বঙ্গবন্ধু ছিলেন বাংলার গরিব-দুঃখী মানুষের বন্ধু

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ৫:৪৩ পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ১৫, ২০১৮ | আপডেট: ৫:৪৩:পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ১৫, ২০১৮

সজিব খান: স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ছিলেন গরিব-দুঃখীর বন্ধু। তাদের দুঃখ তিনি খুব কাছে থেকে দেখেছেন এবং তরুণ বয়সেই প্রতিজ্ঞা করেছিলেন গরীব-দুঃখীর দুঃখ মোচনের জন্য কাজ করবেন। তার লেখা ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ ও ‘কারাগারের রোজনামচা’ পড়লেই বোঝা যায় তিনি সেইসব মানুষগুলোর দুঃখ কতোটা গভীরভাবে বুঝতেন। দুঃখী মানুষের জীবনের দুঃখ-বেদনার কথা তিনি গভীর মনোযোগ সহকারে শুনতেন। আর মনে মনে ভাবতেন এদের মতো মানুষের দুঃখ কি করে মোচন করা যায়। দেশ পরিচালনার সুযোগ পাওয়া মাত্রই তিনি তাদের জন্য কিছু করার উদ্যোগ নেন। যখন যুদ্ধবিধ্বস্ত বাংলাদেশকে পুনর্গঠন ও অর্থনৈতিক মুক্তি অর্জনের জন্য তিনি কাজ করছিলেন- তখনই ষড়যন্ত্রকারীদের বুলেটে স্তব্ধ হয়ে যায় এই মহাপ্রাণ।

 

বঙ্গবন্ধু প্রায়ই তাঁর বক্তৃতায় বলতেন- এ স্বাধীনতা আমার ব্যর্থ হয়ে যাবে যদি আমার বাংলার মানুষ পেট ভরে ভাত না খায়। এ স্বাধীনতা আমার পূর্ণ হবে না যদি আমার মা-বোনেরা কাপড় না পায়, যদি যুবক শ্রেণি চাকরি না পায় বা কাজ না পায়। বাংলার মানুষের দুঃখ দেখলে আমি পাগল হয়ে যাই।

 

বঙ্গবন্ধুর ব্যক্তিত্ব ও সাহসীকতায় মুগ্ধ হয়ে কিউবার বিপ্লবী নেতা ফিদেল কাস্ত্রো বলেছিলেন, আমি হিমালয়কে দেখিনি, তবে শেখ মুজিবকে দেখেছি। ব্যক্তিত্ব ও সাহসে তিনি ছিলেন হিমালয়ের সমান। সুতরাং হিমালয় দেখার অভিজ্ঞতা আমি লাভ করেছি।’