রায় ঘিরে বিএনপি-আ’লীগ মুখোমুখি

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ১১:২৬ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২৬, ২০১৮ | আপডেট: ১১:২৬:অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২৬, ২০১৮
রায় ঘিরে বিএনপি-আ’লীগ মুখোমুখি

আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার রায় ঘোষণা করা হবে। বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া এ মামলার প্রধান আসামি। এ রায়কে ঘিরে দেশের রাজনীতির দুই প্রধান দল আওয়ামী লীগ ও বিএনপি মুখোমুখি অবস্থান নিয়েছে। পাল্টাপাল্টি হুশিয়ারি দিচ্ছেন দু’দলের নেতারা।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় হুশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, খালেদা জিয়ার মামলায় নেতিবাচক কোনো রায় হলে তার পরিণতি হবে ভয়াবহ। পাল্টা হুশিয়ারি দিয়ে আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হাছান মাহমুদ বলেছেন, খালেদা জিয়ার মামলার রায় নিয়ে দেশে আবার কোনো জ্বালাও-পোড়াও হলে তাতে বিএনপিই পুড়ে ছারখার হয়ে যাবে।

এদিকে বৃহস্পতিবার খালেদা জিয়ার রায়ের তারিখ ঘোষণার পরই বিএনপি নেতা রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, তার দলের নেত্রীকে জেলে নেয়ার চেষ্টা হলে দেশে আগুন জ্বলবে।

অন্যদিকে খালেদা জিয়ার মামলার রায় কেন্দ্র করে কেউ বিশৃংখলা সৃষ্টির চেষ্টা করলে ছাড় দেয়া হবে না বলে হুশিয়ারি দিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। শুক্রবার ঢাকেশ্বরী মন্দিরে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, আইন সবার জন্য সমান। রায়ের পরিপ্রেক্ষিতে কেউ বিশৃংখলার চেষ্টা করলে উপযুক্ত ব্যবস্থা নেয়া হবে। আমাদের আইনশৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনী এ বিষয়ে সতর্ক আছে। রায় ঘিরে কেউ ‘বিশৃংখলা বা ধ্বংসাত্মক কার্যকলাপের’ চেষ্টা করলে আইনশৃংখলা বাহিনী ‘প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা’ নেবে।

অপরদিকে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, বিএনপিকে বাদ দিয়ে নির্বাচন করতে চায় বলেই তাড়াহুড়ো করে খালেদা জিয়ার মামলার রায় দিচ্ছে সরকার। শুক্রবার রাজধানীতে প্রয়াত কথাসা‌হি‌ত্যিক শওকত আলী‌র শোকসন্তপ্ত প‌রিবা‌রের সঙ্গে দেখা করার পর সাংবা‌দিক‌দের তিনি বলেন, দ্রুততার স‌ঙ্গে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলা শেষ করার চেষ্টা করা হ‌চ্ছে। আমা‌দের চেয়ারপারস‌নের আইনজী‌বীরা পরিষ্কার ব‌লে দি‌য়ে‌ছেন যে, জা‌স্টিস হা‌রিড ইজ জা‌স্টিস বেরিড।

এদিকে শুক্রবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে লাউঞ্জে নাগরিক অধিকার আন্দোলন ফোরাম আয়োজিত ‘আরাফাত রহমান কোকোর তৃতীয় মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা ও স্মরণসভায় গয়েশ্বর বলেছেন, জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার রায় হবে ৮ ফেব্রুয়ারি। সেদিন নেতিবাচক কোনো কিছু হলে এই সরকারের পতন ত্বরান্বিত হবে। সময় বলে দেবে কারা রাজপথে থাকবে।

রায়কে ঘিরে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি নেতাদের মধ্যে পাল্টাপাল্টি উত্তপ্ত বক্তব্যের মধ্যে শনিবার রাতে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্যদের নিয়ে জরুরি বৈঠকে বসছেন খালেদা জিয়া।

উল্লেখ্য, আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলার রায় ঘোষণা করবে ঢাকার পঞ্চম জজ আদালত। দুই কোটি ১০ লাখ টাকা আত্মসাতের এ মামলার প্রধান আসামি খালেদা জিয়া ছাড়া এ মামলার অন্য আসামিরা হলেন- বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমান, মাগুরার সাবেক সংসদ সদস্য (এমপি) কাজী সালিমুল হক কামাল, ব্যবসায়ী শরফুদ্দিন আহমেদ, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সাবেক সচিব কামাল উদ্দিন সিদ্দিকী ও সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ভাগনে মমিনুর রহমান।

অভিযোগ প্রমাণিত হলে এ মামলায় খালেদা জিয়ার সর্বোচ্চ যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হতে পারে। সেক্ষেত্রে আগামী নির্বাচনে অংশ নেয়ার অযোগ্য হয়ে পড়বেন সাবেক এ প্রধানমন্ত্রী।

  • যুগান্তর