মাদ্রাসা সুপারের মাথায় মল ঢেলে লাঞ্ছনা, অভিযুক্ত জাহাঙ্গীর পাবনায় গ্রেফতার

প্রকাশিত: ৬:০৩ অপরাহ্ণ, জুন ২২, ২০১৮ | আপডেট: ৬:২১:অপরাহ্ণ, জুন ২২, ২০১৮
মাদ্রাসা সুপারের মাথায় মল ঢেলে লাঞ্ছনা,  অভিযুক্ত জাহাঙ্গীর পাবনায় গ্রেফতার

বরিশালের বাকেরগঞ্জ উপজেলার রঙ্গশ্রী ইউনিয়নের কাঁঠালিয়া ইসলামিয়া দারুস সুন্নাহ মাদ্রাসার সুপার আবু হানিফার (৫৫) মাথায় মল ঢেলে লাঞ্ছিতের ঘটনায় দায়ের হওয়া মামলার প্রধান আসামি জাহাঙ্গীর খন্দকারকে (৫৮) গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

গত বুধবার রাতে পাবনার বেড়া এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত জাহাঙ্গীর বাকেরগঞ্জ উপজেলার লোছনাবাদ এলাকার মৃত ইসতেহার খন্দকারের ছেলে।

জেলা পুলিশ সুপার সাইফুল ইসলাম জানান, ঘটনার পর থেকেই মামলার প্রধান আসামি জাহাঙ্গীর খন্দকার আত্মগোপনে ছিলেন। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তাকে বুধবার রাতে পাবনা জেলার বেড়া এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়। বৃহস্পতিবার তাকে  নিয়ে পুলিশের একটি দল বরিশালের বাকেরগঞ্জের উদ্দেশে রওনা হয়েছে। এর আগে একই মামলার তিন আসামিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

গত ফেব্রুয়ারি মাসে কাঁঠালিয়া ইসলামিয়া দারুস সুন্নাহ দাখিল মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে সভাপতি পদে হেরে যান জাহাঙ্গীর খন্দকার। মাদ্রাসা সুপার আবু হানিফা বিজয়ী এইচ এম মজিবর রহমানের পক্ষে ছিলেন। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে গত ১১ মে ফজরের নামাজের পর আবু হানিফা মসজিদ থেকে বের হলে জাহাঙ্গীর খন্দকারের নেতৃত্বে তার পথরোধ করে মাথায় মল ঢেলে দেয় কয়েকজন। এরপর মোবাইল ফোনে ধারণ করা সেই ভিডিওচিত্র সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে দেওয়া হয়। তবে ছবি ফেসবুকে ভাইরাল হওয়ার পরই বিষয়টি নিয়ে তোলপাড় শুরু হয়। প্রতিবাদ ওঠে সব মহলে। এ ঘটনায়  গত ১৩ মে আবু হানিফা বাদী হয়ে আটজনের নামোল্লেখ করে এবং আরও ৫-৬ জনকে অজ্ঞাত আসামি করে বাকেরগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেন।