ধ্বংসস্তূপে ১৮ ঘণ্টা আটকা ছিলেন মা ও ৩ শিশু

প্রকাশিত: ৩:১৩ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ১, ২০২০ | আপডেট: ৩:১৩:পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ১, ২০২০

গ্রিস ও আ’নাতোলিয়া উপদ্বীপ সংলগ্ন এজিয়ান সাগরে সৃষ্ট শক্তি’শালী ভূমিকম্প তুরস্কের ইজমির শ’হর ও প্রতিবেশী গ্রিসের সামোস দ্বীপে আঘাত হানে। শুক্রবার (৩০ অক্টোবর) বি’কেলে আঘাত হানা এ ভূমিকম্পে এখ’নো পর্যন্ত তুরস্কে ২৬ জন ও গ্রি’সের এক দ্বীপে দু’জনের মৃত্যুর খবর পাও’য়া গেছে।

তবে আশার খ’বর হচ্ছে, তুরস্কে ভূমিকম্পের ফলে ভেঙে যা’ওয়া এক বিল্ডিংয়ে’র নিচে ১৮ ঘণ্টা আটকা থাকার পর শনিবার (৩১ অক্টোবর) মাসহ তিন শি’শুকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে। খব’র রয়’টার্সের।

খবরে বলা হয়ে’ছে, ভূমি’কম্পে ভবন ধসে পড়ার পর ধ্বংস’স্তূপের নিচে ১৮ ঘণ্টা আটকা প’ড়েছিলেন মা ও তার তিন শিশু। তাদের জীবিত উদ্ধার ক’রা হয়েছে। আরো এক শিশুকে উ’দ্ধারে চেষ্টা চালাচ্ছেন উ’দ্ধারকর্মীরা। শুক্র’বারের ওই ভূমিকম্পে এ পর্যন্ত কমপক্ষে ২৮ জ’নের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে।

ভয়াবহ এই ভূমিক’ম্পের ঘটনায় অন্তত চার শতাধিক মা’নুষ আহত হয়েছেন বলে জানি’য়েছেন আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম আল জাজিরা। অন্তত ২০টি ভবন ‘ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়েছে। এখ’নো’ একশ ৮০ জন মানুষ ধ্বংস’স্তূপের নিচে আ’টকা পড়ে আছেন। ৭ মা’ত্রার এই ভূমিকম্পের কেন্দ্রস্থল তুরস্কের ই’জমির প্রদেশেই সবচেয়ে বেশি ক্ষতি হয়ে’ছে।