ভিজিএফ সুবিধাভোগীদের নিয়ে নলছিটির মোল্লারহাট ইউপি চেয়ারম্যানের মুক্তির দাবিতে মানববন্ধন

প্রকাশিত: ৬:৪৬ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১২, ২০১৮ | আপডেট: ৬:৪৬:অপরাহ্ণ, আগস্ট ১২, ২০১৮
ভিজিএফ সুবিধাভোগীদের নিয়ে  নলছিটির মোল্লারহাট ইউপি চেয়ারম্যানের  মুক্তির দাবিতে মানববন্ধন

ঝালকাঠির নলছিটি উপজেলার মোল্লারহাট ইউপি চেয়ারম্যান কবির হোসেনের মুক্তি ও মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে ভিজিএফ সুবিধাভোগী ও দলীয় প্রভাব বিস্তার করে চাপ প্রয়োগ করে স্থানীয় স্কুল শিক্ষার্থীদের দিয়ে মানববন্ধন করানো হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। রোববার বেলা ১১টায় মোল্লারহাট ইউনিয়ন পরিষদের সামনের সড়কে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এতে ইউপি সদস্য, রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মী, শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও স্থানীয় ভিজিএফ সুবিধাভোগী নারী-পুরুষ অংশ নেয়।
খোজ নিয়ে জানাগেছে, ইদুল আজহা উপলক্ষ্যে ভিজিএফ সুবিধাভোগীরা চাল নিতে এসেছিলেন। তাদেরকে চাল দেয়ার অপেক্ষায় রেখে মানববন্ধনে অংশগ্রহণের জন্য বলা হয়। অপরদিকে মোল্লারহাট ইউনিয়ন পরিষদ সংলগ্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষককে চাপ প্রয়োগ করে শিক্ষার্থীদের মানববন্ধনে অংশগ্রহণে বাধ্য করা হয়।
ভিজিএফ সুবিধাভোগী সেতারা বানু জানান, আমি আইছি (আসছি) সরকারী চাউল নিতে। আমাকে বলে অপেক্ষা করেন। কিছুক্ষণ পরে দেখি মাইক ও ব্যানার নিয়ে ইউনিয়নের সামনে এসে কয়েকজন লোক দাড়িয়েছে। আমারে সহ যারা ছিলো তাদেরকে ওখানে লাইনে দাড়ানোর জন্য বলতেছে। না দাড়ালে চাল দিবে না। তাই আমরা সবাই সেখানে গিয়ে দাড়াইছি।
স্থানীয়রা জানায়, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের লোকজন শনিবার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে গিয়ে প্রধান শিক্ষককে রোববারের মানববন্ধনে অংশ গ্রহণের জন্য বলা হয়। তাই রোববার শিক্ষার্থীদের নিয়ে শিক্ষকরা মানববন্ধনে অংশ গ্রহণ করেন।
মানববন্ধনে বক্তব্য দেন মোল্লারহাট ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মজিবুর রহমান, উপজেলা আওয়ামী লীগের শ্রম ও সমাজকল্যান সম্পাদক হাবিবুর রহমান, রানাপাশা স্কুল অ্যান্ড কলেজের প্রধান শিক্ষক বাবুল চক্রবর্ত্তী, ম্যানেজিং কমিটির সদস্য আবদুল কাদের হোসেন, যুবলীগ নেতা মুজাম্মেল হক, ইউপি সদস্য আক্কাস সরদার ও বেল্লাল হোসেন। মানববন্ধনে বক্তারা অভিযোগ করেন, স্থানীয় তালতলা কৃষি ব্যাংকের ব্যবস্থাপক মোস্তাইনুর রহমানের ঘুষ ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে কথা বলায় গত ২৯ মে মোল্লারহাট ইউপি চেয়ারম্যান কবির হোসেনের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দেয়া হয় । ওই মামলায় গত ৮ আগস্ট তাকে কারাগারে পাঠানো হয়। এতে মোল্লারহাট ইউনিয়নের বাসিন্দারা ক্ষুব্ধ । তারা অবিলম্বে ইউপি চেয়ারম্যানের মুক্তি দাবি করেন। মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার না করা হলে আরো কঠোর কর্মসূচি দেওয়া হবে বলে মানববন্ধন থেকে হুশিয়ারি দেওয়া হয় ।