বিশ্বের ক্ষমতাধরের তালিকায় প্রিয়াঙ্কা

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ৮:৪০ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ৩, ২০১৭ | আপডেট: ৮:৪০:পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ৩, ২০১৭
বিশ্বের ক্ষমতাধরের তালিকায় প্রিয়াঙ্কা

বিশ্বের ক্ষমতাধর ১০০ নারীর তালিকায় আছেন বলিউড তারকা প্রিয়াংকা চোপড়া। যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক সাময়িকী ফোর্বসের করা এ তালিকায় আছেন জার্মানির চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেল, যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে, যুক্তরাষ্ট্রের মেলিন্ডা গেটস, সেরিল স্যান্ডবার্গের মতো ক্ষমতাধর ব্যক্তিত্বের নাম।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস ও এনডিটিভির খবরে বলা হয়েছে, ফোর্বস ম্যাগাজিনের ক্ষমতাধরদের তালিকায় প্রিয়াংকার নাম সম্মিলিতভাবে শেষের দিকে অর্থাৎ ৯৭ নম্বরে আছেন। তবে বুধবার প্রকাশিত ফোর্বসের বিশেষ ক্যাটাগরিতে তিনি এগিয়ে রয়েছেন। বিনোদন এবং মিডিয়া জগতের শীর্ষ ১৫ জনের তালিকায় প্রিয়াংকার নাম উঠেছে। মার্কিন সংগীত তারকা বিয়ন্স (০৪), মার্কিন সংগীত শিল্পী টেলর সুইফট (১২) এবং যুক্তরাজ্যের তুমুল জনপ্রিয় ‘হ্যারি পটার’ সিরিজের লেখক জে কে রাউলিংয়ে (১৩) মতো পরিচিত এবং খ্যাতিসম্পন্ন মুখও আছে বিনোদন এবং মিডিয়া জগতের তালিকায়।

দ্বিতীয়বারের মতো অ্যামি অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠান উপস্থাপনা করা প্রিয়াংকা বলিউডের জনপ্রিয় এক তারকা। নিজের অবস্থান করে নিচ্ছেন হলিউডেও। ইতিমধ্যে এগিয়েছেন অনেক দুর। মার্কিন টেলিভিশন সিরিজ কোয়ান্টিকো দিয়ে যাত্রা শুরু। এরই মধ্য করছেন হলিউডের ‘বেওয়াচ’। আর এখন কোয়ান্টিকো সিরিজের তৃতীয় ধাপের শুটিংয়ে ব্যস্ত যুক্তরাষ্ট্রে।

তবিশ্বের ক্ষমতাধর ১০০ নারীর তালিকায় প্রিয়াংকার সঙ্গে এবার নতুন মুখ হিসেবে জায়গা করে নিয়েছেন এ বছর সব হিসাব উল্টে দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়া ডোনাল্ড ট্রাম্পের মেয়ে ইভাঙ্কা ট্রাম্প।

বুধবার বিশ্বের ক্ষমতাধর নারীদের নতুন এই তালিকা প্রকাশ করেছে ফোর্বস। এতে ক্ষমতাধর ১০০ নারীর তালিকা দেওয়ার পাশাপাশি বিশ্বের রাজনীতিতে সবচেয়ে ক্ষমতাধর ২১ জনের নাম স্থান পেয়েছে।

এর আগে এ বছরের শুরুতে ফোর্বসের করা এক তালিকায় বলিউডের শীর্ষ ১০ পারিশ্রমিক পাওয়া তারকার (পুরুষ এবং নারী) মধ্য প্রিয়াংকার অবস্থান ছিল ৭-এ।

তবে শুধু সিনেমায় অভিনয় নিয়েই এখন ব্যস্ত নয় প্রিয়াংকা। নিজেকে তিনি যুক্ত রেখেছেন সামাজিক নানান কর্মকাণ্ডে। আন্তর্জাতিক সংস্থা ইউনিসেফের দূত হয়ে কাজ করছেন। সংস্থাটির ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হয়ে তিনি এরই মধ্য আফ্রিকাতেও কাজ করে এসেছেন।