বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে (ববি) “আমিই পারি শিশুর প্রতি শারীরিক সহিংসতা বন্ধ করতে” শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে।

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ১১:৫৩ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১১, ২০১৯ | আপডেট: ১১:৫৩:অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১১, ২০১৯

মাহাবুব হোসেন :

বুধবার (১১ই সেপ্টেম্বর) দুপুর ২ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কীর্তনখোলা অডিটোরিয়ামে লোকপ্রশাসন বিভাগের সহায়তায় ‘ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশ’ সেমিনারটি আয়োজিত হয়।

সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার (দায়িত্বপ্রাপ্ত উপাচার্য) প্রফেসর ড.এ কে এম মাহবুব হাসান।বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের চেয়ারম্যান সহকারী অধ্যাপক শরীফা উম্মে শিরিন, লোকপ্রশাসন বিভাগের চেয়ারম্যান সহকারী অধ্যাপক রিফাত মাহমুদ , ইতিহাস ও সভ্যতা বিভাগের চেয়ারম্যান সহকারী অধ্যাপক ড.আব্দুল বাতেন চৌধুরী,সমাজবিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান সহকারী অধ্যাপক ড. তারেক মাহমুদ আবীর, আইন বিভাগের চেয়ারম্যান সুব্রত হালদার, অর্থনীতি বিভাগের চেয়ারম্যান সহকারী অধ্যাপক রেজওয়ানা ইসলাম, রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান সহকারী অধ্যাপক মাসুম শিকদার, ওয়াল্ডভিশন বাংলাদেশের ক্যাম্পিং কো- অডিনেটর সঞ্জয় মণ্ডল, ভারপ্রাপ্ত এরিয়া ম্যানেজার সুভাষ মণ্ডল প্রমুখ।

সেমিনারে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য ও ট্রেজারার প্রফেসর ড. এ কে এম মাহবুব হাসান বলেন, শিশুরা শুধু শারীরিক সহিংসতারই শিকার হয়ে থাকে এমন নয় তারা মানসিক ও সামাজিক সহিংসতারও শিকার।এজন্য সামাজিক বিজ্ঞান ও বিজ্ঞানকে একযোগে কাজ করার কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, মানুষ সৃষ্টির সেরা জীব।মানুুুষ অনেক অপকর্মে লিপ্ত হয় যা শ্রেষ্ঠত্বের প্রমাণ করেনা।কিন্তু আমাদের কাজেকর্মে, চিন্তাভাবনায়, আচরণে আমাদের শ্রেষ্ঠত্ব প্রমাণ করতে হবে।

গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের চেয়ারম্যান সহকারী অধ্যাপক শরীফা উম্মে শিরিন বলেন, বিশেষ করে বাংলাদেশে শিশু নির্যাতন বন্ধ করা দরকার। এটা সম্পূর্ণ বন্ধ করা সম্ভপর না হলেও কমিয়ে আনা সম্ভব। সুস্থ সামাজিক বিকাশের পথ উন্মুক্ত করতে পারলেই শিশু নির্যাতন কমে আসবে।এ সময় অন্যান্যদের মধ্যেও এই বিষয়ে বক্তব্য প্রদান করেন।

উল্লেখ্য, সেমিনারে বিভিন্ন বিভাগের ১০০ শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করেন। তাদের ১০ টি দলে বিভক্তিকরণ করে শিশুর প্রতি শারীরিক সহিংসতা বন্ধে কর্মপন্থা নির্ধারণ করে দেওয়া হয়। এসময় শিশু নির্যাতনের ফলে বাংলাদেশের প্রচলিত আইন সম্পর্কে ধারণা ও একটি ডকুমেন্টারি ভিডিও দেখানো হয়।