কলাপাড়ায় কৃষক সমিতির উদ্যোগে দ্বিতীয় দফায় নীলগঞ্জের পাখিমারা বাজারে কৃষক সমাবেশ অনুষ্ঠিত ॥

প্রকাশিত: ৬:৫৭ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২৩, ২০২০ | আপডেট: ৭:০১:অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২৩, ২০২০

রাসেল কবির মুরাদ , কলাপাড়া(পটুয়াখালী)প্রতিনিধি  ঃ   কলাপাড়ায় কৃষকদের
উৎপাদিত কৃষিপন্যের ন্যায্য মূল্য, প্রতিটি ইউনিয়নে ক্রয় কেন্দ্র স্থাপন
করে কৃষকের কাছ থেকে সরাসরি ধান, চাল ক্রয়, স্লুইস গেট ব্যাবস্থাপনায়
কৃষকের স্বার্থ সংরক্ষন করা, পুরনো পদ্ধতির দাড়িপাল্লাা এবং ৪৬-৪৮ কেজীতে
মন বন্দের দাবিতে দ্বিতীয় দফায় কৃষক সমাবেশ করেছে বাংলাদেশ কৃষক সমিতি
নীলগঞ্জ ইউনিয়ন শাখা। সোমবার নীলগঞ্জ ইউনিয়নের পাখিমারা বাজারে এই সমাবেশ
অনুষ্ঠিত হয়।

সমাবেশে কৃষক ,শ্রমিকসহ শতশত মানুষের স্বতস্ফূর্ত উপস্থিতি ঘটে। প্রায়
দুই ঘন্টা ব্যাপী এই সমাবেশে বাংলাদেশ কৃষক সমিতি নীলগঞ্জ ইউনিয়ন শাখার
আহবায়ক জিএম মাহবুবুর রহমান এর সভাপতিত্বে সমাজ কর্মী নয়নাভিরাম গাইন
(নয়ন)-এর সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন কৃষক মো: আ: খালেক গাজী, কৃষক আ: হক
গাজী আহবায়ক কমিটির সদস্য কৃষক সমিতি নীলগঞ্জ ইউনিয়ন, সহকারী শিক্ষক
আতাজুল ইসলাম ফরিদগঞ্জ মাধ্যমিক বিদ্যালয়,সহ সভাপতি মো: হেমায়েত উদ্দিন
লিটন মানিক মালা খেলাঘর আসর, আহবায়ক প্রভাষক রফিকুল ইসলাম বাংলাদেশ কৃষক
সমিতি কলাপাড়া উপজেলা শাখা সম্পাদক, মো: নাসির তালুকদার বাংলাদেশ
কমিউনিস্ট পার্টি ও আহবায়ক নাগরিক উদ্যোগ কলাপাড়া উপজেলা শাখা।

সমাবেশে বক্তারা সরাসরি কৃষকের কাছ থেকে ফসল ক্রয়, ন্যায্যমূল্যে সময় মতো
সারবীজ, কিটনাষক এবং সুবিধা ভোগী দালালের দৌরাত্ব, পানি নিষ্কাশনের
স্লুইসগেট সংস্কার করে কৃষকের তত্ত্বাবধানে রাখা সহ নানামুখী দাবি তুলে
ধরেন। এসময় বক্তারা আরও বলেন, বাংলাদেশে সহ সারা বিশ্বে আন্তর্জাতিক
পরিমাপ পদ্ধতি ৪০ কেজিতে ১ মন। আলু-পটল হতে শুরু করে সমস্ত পন্য ৪০
কেজিতে ১ মন হলেও ধান ক্রয়ের ক্ষেত্রে ৪৬-৪৮ কেজিতে ১ মন। এসমস্ত
প্রতারনা থেকে কৃষককে বাঁচাতে এবং পুরনো পদ্ধতির হাত মাপা দাড়িপাল্লা
দিয়ে ধান মাপা বন্দ করতে মোবাইল কোর্ট  পরিচালনা করার জন্য প্রশাসনিক
কর্মকর্তাদের এগিয়ে এসে দ্বায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করার দাবি জানানো হয়।

Print Friendly, PDF & Email