কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় স্ত্রীর মাথা ন্যাড়া করলেন স্বামী

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ৫:৩৩ অপরাহ্ণ, মে ২৭, ২০২০ | আপডেট: ৫:৩৩:অপরাহ্ণ, মে ২৭, ২০২০

নওগাঁর সাপাহারে অসামাজিক কাজে রাজী না হওয়ায় স্বামী ও শাশুড়ির বি’রুদ্ধে মা’থার চুল কে’টে নি’র্যাতনের অ’ভিযোগ তুলেছেন এক নারী।মঙ্গলবার দুপুরে (২৬ মে) নি’র্যাতনের শিকার ওই গৃহবধূকে উ’দ্ধার করে সাপাহার উপজে’লা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনার পর থেকে স্বামী রফিকুল ইস’লাম এবং শাশুড়ি রাজিয়া বিবি পলাতক রয়েছেন। গত ২৩ মে উপজে’লার হাঁপানিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

ভুক্তভোগী ওই গৃহবধূ জানান, দেড় বছর আগে উপজে’লার হাঁপানিয়া গ্রামের হোসেন আলীর ছে’লে রফিকুল ইস’লামের সঙ্গে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জে’লার শি’বগঞ্জ উপজে’লার চাঁনপুর সাহেব গ্রামের ওই নারীর (৩৩) বিয়ে হয়। বিয়ের পর দু-তিন মাস ভালোই কে’টেছে তাদের দাম্পত্ত জীবন। এরপর থেকেই তাদের সংসারে কলহ শুরু হয়। স্বামী রফিকুল ও শাশুড়ি রাজিয়ার দ্বারা মানসিক ও শারীরিক নি’র্যাতনের শিকার হন গৃহবধূ।

গত ২৩ মে স্বামী রফিকুল তাকে দিয়ে অসামাজিক কাজ করিয়ে অর্থ উপার্জনের জন্য চাপ দেন। কিন্তু তিনি রাজি না হওয়ায় অমানসিক নি’র্যাতন নেমে আসে তার ওপর। প্রথমে তার মা’থার চুল কে’টে দেন স্বামী। এরপর শাশুড়ি রাজিয়া বিবি তার গো’পনাঙ্গে ম’রিচের গুড়া ছিটিয়ে দেন। এতে যন্ত্র’ণায় চি’ৎকার করলে রফিকুল তার মুখে কাপড় গুঁজে দেন। এরপর দুইদিন তাকে বাড়ি থেকে বের হতে দেয়া হয়নি। ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে বিভিন্নভাবে ভ’য়ভীতি ও হু’মকি দেয়া হয়।

সোমবার (২৫ মে) বিকেলে ওই গৃহবধূ সুযোগ বুঝে বাড়ি থেকে পালিয়ে যাওয়ার পর বিষয়টি প্রকাশ পায়। এরপর থেকেই গৃহবধূর স্বামী ও শাশুড়ি পালাতক রয়েছেন।মঙ্গলবার (২৬ মে) দুপুরে গৃহবধূর অবস্থা দেখে তাকে সাপাহার উপজে’লা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন স্থানীয় গণ্যমান্যরা। বিকেলে পু’লিশ ঘটনাস্থলে গেলে রফিকুল ইস’লাম ও তার মা রাজিয়া বিবিকে না পেয়ে ফিরে আসে।

সাপাহার থা’নার ভা’রপ্রাপ্ত কর্মক’র্তা (ওসি) আব্দুল হাই বলেন, নির্যাতিতা ওই গৃহবধূ হাসপাতা’লে ভর্তি রয়েছেন। বর্তমানে তার কোনো অ’ভিভাবক না থাকায় থা’নায় মা’মলা দায়ের হয়নি। তবে গৃহবধূর বাবা গ্রাম থেকে এসে থা’নায় মা’মলা দায়ের করবেন বলে জানা গেছে।

Print Friendly, PDF & Email