বাবুগঞ্জে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় আহতদের দেখতে গেলেন উপজেলা চেয়ারম্যান

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ১১:৩২ পূর্বাহ্ণ, জানুয়ারি ১৪, ২০১৮ | আপডেট: ১১:৩২:পূর্বাহ্ণ, জানুয়ারি ১৪, ২০১৮
বাবুগঞ্জে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় আহতদের দেখতে গেলেন উপজেলা চেয়ারম্যান

কাওসার মাহমুদ মুন্না || গতকাল শনিবার বিকাল সাড়ে তিনটার সময় ঢাকা বরিশাল হমাসড়কে বরিশাল বিমান বন্দর মন্টুর হোটেল সংলগ্ন মোড়ে টলি ভ্যান (থ্রি হুইলার) ও মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এ সময় মোটরসাইকেল আরোহী বাবুগঞ্জ উপজেলা যুবলীগ নেতা ও সাবেক দারিকা ওয়ার্ড জনপ্রতিনিধি মো. জাহিদুল ইসলাম নয়ন (৩৫) ও বাবুগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা প্রসেনজিৎ দাস অপু (২৮) নামের দুই যুবক গুরুতর আহত হয়।
জানা গেছে, জাহিদুল ইসলাম নয়ন রহমপুর স্টান্ড থেকে মোটরসাইকেল করে প্রসেনজিৎ দাস অপুকে নিয়ে দারিকা বাসায় যাচ্ছিলেন। কিন্তু বরিশাল বিমান বন্দরের সামনে একটি তিন চাকার টলি ভ্যান গাড়ি সজোরে ধাক্কা মারলে ছিটকে পড়ে যান তারা । সে সময় পথচারী ও যুবলীগ নেতা রানা তাদের উদ্ধার করে মুমূর্ষু অবস্থায় বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে । তারা এখন বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালের ৩য় তলায় পরুষ অর্থপেডিক্স-১ এর ৩৫ নং বেডে চিকিৎসাধীন আছেন।
গতকাল রাতে তাদের দুর্ঘটনার কথা শুনে দেখতে যান বাবুগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগ এর সাধারণ সম্পাদক এস এম খালেদ হোসেন স্বপন । তিনি মহান আল্লাহ্‌তালার কাছে তাদের শারীরিক সুস্থতার জন্য প্রর্থনা করেন ও সার্বিক খোজ খবর নেন। সেসময় আরো অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামীলীগ এর শ্রম বিষয়ক সম্পাদক জাহাঙ্গীর হোসেন আকন, যুবলীগ নেতা আজাদ হোসেন মিন্টু, মাহমুদ, স্বেচ্ছা সেবকলীগ নেতা কামাল হোসেন, ছাত্রলীগ নেতা কাজী ইয়াসিন আরাফাত সোহেল ও কাওসার মাহমুদ মুন্নাসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ। ঐ ওয়ার্ড এর কর্মরত চিকিৎসক জানায়, নয়নের মাথা ও বুকে আগাত লেগেছে এবং অপুর হাতে ইঞ্জুরি হয়েছে পুরপুরি সেরে উঠতে বেশ কিছুদিন সময় লাগবে ।