বাকেরগঞ্জে নিরীহ কৃষককে কুপিয়ে হত্যাচেষ্টার ঘটনায় মামলা দায়ের

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ৬:১৯ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০২১ | আপডেট: ৬:১৯:অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০২১

নিজস্ব প্রতিবেদক:
বাকেরগঞ্জের চরামদ্দি ইউনিয়নের কালিদাশিয়া গ্রামে এক কৃষককে মাথা ন্যাড়া করে গরম আলকাতরা মাখানোর পর এবার তাকে এলোপাতারি কুপিয়েছে সন্ত্রাসীরা। এ ঘটনায় বাকেরগঞ্জ থানায় গতকাল একটি হত্যাচেষ্টা মামলা দায়ের করা হয়েছে। যার নং- ১১০৫।

হতভাগা ঐ কৃষকের নাম মোঃ ইউসুফ আলী হাং। তাকে মুমুর্ষ অবস্থায় গত বুধবার (২৪ ফেব্রুয়ারী) রাতে শেবাচিম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তার দুই হাত, কোমর, রান, হাটু ও দুই পায়ে অনেকগুলো কোপের চিহ্ন রয়েছ। অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে চেহারা স্যাতস্যাতে হয়ে তার অবস্থা আশংকাজনক বলে জানিয়েছে শেবাচিমের কর্তব্যরত চিকিৎসক ।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, বুধবার সন্ধ্যার দিকে কালিদাশিয়া বাজারে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে ওৎ পেতে ছিলে সন্ত্রাসী মাসুদ, দেলোয়ার খান, মামুন খান, আছমত খান ও তাদের সাঙ্গপাঙ্গরা। ইউসুফকে পেয়েই রামদা দিয়ে এলোপাতারী কোপানো শুরু করে মাসুদ। তার সাথে থাকা আরো দুজন এতে অংশ নেয়। ইউসুফের ডাকচিৎকারে এলাকাবাসী এগিয়ে এলেও প্রথমে মাসুদের ভয়ে কেউ কাছে যায়নি। পরে ইউসুফকে মৃত ভেবে ফেলে রেখে চলে যায় সন্ত্রাসীরা। এরপর তাকে দ্রুত শেবাচিম হাসাপাতালে এনে ভর্তি করলে সার্জারী ওয়ার্ডে তাৎক্ষনিক ওটি শেষে অর্থপেডিক ওয়ার্ডে স্থানান্তর করা হয়। অবস্থা অবনতি হলে ঢাকা নেয়া লাগতে পারে বলে আভাস দিয়েছে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা। তাছাড়া হামলার পর ইউসুফের সাথে থাকা ১২ হাজার টাকা ও একটি মোবাইল ফোন নিয়ে গেছে বলে জানিয়েছে ভুক্তভোগীর পরিবার।

এর আগে গতবছরের ১৪ জুন ইউসুফকে মাথা ন্যাড়া করে গরম আলকাতরা মেখে দিয়েছিল সন্ত্রাসী মাসুদ বাহিনী। সে ঘটনায় সারাদেশ তোলপাড় হলে ঐ মামলায় গ্রেফতার হয় মাসুদ। জামিনে বেড়িয়ে মামলা তুলে নিতে প্রতিনিয়ত চাপ দিতে থাকে। কিন্তু মামলা না তোলায় প্রতিশোধ নিতে আবারো এই কান্ড ঘটালো মাসুদ বাহিনী।

বাকেরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলাউদ্দিন মিলন বলেন, এ ঘটনায় একটি মামলা দায়ের হয়েছে। সন্ত্রাসী মাসুদ ও তার সাঙ্গপাঙ্গদেরকে ধরতে ইতোমধ্যে অভিযান শুরু করেছি। অপরাধী যেই হোক কোন ছাড় দেওয়া হবেনা।

জানা গেছে, চরামদ্দি ইউনিয়নের কালিদাসিয়া গ্রামের একটি মসজিদের প্রধান দরজা খোলা রাখাকে কেন্দ্র করে গত বছর স্থানীয় প্রভাবশালী হোসেন আলী মাস্টারের সঙ্গে মুসল্লিদের বিরোধ চলছিলো। এই নিয়ে হোসেন আলীর সঙ্গে ভুক্তভোগী ইউসুফ সহ অন্যান্য মুসল্লিদের বাকবিতণ্ডা হয়। এর জের ধরে বৃহস্পতিবার (১৪ জুন’২০২০) মসজিদ সংলগ্ন একটি চায়ের দোকানের সামনে স্থানীয় হাসেম আলী মাস্টারের ছেলে মাসুদ আলী এবং দেলোয়ার হোসেনের নেতৃত্বে ৭ থেকে ৮জন মিলে কৃষক ইউসুফকে মারধর করে। একপর্যায়ে মাথা ন্যাড়া করে ভিকটিমের মাথায় গরম আলকাতরা দেয় তারা।

 

ক্যাপশন: বাকেরগঞ্জের চরামদ্দিতে মাথায় গরম আলকতরা দেবার পর এবার সেই কৃষককে কুপিয়েছে মামলার আসামীরা।