বরগুনায় ধর্ষণে বাধা দেয়ায় গৃহবধূকে পিটিয়ে জখম

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ১২:২৫ পূর্বাহ্ণ, জানুয়ারি ২৩, ২০১৮ | আপডেট: ১২:২৫:পূর্বাহ্ণ, জানুয়ারি ২৩, ২০১৮

ধর্ষনে বাধা দেয়ার গৃহবধুকে পিটিয়ে জখম করেছে একদল দুর্বৃত্ত। থানায় মামলা না নেয়ায় গৃহবধু সোমবার সকালে বরগুনা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে মামলা করেন। বিচারক মো. জুলফিকার আলী খান মামলাটি গ্রহন করে তদন্তের আদেশ দিয়েছেন। এ ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার রাতে বরগুনা সদর উপজেলার উরবুনিয়া গ্রামে। আসামীরা হল, একই গ্রামের হযরত আলী সিকদারের ছেলে ছায়েদ সিকদার ও তার সহযোগী দুলাল ও হুমায়ূন।

একই গ্রামের ওই গৃহবধু জানান, তার স্বামী জাহিদ হোসেন প্রায়ই নদীতে মাছ ধরতে যায়। এ সুযোগে আসামী ছায়েদ সিকদার তাকে যৌন উত্যক্ত করে আসছে। গৃহবধু তার স্বামীর কাছে জানালে তিনি আসামী ছায়েদ সিকদারকে অপকর্ম থেকে নিভৃত থাকার অনুরোধ করেন। এতে ছায়েদ সিকদার প্রতিশোধ পরায়ন হয়ে ওঠে। শুক্রবার রাতে ওই গৃহবধু তার স্বামীর বসত ঘরে একা নিজ কক্ষে ঘুমাবার প্রস্তুতি নেয়। এমন সময় আসামী ছায়েদ সিকাদর খোলা দরজা দিয়ে তার বসত ঘরে ঢুকে ধর্ষনের চেষ্টা করে।

গৃহবধু ডাক চিৎকার দিলে তার শাশুরী নাসিমা বেগম পাশের কক্ষ থেকে গিয়ে দেখে আসামী ছায়েদ সিকদার গৃহবধুকে ধর্ষনের চেষ্টা চালায়। গৃহবধু ও শাশুরী মিলে ছায়েদকে আটক করে রাখে। এমন সময় অপর দুই আসামী দুলাল ও হুমায়ূন খবর পেয়ে ছায়েদকে ছাড়িয়ে নিতে এলে গৃহবধু ও শাশুরী বাধা দেয়। এক পর্যায়ে আসামীরা গৃহবধুকে কিলঘুষি মেরে আহত করে ছায়েদকে ছাড়িয়ে নেয়।

ওই গৃহবধু বলেন, আমার শাশুরী না এলে আসামী ছায়েদ আমাকে ধর্ষন করিত। পরের দিন বরগুনা থানায় মামলা করতে গেলে থানা কর্তৃপক্ষ আমার মামলা নেয়নি। এ ব্যাপারে বরগুনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মর্কতা মো. মাসুদুজ জামান বলেন, থানায় এ বিষয় কেহ মামলা করতে আসেনি। আসামীদের মুঠো ফোন বন্ধ থাকায় তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।