বরগুনায় পৌর নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ, আহত অর্ধশতাধিক

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ১১:১৯ পূর্বাহ্ণ, জানুয়ারি ২৭, ২০২১ | আপডেট: ১১:১৯:পূর্বাহ্ণ, জানুয়ারি ২৭, ২০২১

পৌরসভা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী প্রার্থী ও তার কর্মীদের ওপর হামলার ঘটনায় সংঘর্ষে বরগুনার পাথরঘাটা পৌর এলাকা রণক্ষেত্র পরিণত হয়েছে। এতে পুলিশ ও সাংবাদিকসহ অর্ধশতাধিক আহত হয়েছেন। আহতদের পাথরঘাটা উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সংঘর্ষের সময় সংবাদ সংগ্রহ করায় স্থানীয় এক সাংবাদিকের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা চালিয়ে ক্যামেরা ল্যাপটপসহ দোকানের সকল আসবাবপত্র ভাঙচুর করার অভিযোগ উঠেছে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীর কর্মী ও সমর্থকদের বিরুদ্ধে।

 

প্রতক্ষদর্শীরা জানায়, আজ মঙ্গলবার বিকেল চারটার দিকে পাথরঘাটা পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী প্রার্থী মো. মোস্তাফিজুর রহমান সোহেল গণসংযোগে নামলে তাকে কুপিয়ে জখম করে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীর কর্মী ও সমর্থকরা। এ ঘটনার খবর ছড়িয়ে পড়লে মুস্তাফিজুর রহমান সোহেলের কর্মী ও সমর্থকরা পাথরঘাটা শহরে জড়ো হলে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ বাধে।
আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী প্রার্থী মোস্তাফিজুর রহমান সোহেলের কর্মী ও সমর্থকদের সঙ্গে দফায় দফায় সংঘর্ষে পাথরঘাটা পৌর এলাকার রণক্ষেত্রে পরিণত হয়। এ সময় মুস্তাফিজের সমর্থকরা পুলিশকে উদ্দেশ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করলে পরিস্থিতি শান্ত করতে পুলিশ টিয়ারসেল ও রাবার বুলেট ছোড়ে। এতে পাথরঘাটা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শাহাবুদ্দিনসহ অন্তত অর্ধশতাধিক আহত হন।

 

এ বিষয়ে পাথরঘাটা পৌরসভার বর্তমান মেয়র ও আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী মো. আনোয়ার হোসেন আকনের সাথে যোগাযোগর চেষ্টা করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি।

এ বিষয়ে বরগুনার পুলিশ সুপার জাহাঙ্গির মল্লিক বলেন, সংঘর্ষের ঘটনায় পাথরঘাটার ওসিসহ অন্তত অর্ধশতাধিক আহত হয়েছেন। এ ঘটনায় তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করবে পুলিশ।

তিনি আরও বলেন, পাথরঘাটা পৌর এলাকা এখন পুলিশের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। এই মুহূর্তে পাথরঘাটার পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। আর যাতে এ ধরনের ঘটনা না ঘটে, এজন্য পুলিশ সতর্ক অবস্থানে রয়েছে।’

Print Friendly, PDF & Email