নদীর পাড় কেটে মাটি বিক্রি, নিরব প্রশাসন

নাজমুল হক নাজমুল হক

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদক

প্রকাশিত: ১:০৭ পূর্বাহ্ণ, এপ্রিল ১৪, ২০২১ | আপডেট: ১:২৩:পূর্বাহ্ণ, এপ্রিল ১৪, ২০২১

মাদারীপুর প্রতিনিধিঃ

কির্তীনাশা নদীর পাড়ের মাটি ভেকু মেশিন দিয়ে কেটে নিচ্ছে প্রভাবশালী একটি চক্র। ট্রলারে করে এসব মাটি চলে যাচ্ছে বিভিন্ন ইটভাটায়। এ ব্যাপারে জেলা প্রশাসনের নেই কোন নজরদারি। স্থানীয়দের দাবী প্রশাসন ব্যবস্থা না নিলে বড় ধরনের বিপদে পড়বে নদীর পাড়ের লোকজন।

অনুসন্ধানে জানা যায়, মাদারীপুর সদর উপজেলার খোয়াজপুর ইউনিয়নের নীলচর এলাকায় দীর্ঘ দিন ধরেই কির্তীনাশা নদীর পাড়ের মাটি কাটা হচ্ছে ভেকু মেশিন দিয়ে। এই চক্রের মূলহোতা ফেরিঘাট এলাকার লোকমান মালত। এছাড়াও তার সাথে রয়েছে স্বপন ও দাদন নামে আরো দুজন।
স্থানীয়দের দাবী, দীর্ঘদিন একই স্থানে মাটি কাটার কারনে নদীর পাড়ে বড় বড় গর্ত তৈরি হয়। আশপাশের ফসলি জমি ভেঙে পড়ে সেই গর্ত আবার ভরে যায়। দীর্ঘ দিন এভাবেই লোকমান মালত তার মাটির ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে। চক্রটি প্রভাবশালী হওয়ায় এলাকার লোকজন তাদের ভয়ে কথা বলে না।
স্থানীয়রা আরো বলেন, এখনি যদি মাটি কাটা বন্ধ না হয় তবে বড় ধরনের নদী ভাঙনের সৃষ্টি হবে। নদীর ওপাড়েই রয়েছে সরকারি বেড়িবাঁধ যা এখন হুমকির মুখে রয়েছে।

এব্যাপারে মাটি ব্যবসায়ী লোকমান মালত বলেন, আমি জমির মালিকের কাছ থেকে জমি কিনে নিয়েছি। নদীর পাড়ের জমির মালিক কে? এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, যার জমির সামনে নদীর পাড় সেই জমি খায়।

জেলা প্রশাসক ড. রহিমা খাতুন বলেন, “সদর উপজেলা কর্মকর্তা কে বিষয়টি জানান “। সদর উপজেলা কর্মকর্তা সাইফুদ্দিন গিয়াস ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিলেও কোন ব্যবস্থা নেননি।

জিএম/এক