দৃশ্যমান হলো পদ্মাসেতুর ৫২৫০ মিটার

প্রকাশিত: ৬:১৩ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ৩১, ২০২০ | আপডেট: ৬:১৩:অপরাহ্ণ, অক্টোবর ৩১, ২০২০

শনিবার (৩১ অক্টোবর) মাঝ’নদীতে ৮ ও ৯ নম্বর পিলারের উপর ৩৫ত’ম স্প্যান যোগ করার মধ্য দিয়ে দৃশ্যমান হলো ৫ হাজার ২৫০মিটার পদ্মা সেতু। সেতুর বাকি থাকলো আর ১ কিলোমিটারেরও ক’ম। সব পিলার ও স্প্যান প্রস্তুত থাকায় এখন দ্রুততম স’ময়ের মধ্যে স্প্যান যোগ করা সম্ভব হচ্ছে বলে জানান প্র’কল্প পরিচালক। ডিসেম্বরের মধ্যে ৬ দশমিক এক পাঁচ কিলো’মিটারের পুরো সেতু দাঁড়ানোর আশা।

স্প্যান ওঠার দি’নগুলোতে মোহাম্মদ জাকিরের মতো অনেকে প’দ্মার পাড়ে ভিড় করেন, সকাল থেকে অপেক্ষা করেন। কারণ এ সেতুর পিছনে তার বসতবাড়ি গে’ছে, এ নদীতে তিনি মাছ ধরে জীবি’কা নির্বাহ করেন। তাই পদ্মা সে’তুটা তার কাছে অনেক কিছু।

যে স্প্যান ওঠা দেখতে তার আসা, মাওয়ার ই’য়ার্ড থেকে শনিবার সকাল সাড়ে ৯ টা’য় সেটি নিয়ে রওয়ানা দেয় ভাস’মান ক্রেন। নদীতে হঠাৎ পানির ‘উচ্চতা কমে যাওয়ায় আ’গের দিন শুক্রবারে বসা’নোর পরিকল্পনা থা’কলেও সম্ভব হয় নি। তবে যে প’থ দিয়ে ক্রে’নটি মাঝনদীতে নিয়ে যা’ওয়া হবে, সে পথে ড্রেজিং করে বা’লি সরিয়ে রাখায় দ্রুত’গতিতেই এগিয়ে যায় গন্ত’ব্যের দিকে।

ঘ’ণ্টাখানেকের মধ্যে পিলারের কাছ নি’য়ে যাওয়া গেলেও আ’বারও বাধ সাধে পিলারের গো’ড়ায় জমে থাকা পলি। আরও ৪ ঘণ্টা পর ক্রেনটি নোঙ্গর করা শেষে সা’মনের দিকে এগিয়ে এনে ব’সিয়ে দেয়া হয় ৮ ও ৯ নম্বর পি’লারের উপর। সর্বনিম্ন ৬ দিনে আগের স্প্যা’নটি বসানোর পর এ’টিও বসলো একই সময়ে।

মাওয়া প্রা’ন্তে এখন দৃশ্যমান ‘প্রায় ১ কিলো’মিটার সেতু। আর ৪ টি স্প্যা’ন বসানো হলে মা’ওয়া প্রান্তের সাথে সং’যোগ ঘটবে জাজিরা প্রা’ন্তের।