শিক্ষার্থীরাই প্রার্থী শিক্ষার্থীরাই ভোটার শিক্ষার্থীরাই নিরাপত্তাকর্মীসহ সব

প্রকাশিত: ২:৩০ পূর্বাহ্ণ, মার্চ ১৫, ২০১৯ | আপডেট: ২:৩০:পূর্বাহ্ণ, মার্চ ১৫, ২০১৯

লাঠি হাতে দীর্ঘ লাইনের দু’পাশে দাড়িয়ে আছে নিরাপত্তা কর্মীর দায়িত্বে ২জন পুরুষ এবং ২ জন মহিলা। ভোটকেন্দ্রে আনসার সদস্যদের মতোই দায়িত্ব পালনরত তারা। দীর্ঘ লাইন থেকে পর্যায়ক্রমে শৃঙ্খলাবদ্ধভাবে একে একে ছাড়া হয় লাইনে থাকা অপেক্ষমানদের। তারা ভিতরে গিয়ে পছন্দের প্রার্থীদের ভোট দিচ্ছে। নির্বাচন কমিশনার, সহকারী নির্বাচন কমিশনার, ভোট কেন্দ্রের পিসাইডিং অফিসার, পুলিং অফিসার, এজেন্টসহ সবাই তাদের প্রাপ্ত দায়িত্ব পালনে ব্যস্ত। এটা কোন জাতীয় বা স্থানীয় পর্যায়ের জনপ্রতিনধিত্বের নির্বাচন না। ঝালকাঠির রাজাপুর উপজেলার পিংরি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের স্টুডেন্ট কাউন্সিল নির্বাচনের চিত্র এটি।
ঝালকাঠিতে উৎসবমুখর ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের স্টুডেন্টস কাউন্সিল নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল ৯টা থেকে শুরু হয় ভোটগ্রহণ। শেষ হয় দুপুর ১টায়। শিশুদের মধ্য থেকে নেতৃত্বের বিকাশ, গণতান্ত্রিক মূল্যবোধ, ঝড়ে পড়া রোধ ও শিক্ষা সহায়ক কার্যক্রমে অংশগ্রহণ নিশ্চিত করার পদক্ষেপ হিসেবে সারা দেশের মতো ঝালকাঠি জেলার ৪টি উপজেলার মাধ্যমিক বিদ্যালয়গুলোতে একযোগে এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। ৬ষ্ঠ থেকে ১০ম শ্রেণির শিক্ষার্থীরা ৮টি পদে পছন্দের প্রার্থীদের ভোট দেয়। এদিন সকালে উপজেলার বিভিন্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে, নির্বাচনকে কেন্দ্র করে শিক্ষার্থীদের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা দেখা গেছে।
প্রতিদ্ব›দ্বী প্রার্থীরা বিদ্যালয় আঙিনায় হাতে লেখা পোস্টার সাঁটিয়েছে এবং প্রার্থীরা সহপাঠীদের কাছে ভোট প্রার্থনা করছে। নির্বাচনে নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন করতে শিক্ষার্থীদের মধ্য থেকে আনসার ও পুলিশ বাহিনীর মতোই স্বেচ্ছাসেবক নিয়োগ করা হয়েছে। এছাড়া নির্বাচন কমিশনার, প্রিসাইডিং ও পোলিং অফিসারের দায়িত্ব শিক্ষার্থীরাই পালন করছে। পিংরি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের নির্বাচন সমন্বয়কারীর দায়িত্বে ছিলেন শিক্ষক আলিম আল রাজি এবং দীপক চন্দ্র হাওলাদার।
বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক শ্যামল চন্দ্র মন্ডল জানান, ৮টি পদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। নির্বাচন কমিশনারের দায়িত্ব পালন করে ১০ম শ্রেণির ছাত্রী বুশরা। সহকারী নির্বাচন কমিশনার ৯ম শ্রেণির ছাত্র খালিদ খান ও ৮ম শ্রেণির ছাত্র সাগর মন্ডল। ১০ম শ্রেণির ছাত্রী হিরা আক্তার প্রিসাইডিং অফিসার এবং ৯ম শ্রেণির নাজাত ও ৮ম শ্রেণির নাজমিন পুলিং অফিসারের দায়িত্ব পালন করে।
বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ থেকে ১০ম শ্রেণি পর্যন্ত ১৬৮ ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করে। অনুরূপভাবে ঝালকাঠি সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়, সরকারী হরচন্দ্র বালিকা বিদ্যালয়, উদ্বোধন বহুমূখী মাধ্যমিক বিদ্যালয় পৌর আদর্শ মাধ্যমিক বিদ্যালয়, ইছানীল মাধ্যমিক বিদ্যালয়সহ মাধ্যমিক বিদ্যালয়গুলোতে স্টুডেন্ট কাউন্সিলর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। ঝালকাঠি জেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ সিদ্দিকুর রহমান জানান, শান্তিপূর্ণ পরিবেশে সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত এক যোগে জেলার মাধ্যমিক বিদ্যালয়গুলোতে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। ৬ষ্ঠ শ্রেণি থেকে ১০ম শ্রেণির শিক্ষার্থীরা এ নির্বাচনে অংশগ্রহণ ও ভোট প্রদান করে।