ঝালকাঠিতে কিশোরীকে ধর্ষণ, দুই যুবকের আমৃত্যু কারাদÐ

প্রকাশিত: ৬:০৬ অপরাহ্ণ, মার্চ ২৪, ২০২১ | আপডেট: ৬:০৬:অপরাহ্ণ, মার্চ ২৪, ২০২১

ঝালকাঠিতে এক কিশোরী(১৩)কে ধর্ষণের দায়ে দুই যুবককে আমৃত্যু কারাদÐ দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে তাদের ২০ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়। বুধবার দুপুরে ঝালকাঠির নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইব্যুনাল-২ এর বিচারক অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ এস কে এম তোফায়েল হাসান এ রায় ঘোষণা করেন। দÐপ্রাপ্তরা হলেন, শহরের সিটিপার্ক এলাকার মো. রানা খলিফা (২৮) ও মো. নাদিম (৩২)। সাজাপ্রাপ্ত রানা খলিফা ঝালকাঠি শহর ছাত্রলীগের যুগ্মসম্পাদক এবং সিটি পার্ক নতুন চর এলাকার প্রবাসী ইদ্রিস খলিফার ছেলে । অপর জন নাদিম শহরের রিড রোড এলাকার মো. আউয়াল এর ছেলে এবং সে একটি স্ব-মিলের কর্মচারী । রায় ঘোষণার সময় দÐপ্রাপ্তরা আদালতে উপস্থিত ছিলেন। রাষ্ট্র পক্ষের মামলা পরিচালনাকারী অতিরিক্ত সরকারি কৌঁসুলী আ.স.ম মোস্তাফিজুর রহমান মনু এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
মামলার বিবরণে জানা যায়, ২০১৪ সালের ১২ ফেব্রæয়ারি নতুন চর এলাকার ওই কিশোরীকে ঘরে রেখে তাঁর মা বাইরে যান। এ সুযোগে একা পেয়ে ওই কিশোরীকে ওড়না দিয়ে মুখ বেধে রানা ও নাদিম ধর্ষণ করে। রাত ১০টার দিকে তার মা ফিরে এলে ধর্ষণের শিকার ওই কিশোরী তার মাকে এ ঘটনা জানান। প্রথমে পরিবারের সবাই ঘটনাটি চেপে রাখলেও কয়েকমাস পর মেয়েটি অন্তসত্তা হয়ে পড়ে। এ ঘটনায় ৫ মাস পর ২০১৪ সালের ১৮ জুন মেয়েটির মা বাদী হয়ে ঝালকাঠি থানায় দুই যুবককে আসামি করে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে একটি মামলা করেন।
ঝালকাঠি থানার উপপরিদর্শক গৌতম কুমার ঘোষ মামলাটি তদন্ত করে ওই বছরের ১৫ সেপ্টেম্বর আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। চার্জশিট দাখিলের একমাস পরে ধর্ষণের শিকার কিশোরী একটি কন্যা সন্তান জন্ম দেন। বর্তমানে সেই কন্যা সন্তানের বয়স ছয় বছর তিন মাস । মামলাটি বিচারের জন্য নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-২ আদালত ৭ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করে যুক্তিতর্ক গ্রহন শেষে বুধবার এ রায় ঘোষণা করেন। রাষ্ট্রপক্ষে মামলা পরিচালনা করেন অতিরিক্ত সরকারি কৌঁসুলি আ.স.ম মোস্তাফিজুর রহমান মনু ও আসামি পক্ষে ছিলেন মিজানুর রহমান মুবিন।

Print Friendly, PDF & Email