খুলনায় জমি-জমা সংক্রান্ত বিরোধের জেরে বৃদ্ধাকে মধ্যযুগীয় নির্যাতন

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ৫:৫০ অপরাহ্ণ, মার্চ ২৩, ২০১৯ | আপডেট: ৫:৫০:অপরাহ্ণ, মার্চ ২৩, ২০১৯

পাইকগাছায় জমি-জমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে সখিনা বেগম (৬৫) নামে বৃদ্ধাকে গাছে বেঁধে মধ্যযুগীয় নির্যাতন ও বাড়ি-ঘর ভাংচুর করেছে দূবৃত্তরা।

এসময় বৃদ্ধা দাদীকে ঠেকাতে আসলে তারা এইচএসসি পরীক্ষার্থী এক পুতনীকেও শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার কপিলমুনির শিলেমানপুর গ্রামে। খবর পেয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে দেশীয় অস্ত্র দা-কুড়াল ও ৪ টি মোটরসাইকেল উদ্ধার ও ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে বহিরাগত ৪ জনকে আটক করেছে।

থানা পুলিশ,পারিবারিক সূত্র ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, বসতবাড়ীর ২৫ শতাংশ জমি নিয়ে স্থানীয় আব্দুল গাজী ও তার এক চাচাতো বোন সখিনা বেগম (৬৫)’র সাথে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। বিষয়টি মীমাংশায় ইতোপূর্বে স্থানীয়ভাবে কয়েক দফা শালিশীতেও কোন সমাধান মেলেনি।

প্রেিবশীদের অভিযোগ, বৃদ্ধার ৩ ছেলে যশোরে ইটের ভাটায় কাজ করতে যাওয়ার সুযোগে শনিবার সকাল আনুমানিক সাড়ে ১০ টার দিকে আব্দুল গাজীর ছেলে ইউসুপ-ইউনুছের নেতৃত্বে বহিরাগত দূবৃত্তরা সখিনার বাড়িতে হানা দিয়ে রান্না করা অবস্থায় সখিনাকে পাশের গাছের সাথে বেঁধে ফেলে। এসময় ফিল্মি স্টাইলে তড়িৎ তান্ডবে তার বসত ঘর ভাংচুর করে কাপড়-চোপড়,ভাতের হাড়ী ও এইচএসসি পরীক্ষার্থী পুতনির ব্যবহৃত পোশাক, বই-খাতা পাশের পুকুরে ফেলে দেয়।

আহত সখিনা বেগমের অভিযোগ, তার চাচাতো ভাই আব্দুল্লার ছেলের স্ত্রী মঞ্জুয়ারা,হাফিজা তার হাত-বেঁধে দেয়। এরপর ওদের স্বামী ও বহিরাগতরা তাদের মারপিট করে।

এসময় মধ্যযুগীয় তান্ডব চালিয়ে ঐ ক্ষতিসাধন করে। এসময় বৃদ্ধার এক পুতনি এইচএসসি পরীক্ষার্থী কেয়া জানায়, ঘটনার সময় সে প্রাইভেট পড়তে গিয়েছিল। এরপর বাড়িতে ঢুকে দেখে তাদের বসত বাড়িতে ভাংচুর চলছে। অন্যপাশে দাদী সখিনার হাত-বাঁধা কান্না কাটি করছে সব কিছুই তছনছ। এসময় সে ঘটনার প্রতিবাদ করলে দূবৃত্তরা তাকেও শারিরীকভাবে লাঞ্ছিত করে। তার পাঠ্যবই,খাতা পুকুরে ফেলে দেয়। আসন্ন পরীক্ষার ভবিষ্যৎ চিন্তায় মূর্ছা যায় সে।

খবর পেয়ে পাইকগাছা থানার এসআই এসআই আবু সাঈদ,লিটন অধিকারী ও কপিলমুনি পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই প্রবাস মিত্রের নেতৃত্বে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছালে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে। এসময় ঘটনাস্থল থেকে দূর্বৃত্তদের ৪ টি মটরসাইকেল,দা-কুড়াল উদ্ধার করে। একই সময় সেখান থেকে ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে ইউসুফ গাজী, মোস্তফা,মঞ্জুয়ারা ও হাফিজাকে আটক করে থানায় নেয়া হয়।

এব্যাপারে পাইকগাছা থানার ওসি এমদাদুল হক শেখ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে এ জঘন্য ঘটনায় মামলা হবে বলে জানিয়েছেন।

[sharethis-inline-buttons]