Dhaka ০২:১২ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ৪ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মাদারীপুরে টেন্ডার জমাদানে বাধা, ঠিকাদারদের ক্ষোভ

  • Reporter Name
  • Update Time : ০১:৪৩:৩১ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৩ মার্চ ২০২৪
  • ২৯৫ Time View

মাদারীপুর প্রতিনিধিঃ

মাদারীপুরে মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য ঘর নির্মাণ কাজের টেন্ডার জমাদানে বাধা প্রদানের অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগ উঠেছে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সামনেই এই ঘটনা ঘটলে তিনি কার্যকর কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি।সংশ্লিষ্ঠ একাধিক সূত্রে জানা গেছে, মাদারীপুর সদর উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় অস্বচ্ছ মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য সদর উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে বীর নিবাস নির্মাণ প্রকল্পের দরপত্র আহবান করে। দরপত্র আহবানের জন্য মাদারীপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে আহবায়ক এবং উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্রকর্তাকে সদস্য সচিব করে ৫ সদস্যে কমিটি করা হয়। এই প্রকল্পের আওতায় ৩৫টি ঘর নির্মানে ৫টি গ্রæপে দরপত্র আহবান করা হয়। এসময় ৫০৫টি সিডিউল বিক্রি করা হয়। সোমবার বিকাল ৪টা পর্যন্ত ছিলো টেন্ডার জমাদানের শেষ সময়। জমাদানের শেষ দিনে টেন্ডার জমা দিতে এসে অনেকেই বাধার মুখে পড়েন। নির্ধারিত ঠিকাদার ছাড়া অন্য কেউ টেন্ডার জমা দিতে পারেনি। ৫০৫টি সিডিউল বিক্রি হলেও মাত্র ২২টি সিডিউল জমা দিয়েছে। অভিযোগ রয়েছে এই ২২টি সিডিউল প্রভাবশালীদের নির্ধারিত। এরাই ক্ষমতাশীন দলের বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠনের কর্মীদের দিয়ে টেন্ডার জমাদানে বাধা দিয়েছে।
সদর উপজেলার মস্তফাপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও ঠিকাদার সোহরাব খান বলেন, টেন্ডার জমা দিতে এসে জমা দিতে পারি নাই। কিছু লোক টেন্ডার জমা দিতে দেয়নি। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ঠিকাদার বলেন, টেন্ডার জমা দানে বাধাঁ প্রদান করা হয়েছে। এই ঘটনা ঘটেছে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে বসেই। অফিসের সিসি ফুটেজ চেক করলেও দেখা যাবে। অথচ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কোন ভূমিকাই পালন করেননি। বিষয়টি খুবই দুঃখজনক।
মাদারীপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও টেন্ডার কমিটির আহবায়ক মো.আল মামুন বলেন,এব্যাপারে আমাদের কাছে কেউ সুনির্দিষ্টভাবে অভিযোগ করেনি। বিচ্ছিন্নভাবে কেউ কেউ বলেছে। ঢালাওভাবে যদি অভিযোগ আসে তাহলে টেন্ডার কমিটি টেন্ডার বাতিলসহ যেকোন ধরনের পদক্ষেপ নিতে পারে।

১২.০৩.২০২৪

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

About Author Information

Nazmul Haque

মাদারীপুরের শিবচরে বজ্রপাতে ২ জনের মৃত্যু

মাদারীপুরে টেন্ডার জমাদানে বাধা, ঠিকাদারদের ক্ষোভ

Update Time : ০১:৪৩:৩১ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৩ মার্চ ২০২৪

মাদারীপুর প্রতিনিধিঃ

মাদারীপুরে মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য ঘর নির্মাণ কাজের টেন্ডার জমাদানে বাধা প্রদানের অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগ উঠেছে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সামনেই এই ঘটনা ঘটলে তিনি কার্যকর কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি।সংশ্লিষ্ঠ একাধিক সূত্রে জানা গেছে, মাদারীপুর সদর উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় অস্বচ্ছ মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য সদর উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে বীর নিবাস নির্মাণ প্রকল্পের দরপত্র আহবান করে। দরপত্র আহবানের জন্য মাদারীপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে আহবায়ক এবং উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্রকর্তাকে সদস্য সচিব করে ৫ সদস্যে কমিটি করা হয়। এই প্রকল্পের আওতায় ৩৫টি ঘর নির্মানে ৫টি গ্রæপে দরপত্র আহবান করা হয়। এসময় ৫০৫টি সিডিউল বিক্রি করা হয়। সোমবার বিকাল ৪টা পর্যন্ত ছিলো টেন্ডার জমাদানের শেষ সময়। জমাদানের শেষ দিনে টেন্ডার জমা দিতে এসে অনেকেই বাধার মুখে পড়েন। নির্ধারিত ঠিকাদার ছাড়া অন্য কেউ টেন্ডার জমা দিতে পারেনি। ৫০৫টি সিডিউল বিক্রি হলেও মাত্র ২২টি সিডিউল জমা দিয়েছে। অভিযোগ রয়েছে এই ২২টি সিডিউল প্রভাবশালীদের নির্ধারিত। এরাই ক্ষমতাশীন দলের বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠনের কর্মীদের দিয়ে টেন্ডার জমাদানে বাধা দিয়েছে।
সদর উপজেলার মস্তফাপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও ঠিকাদার সোহরাব খান বলেন, টেন্ডার জমা দিতে এসে জমা দিতে পারি নাই। কিছু লোক টেন্ডার জমা দিতে দেয়নি। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ঠিকাদার বলেন, টেন্ডার জমা দানে বাধাঁ প্রদান করা হয়েছে। এই ঘটনা ঘটেছে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে বসেই। অফিসের সিসি ফুটেজ চেক করলেও দেখা যাবে। অথচ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কোন ভূমিকাই পালন করেননি। বিষয়টি খুবই দুঃখজনক।
মাদারীপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও টেন্ডার কমিটির আহবায়ক মো.আল মামুন বলেন,এব্যাপারে আমাদের কাছে কেউ সুনির্দিষ্টভাবে অভিযোগ করেনি। বিচ্ছিন্নভাবে কেউ কেউ বলেছে। ঢালাওভাবে যদি অভিযোগ আসে তাহলে টেন্ডার কমিটি টেন্ডার বাতিলসহ যেকোন ধরনের পদক্ষেপ নিতে পারে।

১২.০৩.২০২৪