জামাল উদ্দিনের ধাক্কায় পড়ে যান প্রক্টর

ঢাবি শিক্ষকদের হাতাহাতির ঘটনায় বিবৃতি

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ৬:০৪ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ৫, ২০১৭ | আপডেট: ৬:০৪:অপরাহ্ণ, নভেম্বর ৫, ২০১৭
জামাল উদ্দিনের ধাক্কায় পড়ে যান প্রক্টর

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আওয়ামী লীগ ও বাম সমর্থিত শিক্ষকদের নীল দলের সভায় হাতাহাতির ঘটনায় গণমাধ্যমে আলাদা আলাদা বিবৃতি পাঠিয়েছেন দুই শিক্ষক। এতে তারা দাবি করেছেন, বৃহস্পতিবার রাতে দলের সভায় বক্তব্য প্রদানকালে প্রক্টর অধ্যাপক ড. এ কে এম গোলাম রব্বানীকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেন এবং বুকে প্রচণ্ডভাবে আঘাত করেন সমাজবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক আ ক ম জামাল উদ্দিন।
শনিবার গণমাধ্যমে বিবৃতি দু’টি পাঠিয়েছেন প্রক্টর অধ্যাপক ড. এ কে এম গোলাম রব্বানী এবং অধ্যাপক সীতেশ চন্দ্র বাছার। প্রক্টরের বিবৃতিতে বলা হয়, সভায় তার বক্তব্য চলাকালে অধ্যাপক আ ক ম জামাল উদ্দিন চেয়ার থেকে উঠে এসে তার বুকের বাঁদিকে দুই হাত দিয়ে প্রচণ্ডভাবে আঘাত করেন। এ সময় তিনি হতবিহ্বল হয়ে চুপচাপ দাঁড়িয়ে থাকলে জামাল উদ্দিন উপর্যুপরি আক্রমণে উদ্যত হন। তা দেখে অন্যান্য শিক্ষক তাকে রক্ষার জন্য এগিয়ে আসেন এবং ঘিরে রাখেন। অধ্যাপক সীতেশ চন্দ্র বাছারের বিবৃতিতে বলা হয়, প্রক্টর গোলাম রব্বানীর বক্তব্যের সময় জামাল উদ্দিন তাকে বারবার বাধা দেন। দলের আহ্বায়ক জামাল উদ্দিনকে বক্তব্যে বাধা না দেয়ার অনুরোধও করেন। কিন্তু জামাল সে কথা না শুনে বক্তব্যরত অবস্থায় প্রক্টরকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেন। এ সময় ঘটনা যাতে প্রলম্বিত না হয় সেজন্য বিবৃতি প্রদানকারী শিক্ষক বাছারসহ অন্যরা দু’জনকে ঘিরে ধরেন। কিন্তু জামাল বেষ্টনী ভেঙে প্রক্টরকে লাথি মারতে উদ্যত হন। একপর্যায়ে তিনি (জামাল) চেয়ার নিয়ে মারতে আসেন। তাকে নিবৃত্ত করতে গেলে বিবৃতি প্রদানকারী শিক্ষক ও জামাল দু’জনই পড়ে যান। তবে যুগান্তরের কাছে এই দুই শিক্ষকের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন অধ্যাপক জামাল উদ্দিন। তার দাবি, তিনি আঘাত করেননি বরং তাকেই আঘাত করা হয়েছে। আর এতে তিনি আহতও হয়েছেন।