ন হামলার প্রতিবাদে ও দোষীদের গ্রেফতাররের দাবিতে  বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে ঢাকা কলেজ ছাত্রদল।  আজ বৃহস্পতিবার সকাল ১০ টায় রাজধানীর সায়েন্স ল্যাব মোড় থেকে মিছিলটি শুরু হয়ে এলিফ্যান্ট রোড দিয়ে বাটারসিগনাল মোড়ে গিয়ে এক সমাবেশের মধ্য দিয়ে শেষ হয়।

ঢাকা কলেজ ছাত্রদলের সিনিয়র সহ সভাপতি এইচ এম রাশেদ ও ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক আজমির হোসেনের নেতৃত্বে এসময় আরো উপস্হিত ছিলেন, সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ সোহরাব হোসেন, সহ সভাপতি শাহাদাত হোসেন সোহাগ, এমরান হোসেন শাহিন, খাইরুল ইসলাম, নুরুল আলম আল-আমিন, মৃধা মোঃ মাসুদ রানা, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক শাহিনুর রহমান শাহিন, আশিক আহমেদ, সালেহ আহমেদ, শাহিন রেজা শিশির, মিজানুর রহমান মিন্টু, মৃধা মোঃ জুলহাস, গোলাম মোস্তফা রাজ, এস এম সজিব বিশ্বাস, মাহফুজুর রহমান, কাজী আজহার উদ্দিন, আব্দুল্লাহ মনসুর কমেট, মোঃ রাকিব সরকার, মোঃ সোহাগ, মোঃ জুয়েল, সহ সাধারন সম্পাদক আবির রায়হান, মামুনুর রহমান মামুন, মহিবুর রহমান টিপু, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফুল ইসলাম, আব্দুল আহাদ, শামিম আহমেদ যোগাযোগ সম্পাদক মোঃ জামাল হোসেন, সহ-আইন সম্পাদক তানভীর আহমদ, সহ-মানবাধিকার সম্পাদক মোঃ রাহাত হোসেন সহ অর্ধশতাধিক নেতৃবৃন্দ।

উল্লেখ্য, আন্দোলনরত ছাত্রীদের উপর নিপীড়নে অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতাদের বহিষ্কারের দাবিতে প্রশাসনিক ভবন ঘেরাওয়ের পর মঙ্গলবার বিকেলে অবস্থানরত শিক্ষার্থীদের উপর হামলা চালিয়ে অবরুদ্ধ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) উপাচার্য মো. আখতারুজ্জামানকে উদ্ধার করে ছাত্রলীগ।

টানা ৪ ঘণ্টা অবরুদ্ধ থাকার পর ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসাইনের নেতৃত্বে সংগঠনের একদল কর্মী অবস্থানকারীদের পিটিয়ে সেখান থেকে সরিয়ে দেন।

অবস্থান ভেঙে শিক্ষার্থীরা বের হয়ে আসার সময় বিভিন্ন ফটকের সামনে থাকা ছাত্রলীগ কর্মীরা আবারও তাদের উপর হামলা চালায়। এতে ছাত্র ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক লিটন নন্দীসহ কয়েকটি বাম ছাত্র সংগঠনের অন্তত ১০ নেতাকর্মী আহত হন।

এর আগে সাত অধিভুক্ত কলেজের অধিভুক্তি বাতিলের দাবিতে গত ১৫ জানুয়ারি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল সাধারণ শিক্ষার্থী উপাচার্যের কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নেন।  এর পরপরই ছাত্রলীগ নেতারা অবস্থানকারীদের ছত্রভঙ্গ করে ও ছাত্রীদের উপর নিপীড়ন চালায়।

এরই প্রতিবাদে ১৭ জানুয়ারি নিপীড়নবিরোধী শিক্ষার্থীরা ফটক ভেঙে নিজ কার্যালয়ে প্রক্টরকে অবরুদ্ধ করেন। এ ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন অজ্ঞাতনামা ৫০ থেকে ৬০ জনকে আসামি করে মামলা দিলে লাগাতার আন্দোলনে নামেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা।