‘নোভেল করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়’ বিষয়ে বরিশালে সভা

এম. আর. প্রিন্স এম. আর. প্রিন্স

সিনিয়র সাংবাদিক ও মানবাধিকার কর্মী

প্রকাশিত: ১১:১৭ পূর্বাহ্ণ, মার্চ ১০, ২০২০ | আপডেট: ১১:১৮:পূর্বাহ্ণ, মার্চ ১০, ২০২০

এম.আর.প্রিন্স ঃ বরিশাল জেলা প্রশাসন সম্মেলন কক্ষে নোবেল করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয় বিষয়ে সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। জেলা প্রশাসক এস এম অজিয়র রহমানের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, বরিশাল সিভিল সার্জন ডাঃ মনোয়ার হোসেন, বরিশাল মেট্রোপলিটন প্রেসক্লাবের সভাপতি কাজী আবুল কালাম আজাদ, সহ-সভাপতি এম.আর.প্রিন্স, শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সহকারী পরিচালক ডাঃ এ কে এম নাজমুল হাসান, উপ-পরিচালক তথ্য আমিরুল আজম, স্বাস্থ্য বিভাগ, সিটি কর্পোরেশন সহ বিভিন্ন দপ্তরের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা এবং সুশীল সমাজের নেতৃবৃন্দ।

সচেতনতা মূলক বক্তব্যে জেলা প্রশাসক বলেন, ” করোনা একধরনের সংক্রামক ভাইরাস। তাই আক্রান্ত ব্যক্তি থেকে দূরে থাকতে হবে। লোক সমাগম এড়িয়ে চলতে হবে। ইতিমধ্যেই ১০৯টি দেশ আক্রান্ত হয়েছে।

এখন পর্যন্ত বরিশাল অঞ্চল নিরাপদ রয়েছে। তবুও সর্বক্ষেত্রে আক্রান্তদের সু রক্ষায় আগাম প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে।” সিভিল সার্জন বলেন, “করোনা ভাইরাস এমন একটি ভাইরাস -যা পূর্বে বিজ্ঞানীদের অজানা ছিল। এরই মধ্যেই চীনে অনেক মানুষের ফুসফুসের মারাত্মক রোগ সৃষ্টি করেছে এবং বিশ্বের নানা দেশে এটি ছড়িয়ে পড়ছে। মৃত্যু হচ্ছে ! যেহেতু বাংলাদেশে একাধিক আক্রান্ত ব্যক্তি পাওয়া গেছে তাই আমাদের জীবন যাপনে সতর্ক হতে হবে। সাবান দিয়ে ভালো করে হাত ধোয়া, হাঁচি-কাশি দেয়ার সময় মুখ ঢেকে রাখা, অসুস্থ পশু/পাখির সংস্পর্শে না আসা, মাছ মাংস ভালভাবে রান্না করে খাওয়া প্রয়োজন। ” বরিশাল মেট্রোপলিটন প্রেসক্লাবের সভাপতি বলেন, ” সাম্প্রতিক সময়ে গণমাধ্যমের শিরোনামে প্রাধান্য বিস্তার করেছে এই ভাইরাসটি। সচেতন করার ক্ষেত্রে গণমাধ্যম অগ্রণী ভূমিকা পালন করে থাকে।

” এক প্রশ্নের জবাবে শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সহকারী পরিচালক ডাঃ এ কে এম নাজমুল হাসান বলেন, ” জরুরী অবস্থায় চিকিৎসা দেওয়ার জন্য ৭টি মেডিকেল টিম, আপাতত ২৫ বেড এবং আলাদা ইউনিট প্রস্তুত রাখা হয়েছে। মেডিকেলের সম্মুখে নতুন ভবনটিও প্রয়োজনে ব্যবহার করা হতে পারে। ”

অন্য একটি সূত্র থেকে জানা যায়, বরিশাল সরকারি সদর হাসপাতাল পিছনের ভবনের ২য় তলায় ৪টি শয্যা প্রস্তুত রাখা হয়েছে। এ দিকে নোভেল করোনা ভাইরাসে আক্রান্তদের চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করণের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে বরিশাল স্বাস্থ্য দপ্তর। তবে সড়ক,নৌ ও আকাশ পথ আন্তঃ রুটে হওয়ায় এই অঞ্চলে স্বাস্থ্য বিভাগের কোন স্ক্যানিং ব্যবস্থা নেই ; ঝুকিও নেই। কোথাও কারও লক্ষ্মণ দেখা দিলে তাকে সাথে সাথে অবশ্যই কোয়ারেন্টিনে নিতে হবে। এবং ( পিপিআই) পারসনাল প্রটেকশন ইকুয়িপমেন্ট ( ক্যাপ, মাস্ক, গাউন, হ্যান্ড গ্লোবস, সু কভার পরিহিত থাকতে হবে।)

প্রয়োজনে এই অঞ্চলের হটলাইন নম্বর ০১৭৪৮৯৭৫৩১১ এবং আইইডিসিআর-এর যোগাযোগ নম্বর যথাক্রমে ০১৯৩৭১১০০১১, ০১৯৩০০০০০১১, ০১৯২৭৭১১৭৮৪, ০১৯২৭৭১১৭৮৫ অনলাইনে জানা’র জন্য WHO CORONA www.iedcr.dghs.gov.bd সার্চ করতে হবে।

Print Friendly, PDF & Email