বীরগঞ্জে ধর্ষক আব্দুল খালেক সরকার চেয়ারম্যান কে গ্রেফতার ও বহিস্কারের দাবীতে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন

রংপুর ব্যুরো

প্রকাশিত: ৫:৫৯ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ২৯, ২০২০ | আপডেট: ৫:৫৯:অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ২৯, ২০২০

এন আই মিলন, দিনাজপুর প্রতিনিধি- দিনাজপুর বীরগঞ্জের ৬নং নিজপাড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নারী ধর্ষক আব্দুল খালেক সরকারকে গ্রেফতার ও চেয়ারম্যানের পদ থেকে বহিস্কার ও দৃষ্টান্ত মৃলক শাস্তির দাবিতে উত্তাল বীরগঞ্জ শহর। গ্রেফতারের দাবিতে ৪৮ ঘন্টা আল্টিমেটাম দেয় সম্মিলিত নাগরিক কমিটির, অন্যথায় বৃহত্তর আন্দোলনের হুমকি।

মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১১ টার দিকে সম্মিলিত নাগরিক কমিটির আয়োজনে বীরগঞ্জ পৌর শহরের বিজয় চত্বর সম্মুখ সড়কে ঘন্টা ব্যাপি বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন করেন। এই মানববন্ধনে দুই শতাধিক নারী পুরুষ বিক্ষোভ ও মানববন্ধন কর্মসুচিতে অংশ গ্রহন করেন।

বীরগঞ্জ উপজেলা সম্মিলিত নাগরিক কমিটির আহবায়ক আসলামের সভাপতিত্বে ও সদস্য সচিব শাহিনুর ইসলামের সঞ্চালনায় এই বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন রাখেন স্থানীয় সচেতন ব্যাক্তিরা। এতে করে দশমাইল ঠাকুরগাও মহাসড়ক যানজটে পড়ে থাকে।

এসময় বক্তব্য রাখেন নুরিয়াস সাঈদ সরকার, প্রভাষক রফিকুল ইসলাম, রহমত আলী, রতন ঘোস পিযুস, আবেদ আলী, লাইসুর রহমান লাবু, আব্দুল জব্বার প্রমুখ।

সভা শেষে উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুল কাদেরের মাধ্যমে চেয়ারম্যানের পদ থেকে বহিস্কারের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বরাবরে একটি স্বারকলীপি প্রদান করেন।

উল্লেক্ষ, গত ২২ ডিসেম্বর উপজেলার বলরামপুর গ্রামের বাসিন্দা প্রবাসী বাংলাদেশী এক মহিলাকে নিজপাড়া ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আব্দুল খালেক সরকার তার নিজের ইট ভাটার অদূরে আব্দুর রশিদের শয়ন ঘরের জোর পুর্বক ধর্ষন করে। পরে ধর্ষিতা প্রবাসি নারী নিজেই ধর্ষনের ঘটনাটি কৌশলে ঐ মহিলা নিজেই ভিডিও ধারন করে।

ঐ নারী দাবি করেন বলেন, বিয়ে করার প্রলোভন দিয়ে বেশ কয়েক বছর ধরে তাকে চেয়ারম্যান আব্দুল খালেক ঐ প্রবাসি নারী সাথে ভালবাসার চালনা করে চুটিয়ে প্রেম ভালবাসায় ইমো, হটস্ অ্যাপ ও ভিডিও সেক্স করার প্রমান আছে। প্রবাসে থাকা অবস্থায় মহিলার সাথে ভিডিও সেক্স করার অনেক প্রমান রয়েছে।

বীরগঞ্জ থানার ওসি আব্দুল মতিন প্রধান বলেন, ধর্ষক চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে থানায় পন্যগ্রাফি আইনে ও নারী নির্যাতন আইনের মামলা দায়ের হয়েছে। পুলিশ বিভিন্ন স্থানে ধর্ষক চেয়ারম্যানকে আটকের জন্য অভিযান পরিচালনা অব্যাহত রয়েছে। ভিকটিম নিজে বাদী হয়ে বীরগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন যাহার মামলা নং – ১৬ তাং ২৩ /১২/২০২০ ইং। ধারা ২০০০ সালের নারী ও শিশু নির্যাতন আইনের।