বীরগঞ্জে মাদ্রাসা সুপার কর্তৃক রাস্তার গাছ কর্তনের চেষ্টা কালে আটক

এন.আই.মিলন এন.আই.মিলন

দিনাজপুর প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ৪:০৫ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৭, ২০১৮ | আপডেট: ৪:০৫:অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৭, ২০১৮
SAMSUNG CAMERA PICTURES

দিনাজপুরের বীরগঞ্জে শুক্রবার ছুটির দিনে রাস্তার গাছ কর্তনের চেষ্টা কালে আটক করেছে প্রশাসন, পালিয়ে গেছে মাদ্রাসা সুপার মমতাজুল ইসলাম, অজ্ঞাত কারনে ছেড়ে দেয়া হয়েছে গাছ কর্তনকারী ওমর আলী কে।
উপজেলার নিজপাড়া ইউনিয়নের বলরামপুর দাখিল মাদ্রাসা সংলগ্ন মাথানারী থেকে খলশীগামী রাস্তার একটি বিশাল পুরাতন আমগাছ শুক্রবার ছুটির দিনে মাদ্রাসা সুপার ও মৃত. ওসমান আলীর পুত্র মমতাজুল ইসলামের নির্দ্দেশে বাসুদেবপুর গ্রামের আব্দুল কাদেরের পুত্র গাছ ব্যবসায়ী ওমর আলীর নেতৃত্বে ৮/৯ জন গাছটি কাটার চেষ্ঠা করে। এসময় এলাকাবাসী সহকারী কমিশনার (ভুমি) ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার (চলতি দায়িত্ব) বিরোদা রানী রায়কে সংবাদ দিলে নিজপাড়া ইউনিয়ন ভুমি সহকারী কর্মকর্তা তৌহিদুল ইসলাম সরেজমিনে এসে গাছকাটা বন্ধ করে অজ্ঞাত কারনে গাছ কর্তনকারী ওমর আলী কে ছেড়ে দেয়।

SAMSUNG CAMERA PICTURES

এব্যপারে গাছ কর্তনকারী ওমর আলী জানান, বলরামপুর দাখিল মাদ্রাসার সুপার মমতাজুল ইসলাম ও কমিটির সভাপতি এমএ খালেক সরকার গাছটি বিক্রয় করলে তিনি ১৬ হাজার ৫শত টাকায় ক্রয় করে সুপার মমতাজুল ইসলামের উপস্থিতিতে গাছটি কাটা শুরু করে। তারই অংশ হিসাবে ডালপালা কেটে স্বতেজ গাছটি উপড়ে ফেলার সময় ভুমি সহকারী কর্মকর্তা তৌহিদুল ইসলাম এসে গাছকাটা বন্ধ করে। এসময় প্রশাসন ও সাংবাদিকের উপস্থিতি টের পেয়ে মাদ্রাসা সুপার মমতাজুল ইসলাম পালিয়ে গা ঢাকা দেয়।
ইউনিয়ন ভুমি সহকারী কর্মকর্তা তৌহিদুল ইসলাম জানায়, কর্তনকৃত আমগাছের ডালগুলো আটক করে মাদ্রাসার মাঠে মাদ্রাসা কতৃপক্ষের ত্বত্তাবধানে রাখা হয়েছে।
এ সংবাদ লেখা পর্যন্ত মাদ্রাসা কমিটির সভাপতি এমএ খালেক সরকার ও সুপার মমতাজুল ইসলামসহ জড়িতদের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।