আশ্রায়ন প্রকল্পের মত চ্যালেজিং প্রকল্প পৃথিবীর কোন রাষ্ট্র প্রধান গ্রহনে সাহস করেনি — বিভাগীয় কমিশনার আমিন উল আহসান

আরিফ হোসেন আরিফ হোসেন

বাবুগঞ্জ প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ১১:৪৮ অপরাহ্ণ, জুলাই ৩, ২০২২ | আপডেট: ৩:২৫:পূর্বাহ্ণ, জুলাই ৪, ২০২২

আরিফ হোসেন,বাবুগঞ্জ, বরিশাল : বরিশালের বাবুগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারিবৃন্দ,বীর মুক্তিযোদ্ধাবৃন্দ , জনপ্রতিনিধিবৃন্দ, শিক্ষকমন্ডল, বেসরকারি সংস্থাসমুহের প্রতিনিধি, প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ এবং সুধিজনদের সাথে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে বরিশাল বিভাগীয় কমিশনার,বাংলাদেশ সরকারের অতিরিক্ত সচিব মো. আমিন উল আহসান বলেন,’ দেশে একটি পরিবারও ভূমিহীন ও গৃহহীন থাকবে না। আর সেই লক্ষ্যে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গৃহীত সাহসী আশ্রায়ন প্রকল্পের মাধ্যমে দেশজুড়ে খাস জমিতে ঘর নির্মান করে দিচ্ছে সরকার। খাস জমি না থাকলে জমি কিনে ভূমিহীনদের জন্য গৃহ নির্মান করে দেওয়া হচ্ছে। এরকম সাহসী পদক্ষেপ পৃথিবীর কোন রাষ্ট্র প্রধান গ্রহনে সাহস করেনি।
অচিরেই দেশ গৃহহীন ও ভূমিহীন মুক্ত ঘোষণা করা হবে। আমাদের সকলের উচিত প্রধানমন্ত্রীর গৃহীত প্রকল্প বাস্তবায়নে সকলের একসাথে কাজ করা । ইতিমধ্যে আমরা পদ্মাসেতুর সুফল ভোগ করছি। আজ সকালে আমি নিজেই ২ ঘন্টা ২০মিনিটে সড়কপথে পদ্মা সেতু হয়ে বরিশালে পৌঁছাতে পেরেছি। পদ্মা সেতুর মাধ্যমে বিশ্বের কাছে গর্বিত জাতী হিসাবে মাথা উচু করেছে।
প্রথমিক পর্যায়ে শিক্ষার্থীদের শতভাগ উপস্থিতি ও মানসম্মত পড়া লেখা নিশ্চিত করতে জবাবদিহিতার আওতায় আনতে হবে। দক্ষিনাঞ্চলে শিক্ষা ব্যবস্থার বেহাল দশা। এরকম চলতে থাকলে আগামী দশ বছর পর এ অঞ্চলে বড় কোন সরকারি কর্মকর্তা খুঁজে পাওয়া যাবে না। প্রাথমিকের অবস্থা নড়বড়ে হলে ভবিষ্যতে নেতৃত্বস্থানীয় কেউ তৈরি হবে না’।

তিনি সরকারি কর্মকর্তা ও কর্মচারিদের উদ্দিশ্যে বলেন, ‘অভিযোগ আছে কিছু দপ্তরে পয়সা ছাড়া সেবা মেলে না। তাদের উদ্দিশ্যে বলি সরকারি বেতন-ভাতা, রুজি হালাল করে ভোগ করুন। কোন অভিযোগ প্রমান সাপেক্ষে পেলে কাউকে ছাড় দেয়া হবে না। ঘুষ ও দুর্নিতীর বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স দেখাতে ঘোষণা দেওয়া আছে।
এ ক্ষেত্রে আমাদের সেবা প্রত্যাশিদের গাফিলতি রয়েছে। কেউ কেউ কাজ আদায় করে নিতে দালাল খুঁজে নেন। এভাবে চলতে থাকলে সরকারি অফিস কখনও দালাল মুক্ত হবে না। আমাদের সেবা প্রত্যাশিদের আগে সচেতন হতে হবে’।


রোববার(৩জুলাই) উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো.আমীনুল ইসলামের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বরিশাল জেলা প্রশাসক জসীম উদ্দীন হায়দার, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কাজী ইমদাদুল হক দুলাল, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এসএম খালেদ হোসেন স্বপন, সাধারণ সম্পাদক মৃধা মুহাম্মদ আক্তার উজ জামান মিলন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ইকবাল আহম্মেদ আজাদ, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফারজানা বিনতে ওহাব, এয়ারপোর্ট থানার ওসি কমলেশ চন্দ্র হালদার, বাবুগঞ্জ থানার ওসি মাহাবুবুর রহমান, বীর প্রতীক রত্তন আলী শরিফ প্রমুখ।
এর আগে উপজেলার সার্বিক বিষয়াদি ডিজিটাল পর্দায় তুলে ধরেন উপজেলা সহকারী কমিশনার(ভূমি) মো. মিজানুর রহমান।

শিশু বিষায়ক কর্মকর্তা মোঃ ইসমাইল হোসেন এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন চাঁদপাশা ইউপি চেয়ারম্যান দেলোয়ার হোসেন রাড়ী, দেহেরগতি ইউপি চেয়ারম্যান মশিউর রহমান, কেদারপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান নুরে আলম বেপারি, মাধবপাশা ইউনিয়ন চেয়ারম্যান সিদ্দিকুর রহমান, জাহাঙ্গীর নগর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান কামরুল আহসান হিমু খানসহবীর মুক্তিযোদ্ধাবৃন্দ, সরকারি কর্মকর্তা- কর্মচারিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে বিভাগীয় কমিশনার মো.আমিন উল আহসান ও জেলা প্রশাসক জসীম উদ্দীন হায়দার উপজেলা চত্তরে বৃক্ষ রোপণ করেন।

Print Friendly, PDF & Email