বীরগঞ্জে ১ শিক্ষক মহিলাকে শ্লীলতাহানির অভিযোগে ও ভুয়া তালাকনামা দেখিয়ে সংসার নষ্টের চেষ্টায় আদালতে মামলা

এন.আই.মিলন এন.আই.মিলন

দিনাজপুর প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ৯:৪০ পূর্বাহ্ণ, ডিসেম্বর ৩১, ২০২০ | আপডেট: ৯:৪০:পূর্বাহ্ণ, ডিসেম্বর ৩১, ২০২০

এন.আই.মিলন, দিনাজপুর প্রতিনিধি- দিনাজপুরের বীরগঞ্জের এক শিক্ষক মহিলাকে ধর্ষণের চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে শ্লীলতাহানি ও নিজ স্বামীকে ভুয়া তালাকনামা দেখিয়ে সংসার নষ্ট করার অভিযোগে আদালতে মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলা করায় আসামী কর্তৃক বাদী হুমকির মুখে পালিয়ে বেড়াচ্ছে।

বীরগঞ্জ উপজেলার সাতোর ইউনিয়নের চৌপুকুরিয়া গ্রামের গ্রামতলী এলাকার ভাটু রাম রায়ের স্ত্রী ২ সন্তানের জননী বাসন্তি রানী রায় ৩০ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় সাংবাদিকদেরকে ঘটনা ও মামলার কথা জানিয়ে বলেন, জিন্দাপীর দাখিল মাদ্রাসার শরীরচর্চা শিক্ষক রাম কিশোর রায় এর ধর্ষণের চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে শ্লীলতাহানি ও নিজ স্বামীকে ভুয়া তালাকনামা দেখিয়ে সংসার নষ্ট করার অভিযোগ করে। এসময় তিনি আদালতে মামলা দায়ের করা হয়েছে মর্মেও জানায়। তিনি আরো জানায়, মামলা করার কারনে বাদীকে হুমকি দেওয়ায় মহিলাটি পালিয়ে বেড়াচ্ছে।

জেলা দিনাজপুর নারী শিশু নির্যাতন ট্রাইব্যুনাল আদালতে অভিযোগের প্রেক্ষিতে জানা গেছে, একই এলাকার মৃত মহেশ চন্দ্র রায়ের পুত্র শিক্ষক সুদারু রাম কিশোর রায় দীর্ঘদিন ধরে দুই সন্তানের জননী মহিলাটিকে বিভিন্নভাবে উত্ত্যক্ত করে আসতো।
অভাবের কারণে তার স্বামী ঢাকায় রিস্কা চালাতে যাওয়ার সুযোগে বাড়ীতে একা পেয়ে লম্পট রাম কিশোর রায় এক রাতে বাদীর শোন ঘরে প্রবেশ করে ঘুমন্ত অবস্থায় শরীরের বিভিন্ন জায়গায় হাত দেয় এবং ধর্ষণের চেষ্টা চালায়। তার চিৎকারে এলাকাবাসীরা ছুটে এলে লম্পট শিক্ষক পালিয়ে যায়।

লম্পট শিক্ষক সুদারু রাম কিশোর রায়ের লালসা শিকার ও লাজ লজ্জার ভয়ে মহিলাটি ঢাকায় স্বামীর কাছে চলে যাওয়ার উদ্দেশ্যে বটতলী বাজারে গাড়িতে টিকিট কেটে উঠার সময় লম্পট শিক্ষক রাম কিশোর কাউন্টারে উপস্থিত হয়ে বাদীর পথরোধ করে ও বাজারে লোকজনের সামনে তাকে টেনে হিঁচড়ে শ্লীলতাহানি ঘটিয়ে আজেবাজে ভাষায় গালিগালাজ করে ঢাকা যাওয়ার বাধা দেয়।

এসময় স্বাক্ষী কাউন্টার মাষ্টার হাজী আব্দুল বাসেত, মৃত মতিলাল রায়ের ছেলে স্বাক্ষী জীবন রায় সহ বাজারের লোকজন এগিয়ে এসে রাম কিশোর কে আটক করে বাদী বাসন্তীকে মুক্ত করে দেয়।

বাসন্তী স্বামীর সাথে বসবাস কালে লম্পট রাম কিশোর নিজ স্বামী ভাটুকে স্বাক্ষরবিহীন ভুয়া তালাকনামার এফিডেফিট এলাকাবাসীকে দেখিয়ে বেড়ায়। যা বাসন্তীর স্বামী ভাটু এলাকাবাসী ও আত্মীয়-স্বজনদের কাছে যেনে ও দেখে বাসন্তী কে বাড়ী হতে তাড়িয়ে দেয়।

বাসন্তী মিথ্যা তালাকের অপবাদ, যৌন হয়রানী এবং শ্লীলতাহানির বিচার চেয়ে দ্বারে দ্বারে ঘুরে বিচার না পেয়ে নিজে বাদী হয়ে ০৯/১২/২০২০ তারিখে আদালতে মামলা দায়ের করে। যাহার নং- ৮৭৫/২০। মামলাটি বর্তমানে পিবিআই এর কাছে তদন্তধীন রয়েছে। বাদী বাসন্তি জানায়, যার মিথ্য কথার কারনে আমার সংসার নষ্ট হতে চলেছে তার বিচার না হলে আমার আত্যহত্যা ছাড়া উপায় নেই।

মামলার অভিযোগের সত্যতা জানার লক্ষে জিন্দাপীর দাখিল মাদ্রাসার শরীরচর্চা শিক্ষক রাম কিশোর রায় এর সাথে যোগাযোগ করা হয়ে তাকে পাওয়া যায়নী।