বীরগঞ্জে বসত-বাড়ীর জমি রক্ষা ও পুলিশি হয়রানি বন্দের দাবীতে সংবাদিক সম্মেলন

এন.আই.মিলন এন.আই.মিলন

দিনাজপুর প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ১১:১৭ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৮, ২০১৮ | আপডেট: ১১:১৭:অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৮, ২০১৮

দিনাজপুরের বীরগঞ্জের ১ ব্যাক্তি ভোগদখলীয় ও বসত-বাড়ীর জমি, যানমাল রক্ষা ও পুলিশি হয়রানি বন্দের দাবীতে সংবাদিক সম্মেলন করেছে।

বীরগঞ্জ উপজেলার চাকাই মৌজার স্থায়ী নাগরিক স্বর্গীয় শ্রী রূপসিং রায়ের পূত্র বিপ্লব চন্দ্র রায় মাঘু ও তার পরিবারের সদস্যরা রবিবার দিনাজপুর প্রেসক্লাবে এক সাংবাদিক সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য জানায়, চাকাই মৌজার জেএল ১৫৪, সিএস ১৪০, এসএ ২০০ খতিয়ানের ৮৯৭- ৮৯৮- ৮৯৯- ৯০১- ৯০২, ৮৯৯/১৩৩৭ দাগের ২.২২ একর জমি রেকডিও মালিক সত্য চরন মন্ডল ও তার ওয়ারিশ সমারুর ভোগদখল অবস্থায় গত ২০১২ সালে ক্রয় করে বসত বাড়ী ও বাগান লাগিয়ে ভোগদখল করে আসছে। ঐ জমিটি দিনাজপুর সদরের চকবাজারের বাসিন্দা স্বর্গীয় রামা শংকর গুপ্তার পুত্র সন্ত্রাসী ঈশ্বর চন্দ্র গুপ্তা, পুনম চন্দ্র গুপ্তা ভুয়া নিলামের নামে ভুয়া দলিল সৃষ্টি করে তাদের ভোগদখলীয় ভিটে মাটি থেকে উচ্ছ্বেদের জন্য ক্ষমতার অপব্যবহার করে দখলের অপচেষ্টায় নানাবিধ ষড়যন্ত্র, অবৈধ কর্মকান্ড ও মিথ্যা মামলার মাধ্যমে উচ্ছেদ করতে ব্যর্থ হয়। বর্তমানে উক্ত জমিটিকে কেন্দ্র করে দিনাজপুর যুগ্ন জেলা জজ আদালতে ১টি মামলা চলমান রয়েছে। যার মামলা নং ৬১/২০১২ অন্য। ঈশ্বর চন্দ্র গুপ্তা ভুয়া মালিক সেজে জমিটি দখল করতে না পেরে জেলা শহরের একজন প্রভাবশালী সাংবাদিককে ম্যানেজ করে মামলা চলমান অবস্থায় থানা পুলিশকে ভুল বুঝিয়ে মিথ্যা মামলার হুমকি দিয়ে দিবা-রাত্রী সীমাহীন হয়রানী করছে। বর্তমানে তারা ঈশ্বর চন্দ্র গুপ্ত’র ভাড়াটে মাস্তান বাহিনীর অত্যাচার ও বীরগঞ্জ থানা পুলিশের হুমকির নির্মম নির্যাতনে দিশেহারা।

১৪ ফেব্রুয়ারী’২০১৮ রাতে সন্ত্রাসী ঈশ্বর চন্দ্র গুপ্তা, পুনম চন্দ্র গুপ্তা, বাসুদেব চন্দ্র রায়, বীরকান্ত রায়, মোঃ আলিম সহ ২০/২৫ জন ভাড়াটে বাহিনী তাদের বাড়ি-ঘর ভেঙ্গে গুড়িয়ে দিয়ে বিতারিত করার চেষ্টা চালায়। কিন্তু মাঘু ও গ্রামবাসীর প্রতিরোধের মুখে তারা সফল হতে না পেরে পুলিশকে মোটা অংকের টাকায় দফারফা করে মামলা চলমানকৃত জমিতে মাস্তানদের সাথে নিয়ে পুনরায় ভোরে বীরগঞ্জ থানার একদল পুলিশ সহ অবৈধ ভাবে মাগুর বাড়ি-ঘর ভেঙ্গে গুড়িয়ে দেয়ার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়। তার পর হতে পুলিশের হুমকিতে তারা ভয়ে ভয়ে চলাফেরা করছে।

বিপ্লব চন্দ্র রায় মাঘু আরো জানায়, ঈশ্বর চন্দ্র গুপ্তা ভূয়া নিলামের কাগজ তৈরী করে প্রতারনামূলক দলিল সৃষ্টি পূর্বক আদালতে চলমানকৃত তাদের দেওয়া মিথ্যা মামলার প্রতি আস্থা না পেয়ে বর্তমানে পুলিশ লেলিয়ে দিয়ে জানমালের ব্যপক ক্ষতি সাধন করার হুমকি প্রদান করছে। যা আইনের পরিপস্থি। বর্তমানে তারা মাস্তান বাহিনী ও পুলিশি হুমকিতে স্বপরিবারে চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে। তাই সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে আদালতে চলমান মামলাকৃত জমির সংক্রান্ত ঘটনায় পুলিশি হয়রানী থেকে বাঁচার দাবী জানিয়ে প্রশাষনের ও আদালতের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছে।

অপরদিকে বিপ্লব চন্দ্র রায় মাঘু দিনাজপুর পুলিশ সুপার সহ বিভিন্ন দপ্তরে ১টি আবেদনের প্রেক্ষিতে জানা যায়, আদালতে চলমান মামলাকৃত জমি সংক্রান্ত ঘটনায় পুলিশি হয়রানী বন্দের দাবী জানায়। সেখানে তিনি উল্লেখ করে বলেন, ঈশ্বর চন্দ্র গুপ্তা বিভিন্ন সময়ে জমিটি দখল করতে না পেরে দিনাজপুর প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি চিত্ত ঘোসকে অ-লিখিত পাটনার বানায়। বর্তমানে চিত্ত ঘোস সাংবাদিকের নাম ব্যবহার করেও পুলিশ সহ বিভিন্ন দপ্তরে তাদেরকে উচ্ছেদের জন্য দৌড় ঝাপ শুরু করেছে। সে ব্যপারেও সজাগ থাকার জন্য প্রশাষনের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছে।
সাংবাদিক সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন বিপ্লব চন্দ্র রায় মাঘু, এসময় তার সাথে ছিলেন বেলুনুর বেগম, আতাউর রহমান সহ পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা।