হত্যার হুমকি আশিয়ান গ্রুপের এমডি নজরুল ইসলাম ভূঁইয়াকে

নাজমুল হক নাজমুল হক

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদক

প্রকাশিত: ১১:১০ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২২, ২০১৯ | আপডেট: ১১:৪০:অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২২, ২০১৯

আশিয়ান গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. নজরুল ইসলাম ভূঁইয়াকে প্রকাশ্যে দিবালোকে অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে হত্যার হুমকি দিয়েছে সন্ত্রাসী আনিসুর রহমান খোকন গং। তিনি এখন নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। এ বিষয়ে পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে মৌখিক অভিযোগ করা হয়েছে। অভিযোগের পর পুলিশ প্রশাসনের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা ও ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের বেশ কয়েকজন প্রভাবশালী মন্ত্রী ও স্থানীয় এমপি নিরাপত্তার বিষয়টি মনিটরিং করছেন, আর সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারের চেষ্টা করা হবে বলেও আশ্বস্ত করেছেন।

একই সঙ্গে প্রশাসনের কেউ জড়িত থাকলে তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেয়া হবে তা জানানো হয়। এদিকে বৃহস্পতিবার রাত ১২টায় রাজধানীর গুলশান-২ এর মাদানী রোডের ইউনিকন প্লাজায় বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্নের মাধ্যমে দখলের চেষ্টা করে সন্ত্রাসী খোকন গং বাহিনী। এক পর্যায়ে প্লাজার ব্যবসায়ীদের প্রতিরোধে তারা পিছু হটে। সন্ত্রাসীরা স্থানীয় পুলিশ প্রশাসন, ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের একাধিক মন্ত্রী, এমপির নাম ভাঙিয়ে প্লাজাটি দখলের চেষ্টা করছে। তবে এর পেছনে মন্ত্রী ও প্রশাসনের কারা জড়িত সুস্পষ্টভাবে তাদের নাম উল্লেখ করছে না। শুধু মুখে মুখে প্রচারণা চালিয়ে সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করছে এ সন্ত্রাসী বাহিনী। এ ছাড়া সন্ত্রাসী আনিসুর রহমান খোকনের বিরুদ্ধে ৩শ’ থেকে ৪শ’ চাঁদাবাজ, মাস্তান ও সন্ত্রাসী লালন-পালনের অভিযোগ রয়েছে। এসব চাঁদাবাজ ও সন্ত্রাসীকে নিয়ে সে বিভিন্ন অপরাধ কর্মকাণ্ড করে বেড়াচ্ছে।

জানা গেছে, ভুয়া কাগজপত্রের মাধ্যমে খোকন গং নিজেদের ইউনিকন প্লাজার মালিকানা দাবি করলে এর অধিকাংশ ফ্লোরের মালিক ও আশিয়ান গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক নজরুল ইসলাম ভূঁইয়া তাদের বাধা দেন। এরপর তাকে সন্ত্রাসীরা প্রকাশ্যে অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে হত্যার হুমকি দিচ্ছে।

নজরুল ইসলাম ভূঁইয়া মানবকণ্ঠকে বলেন, দীর্ঘদিন যাবৎ সন্ত্রাসী আনিসুর রহমান, মো. হোসাইন আলী, আবু বক্কর ছিদ্দিক প্রমুখ এ প্লাজা দখলের চেষ্টা করছে। বিভিন্ন সময় আমার কাছে মোটা অঙ্কের চাঁদা দাবি করে। দাবিকৃত চাঁদা এবং প্লাজা দখলের চেষ্টার কাজে আমি তাদের সহযোগিতা করিনি। আমার কাছ থেকে সহযোগিতা না পাওয়ায় গভীররাতে বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্নের মাধ্যমে ইউনিকন প্লাজা দখলের চেষ্টা করে। মো. নজরুল ইসলাম ভূঁইয়া আরো বলেন, সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে এ ব্যাপারে গুলশান থানায় জিডি করতে গেলে তা গ্রহণ করেনি।

অপরদিকে ইউনিকন প্লাজার অধিকাংশ দোকান মালিক বলেন, এ প্লাজার মালিক হচ্ছেন মিসেস রিমা হুমায়ুন ও তার ছেলে সোহেল হুমায়ুন। অন্য কেউ মালিক হতে পারে না। আমরা মানি না। তারা মানবকণ্ঠকে জানান, ‘এ প্লাজার লিফট, জেনারেটর কিনে দিয়েছেন আশিয়ান গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক নজরুল ইসলাম ভূঁইয়া। তারা নিয়মিত বিদ্যুৎ বিল, পানির বিল, গ্যাস বিল পরিশোধ করেন। মালিক থেকে দোকানগুলো ক্রয় করেন স্ব স্ব মালিকরা।

কোনো সন্ত্রাসী গ্রুপ প্রশাসন ও মন্ত্রী এমপির নাম ভাঙিয়ে এভাবে ভয় দেখিয়ে বিদ্যুৎ লাইন বিচ্ছিন্ন করতে পারে না। তারা আরো জানান, প্লাজায় কয়েকটি দোকান ক্রয় করার মাধ্যমে সন্ত্রাসী খোকন গং অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে প্লাজাটি দখলের চেষ্টা করে আসছে। আমরা এটি হতে দেব না।’

অন্যদিকে ব্যবসায়ীরা আরো বলেন, আশিয়ান গ্রুপের এমডিকে হত্যার হুমকির প্রতিবাদে গুলশানে মানববন্ধনের আয়োজন, প্রধানমন্ত্রী, পুলিশের আইজি, র‌্যাবের ডিজি, মন্ত্রী, এমপিসহ বিভিন্ন জায়গায় স্মারকলিপি দেয়া হবে। এদিকে নজরুল ইসলাম ভূঁইয়াকে সন্ত্রাসী খোকন গংদের হত্যার হুমকির প্রতিবাদ জানিয়েছে দেশের ব্যবসায়ী সংগঠনসহ বিশিষ্ট ব্যক্তিরা। তারা বলেন, দেশের স্বনামধন্য শিল্পপতি ও আবাসন খাতের শীর্ষ ব্যবসায়ী নজরুল ইসলাম

ভূঁইয়াকে সন্ত্রাসীরা হত্যার হুমকি দিতে পারে না। অবিলম্বে সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার করার দাবি জানান তারা। ইউনিকন প্লাজার দখলের বিষয়ে আনিছুর রহমান খোকনকে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি বলেন, আমরা কয়েকজন এ প্লাজার মালিক। আশিয়ান গ্রুপের মালিকের কাছে ১৫ লাখ টাকা পাবে পরিচালকরা। এজন্য বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন করা হয়। প্লাজার মালিক কিভাবে হয়েছেন দাবি করলে তিনি কাগজপত্র দেখাতে পারেননি। উল্টো এ প্রতিবেদককে রাজউকে গিয়ে খবর নেয়ার অনুরোধ করেন।