গুগল র‌্যাংকিংয়েও বিশ্বসেরা হযরত মুহাম্মাদ (সা.)

প্রকাশিত: ৩:৩২ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ১২, ২০২০ | আপডেট: ৩:৩২:পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ১২, ২০২০

সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ ম’হামানব হযরত মুহাম্মদ (সা.)। তিনি নবীদের সর্দার। কিয়ামত প’র্যন্ত আগত সব মানুষ ও জিনের জন্য নবী। তিনি শেষ নবী। তাঁর প’রে আর কোনো

নবী আস’বেন না। তাঁর সম্মান ও মর্যাদার সা’ক্ষ্য পবিত্র কোরআনসহ সব আস’মানী গ্রন্থে রয়েছে। আল্লা’হ তাআলা তাঁকে সৃষ্টিজ’গতের জন্য কল্যাণস্বরূপ প্রে’রণ করেছেন।

এদিকে, পৃথিবীর স’বচেয়ে বেশি ব্যবহৃত সার্চ ইঞ্জিন গুগ’লের র‌্যাংকিংয়েও বিশ্বের সেরা মহা’মানব হিসেবে স্থান পেয়েছেন তিনি। গুগলে ‘who is the best man in the world- হু ইজ দ্য বেস্ট ম্যা’ন ইন দ্য ওয়ার্ল্ড’ লিখে সার্চ করলে’ই যে তালিকা চলে আসে তার মধ্যে প্রথমেই দেখায় হযরত মুহাম্মদ (সা.)-এর নাম। এটাই বাস্তব। যে কেউ চাইলে গু’গলে ‘who is the best man in the world- হু ইজ দ্য বেস্ট ম্যান ইন দ্য ওয়া’র্ল্ড’ লিখে চেক করে দেখতে পারেন। ন্যয়, ইন’সাফ ও শান্তির

বার্তাবাহক হযরত মুহাম্মদ (সা.)। প্রিয় ন’বী মুহাম্মদ (সা.)-কে সর্বশ্রেষ্ঠ নি’র্বাচন করে শান্তির এ বার্তাই পৌঁছে দি’চ্ছে গুগল। গুগলের এ তথ্য এখন সামা’জিক যোগাযোগ মাধ্য’মে এভাবে ‘ভাইরাল যে- Best Man In The World ’Prophet Muhammad’.

অর্থাৎ নবী মুহাম্মদ (সা.) বি’শ্বের সেরা মহামানব। সবচেয়ে আ’য়ে বেশি বিখ্যাত ও জনপ্রিয়। ১৯৭৮ সা’লে মাইকেল এইচ হার্ট লিখিত ‘দ্য ১০০’ বইয়ের সর্ব প্রথম ও সেরা ব্য’ক্তিত্ব হিসেবে স্থান করে নিয়েছেন বি’শ্বনবী মুহাম্মদ (সা.)।

পরবর্তীতে এ গবেষক ১৯৯২ সা’লের বইটির পুনঃমুদ্রণ করেন, সেখানেও বিশ্বনবী মুহাম্মদ (সা.) নাম ও মর্যা’দা অব্যাহত থাকে। মানব ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি প্রভা’বিত হয়। উল্লেখ্য, মুহাম্মাদ (সা.) ইসলাম ধ’র্মের প্রবর্তক। তিনি ছিলেন পৃথি’বীর ইতিহাসে অন্যতম প্রভাবশালী রাজনৈতিক, সা’মাজিক ও ধর্মীয় নেতা। তার এই বিশে’ষত্বের অন্যতম কারণ হচ্ছে আধ্যা’ত্মিক ও জাগতিক উভয় জগতেই চূড়ান্ত সফলতা অ’র্জন। তিনি ধর্মীয় জীবনে যেম’ন সফল তেমনই রাজনৈতিক জীবনেও।

সমগ্র আরব বি’র জাগরণের পথিকৃৎ হিসেবে তিনি অগ্রগণ্য; বিবাদমান আরব জন’তাকে একীভূতকরণ তার জীব’নের অন্যতম সফলতা। মৃত্যু’র পূর্ব পর্যন্ত মুহাম্মাদ (সা.) এর নিকট আ’সা ওহীসমূহের একত্রিত রুপ প’বিত্র কুরআন। পাশাপাশি হাদিস ও সিরাত (জীবনী) থেকে প্রাপ্ত তাঁ শিক্ষা ও অনুশীলন (সুন্নাহ) ইসলামী আইন (শরিয়াহ) হি’সেবে বিবেচনা করা হয়।

Print Friendly, PDF & Email