সমাবেশ করতে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান চায় বিএনপি

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ৩:০৩ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ৩, ২০১৭ | আপডেট: ৩:০৩:অপরাহ্ণ, নভেম্বর ৩, ২০১৭
সমাবেশ করতে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান চায় বিএনপি

আগামী ৮ নভেম্বর রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশের অনুমতি চেয়ে প্রশাসনের কাছে চিঠি দিয়েছে বিএনপি।

৭ নভেম্বরের ‘জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি’ দিবস উপলক্ষে পরদিন এই সমাবেশ করতে চায় দলটি। শুক্রবার সকালে নয়া পল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলন থেকে সমাবেশের অনুমতি চেয়ে প্রশাসনে চিঠি পাঠানোর কথা জানান দলটির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

তিনি বলেন, “আগামী ৮ নভেম্বর আমরা সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ করার জন্য প্রশাসনের কাছে চিঠি দিয়েছি। ৭ নভেম্বর জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস উপলক্ষে আমরা সেখানে এই সমাবেশ করব।

“গতকাল আপনারা দেখেছেন যে, ৭ নভেম্বর উপলক্ষে আমাদের প্রস্তুতি চলছে। বিভিন্ন অঙ্গসংগঠন এটি নিয়ে প্রস্তুতি সভা করছে। আমরা আশা করি, ৭ নভেম্বরের ১০ দিনব্যাপী কর্মসূচি সফল হবে।”

সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের সমাবেশে দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া থাকবেন কিনা প্রশ্ন করা হলে রিজভী বলেন, “আমরা বড় সমাবেশ করব, ম্যাডাম থাকবেন কিনা এটা পরে জানানো হবে।”

পঁচাত্তরের ১৫ অগাস্ট বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের পর টালমাটাল পরিস্থিতিতে ৩ নভেম্বর খালেদ মোশাররফের নেতৃত্বে অভ্যুত্থানে গৃহবন্দি হওয়ার পর পাল্টা অভ্যুত্থানে তৎকালীন সেনাপ্রধান জিয়াউর রহমান ৭ নভেম্বর মুক্ত হন।

এর মধ্য দিয়ে জিয়া ক্ষমতার কেন্দ্রবিন্দুতে চলে আসেন, হন দেশের প্রথম সামরিক আইন প্রশাসক। পরে সামরিক আইন প্রশাসক থেকে রাষ্ট্রপতি হয়ে তিনি বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি গঠনে ভূমিকা রাখেন।

বর্তমানে আওয়ামী লীগের জোটশরিক জাসদ এই দিনটিকে ‘সিপাহী-জনতার অভ্যুত্থান’ দিবস হিসেবে পালন করে। আওয়ামী লীগ পালন করে ‘মুক্তিযোদ্ধা সৈনিক হত্যা দিবস’ হিসেবে, বিএনপির চোখে দিনটি ‘বিপ্লব ও জাতীয় সংহতি দিবস’।

দিনটি উপলক্ষে বৃহস্পতিবার দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সভাপতিত্বে দলের যৌথ সভায় ৫ নভেম্বর থেকে ১৫ নভেম্বর পর্যন্ত ১০ দিনব্যাপী কর্মসূচি ঘোষণা করে। ওই কর্মসূচিতে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ করার কোনো কর্মসূচি ছিল না।

একদিন পর দলটির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম-মহাসচিব রিজভীর কাছ থেকে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশের নতুন কর্মসূচির ঘোষণা এল।

সংবাদ সম্মেলনে দলের চেয়ারপারসনের ‍উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য আবদুস সালাম, সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু, কেন্দ্রীয় নেতা সানাউল্লাহ মিয়া, মাসুদ আহমেদ তালুকদার, হাবিবুল ইসলাম হাবিব, আজিজুল বারী হেলাল, মীর সরফত আলী সপুসহ অন্য নেতারা উপস্থিত ছিলেন।