যৌতুকের দাবিতে মারপিটের পর স্ত্রীর চুল কাটলেন স্বামী

প্রকাশিত: ৬:২১ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ৭, ২০২০ | আপডেট: ৬:২১:অপরাহ্ণ, নভেম্বর ৭, ২০২০

ঝালকাঠির রাজাপুর উ’পজেলায় যৌতুক না পেয়ে স্ত্রীর চুল কেটে দে’য়ার অভিযোগে করা হওয়া মাম’লায় ওই নারীর স্বামীকে গ্রেফ’তার করেছে পুলিশ।

শনিবার (৭ নভেম্বর) রাজা’পুর থানা অফিসার  ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. শ’হিদুল ইসলাম সাংবাদিকদের ব’লেন, মামলার প্রধান আসামিকে গ্রেফ’তার করে ঝালকাঠি আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। অ’পর আসামি গৃহবধূর শ্বশুরকেও গ্রে’ফতার চেষ্টা চলছে।

মো. আবু সা’ইদ ওরফে হাসান (২১) একই উপ’জেলার আঙ্গারিয়া গ্রামের মো. ইদ্রিস আলী হাও’লাদারের ছেলে।

মামলা সূত্রে জানা গে’ছে, এক বছর আগে প্রেমের স’ম্পর্কের সূত্রে একই উপজেলার আ’রুয়া সোনারগাঁও গ্রামের চাঁ’ন মিয়ার মেয়ে নাদিরা আক্তারের সঙ্গে দ’ক্ষিণ আঙ্গারিয়া গ্রামের মো. ই’দ্রিস আলী হাওলাদারের ছে’লে হাসানের বিয়ে হয়। বি’য়ের পর থেকেই হা’সান বিদেশ যাওয়ার জন্য না’দিরার পরিবারের কাছে পাঁ’চ লাখ টাকা যৌতুক দা’বি করে আসছিল।

ঘটনার দিন শু’ক্রবার দুপুরে আবারও নাদিরার কা’ছে যৌতুকের টাকা দাবি ক’রে তার স্বামী। না’দিরা টাকা দিতে অ’স্বীকার করায় তার হাত-পা বেঁ’ধে এলোপাতাড়িভাবে মারধর করে। পরে মাথার চু’ল কেটে দেয় হাসান। খবর পে’য়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গি’য়ে ওই গৃ’হবধূকে উদ্ধার করে। এ’সময় তার মাথার কাটা চুলও জব্দ করে পু’লিশ।

এ ঘ’টনায় গৃহবধূর বাবা মো. চান মিয়া বাদী হ’য়ে তার মেয়ের স্বামী ও শ্বশুরকে আসা’মি করে রাজাপুর থানায় মাম’লা দায়ের করেন (মামলা নম্বর ০৭)। পু’লিশ রাতেই মামলার প্র’ধান আসামি গৃহবধূর স্বা’মী মো. আবু সাইদ ওরফে হাসানকে গ্রে’ফতার ক’রেছে।

Print Friendly, PDF & Email