বরগুনার আমতলীতে ভুয়া পিলার ব্যবসায়ী দুই প্রতারক গ্রেপ্তার।

আল নোমান আল নোমান

বরগুনা প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ১:৫৩ পূর্বাহ্ণ, মে ১১, ২০২১ | আপডেট: ১:৫৩:পূর্বাহ্ণ, মে ১১, ২০২১
 
 
আমতলী পৌর শহরের জামে মসজিদের সামনে থেকে ইউসুফ গাজী ও রুস্তম আলী নামের দুই ভুয়া পিলার ব্যবসায়ী প্রতারককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। রবিবার সন্ধ্যায় তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। সোমবার পুলিশ তাদের আমতলী সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। আদালতের বিচারক মোঃ সাকিব হোসেন তাদের জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন।
জানাগেছে, বরগুনা সদর উপজেলার পুরাকাটা গ্রামের সফেজ গাজীর ছেলে ইউসুফ গাজী ও পিরোজপুর জেলার ভান্ডারিয়া উপজেলার উত্তর সিয়ালকাঠী গ্রামের আব্দুস ছত্তার মিয়ার ছেলে রুস্তম আলী দীর্ঘদিন ধরে মানুষের সাথে বিভিন্ন ধরনের প্রতারনা করে টাকা হাতিয়ে নিয়ে আসছে। গত ১০ বছর পুর্বে প্রতারক ইউসুফ ও রুস্তম পিলারের ব্যবসার কথা বলে আমতলী পৌর শহরের সদর রোডের বাসিন্দা মৃত্যু খলিলুর রহমানের স্ত্রী বৃদ্ধা ফরিদা বেগমের কাছ থেকে ১০ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেন। গতকাল রবিবার আবারো দুই লক্ষ টাকা চায় ওই প্রতারক চক্র। এতে ফরিদা বেগম ও তার স্বজনদের সন্দেহ হয়। পরে তারা ওই দুই প্রতারককে আটক করে পুলিশে খবর দেয়। পুলিশ গিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করে থানায় নিয়ে আসে। এ ঘটনায় বৃদ্ধা ফরিদা বেগমের মেয়ে নার্গিস আক্তার বাদী হয়ে আমতলী থানায় প্রতারনা মামলা করেছে। সোমবার পুলিশ তাদের আমতলী সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে সোপর্দ করেছেন। আদালতের বিচারক মোঃ সাকিব হোসেন তাদের জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন।
মামলার বাদী মোঃ নার্গিস বেগম বলেন, পিলারের ব্যবসার কথা বলে আমার বৃদ্ধা মা ফরিদা বেগমকে ভুল বুঝিয়ে তার কাছ থেকে প্রতারক ইউসুফ ও রুস্তম আলী ১০ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেন। তিনি আরো বলেন, গতকাল আবারো দুই লক্ষ মায়ের কাছে টাকা দাবী করে। এ বিষয়টি আমাকে জানায় মা। এতে আমার সন্দেহ হলে লোকজন নিয়ে তাদের আটক করে পুলিশে দিয়েছি।
আমতলী থানার ওসি মোঃ শাহ আলম হাওলাদার বলেন, ভুয়া পিলার ব্যবসায়ী দুই প্রতারককে গ্রেপ্তার করে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email