দশমিনা থেকে বিলুপ্তির পথে দেশি প্রজাতির মাছ

প্রকাশিত: ৪:২২ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ২০, ২০১৮ | আপডেট: ৪:২২:অপরাহ্ণ, এপ্রিল ২০, ২০১৮
পটুয়াখালীর দশমিনা থেকে বিলুপ্তির পথে দেশীয় প্রজাতির মাছ। শুকনো মৌসুমে এ উপজেলার হাট বাজারে পাওয়া যেত  বিভিন্ন দেশীয় প্রজাতির মাছ। কিন্তু বর্তমানে হাট বাজাওে দেখা মিলছে না তেমন কোন ভালো মানের দেশী প্রজাতি মাছের ।
স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, একযুগ আগেও এ উপজেলায় প্রায় ৭০ প্রজাতির দেশীয় মাছ পাওয়া গেলেও বর্তমানে ৩৮ প্রজাতির মাছ বিলুপ্তের পথে দেশী প্রজাতির অনেক মাছ। এ উপজেলার বিভিন্ন এলাকার ২৫ জন মৎস্য জীবির সাথে কথা হয় তারা জানান, বহরমপুর ইউনিয়ানের বগুড়া  গ্রামের গঙ্গাইর বিল তেঁতুলিয়া নদীর শাখা খালসহ বিভিন্ন বিলে খালে ও পুকুরে আগের মত এখন আর দেশীয় প্রজাতির মাছের দেখা  পাওয়া যায় না ।
 বর্তমানে এলাকায় মহাবিপন্ন অবস্থায় রয়েছে ঘারুয়া, বাগাড়, রিঠা, চিতল, মহাশোল ও সরপুটি মাছ । সংকটাপন্ন অবস্থায় রয়েছে বাচা, ছেপ চেলা, ঢেলা, বাশপাতা, নাপতে কই, রায়েক, ফলি মাছ । বিপন্ন অবস্থায় রয়েছে  গোলসা, দারকিনা, পাবদা, বড় বাইম,  গজাল, তিতিপুটি, নামা চান্দা, কালিবাইশ, তিলা শোল, খলিশা মেনি, রায়েক ও মাগুও । দেশী প্রজাতীর বেশির ভাগ মাছ বিলুপ্তের  পথে একযুগ আগেও বিভিন্ন ডোবায় খালে বিলে পুকুওে যে সব দেশীয় প্রজাতির মাছ ধরতেন এখন তার কিছুই নেই । মনে পওে মাত্র কয়েক বছর পূর্বেও বিভিন্ন প্রজাতির দেশী  মাছ ধরতেন মৎস্যজীবিনা । কিন্তু এসব মাছ এখন বিলুপ্তের পথে । আগের মত নদী খাল বিল ও জলাশয় পানি না থাকা, পাইল ফিশিং না হওয়ায় এবং নদীও খাল বিলে নতুন পানি আসার সময় জাল দিয়ে অবাধে মা মাছ ও পোনা মাছ ধরার কারনে দেশীয় প্রজাতির মাছ এখন বিলুপ্তে পথে ।
বিষয় নিয়ে কথা হয় উপজেলার গুনীজনের সাথে তারা জানান, এ ধারা অব্যাহত থাকলে কিছ ুদিনের মধ্যে আর কোন দেশী প্রজাতির মাছের দেখা মিলবেনা হারিয়ে যাবে দেশী  প্রজাতির মাছের নাম নিশানা বলে আশস্কা করছে । তাজা মাছ উৎপাদন ও বিলুপ্তি ঠেকাতে জলজ জীববৈচিত্র্য সংরক্ষন এবং মা মাছের নির্বিঘেœ বড় হওয়া ও প্রজননের সুযোগ সৃস্টি কওে দিতে হবে । এ জন্য প্রতিটি উণ্মমুক্ত জলাশয়, খাল-বিল ও নদীতে অভয়াশ্রম তৈরি করা প্রায়োজন বলে মনে করেন ।
 ###

Print Friendly, PDF & Email