শেষ হলো ইয়ুথ বাংলার ‘ইয়ুথ এন্টারপ্রেনিউরিয়াল ফেস্টিভ্যল’

প্রকাশিত: ৬:৪৮ অপরাহ্ণ, মার্চ ২১, ২০২১ | আপডেট: ৬:৪৮:অপরাহ্ণ, মার্চ ২১, ২০২১

তুষার ইমরান: শেষ হলো ইয়ুথ বাংলার ‘ এন্টারপ্রেনিউরিয়াল ফেস্টিভ্যল” । তিনদিন ব্যাপী আয়োজিত এই ফেস্টিভ্যল গতকাল রবিবার শেষ হয়েছে। উল্লেখ্য, ইয়ুথ বাংলা কালচারাল ফাউন্ডেশন (YBCF) বরাবরই বাংলাদেশের ঐতিহ্য, সংস্কৃতি ও মানব কল্যাণের জন্য কাজ করে আসছে। ‘তরুণ শক্তির উৎকর্ষে’ ‘ এই শ্লোগান নিয়ে এবার অনুষ্ঠিত হয়েছিলো তরুণ উদ্যোক্তাদের নতুন প্ল্যাটফর্ম ‘ইয়ুথ এন্টারপ্রেনিউরিয়াল ফেস্টিভ্যাল। তিনব্যাপি আয়োজিত এই ফেস্টিভ্যল গত ১৯ শুরু হয়ে গতকাল (২১ মার্চ) শেষ হয়েছে। ইয়ুথ বাংলা কালচারাল ফাউন্ডেশন বঙ্গবন্ধুর আদর্শও চেতনায় উজ্জীবিত শিল্প ও সংস্কৃতি কর্মীদের নিয়ে একটি অলাভজনক প্রতিষ্ঠান এবং অনেক সামাজিক ও সাংস্কৃতিক কাজ ইয়ুথ বাংলা কালচারাল ফাউন্ডেশন।এই ফেস্টিভ্যলের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, ইয়ুথ বাংলা কালচারাল ফাউন্ডেশন এর প্রধান পৃষ্ঠপোষক সীমা হামিদ, সভাপতি তাহমিনা জাহান, উপদেষ্টা শর্মিলী আহমেদ, দিলারা জামান, রিপন খান, শম্পা রেজা, মেজর (অব.) শওকত হোসেন, আওয়ামী যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য এ কে এম আহ্সানুল হক চৌধুরী ডিউক, এমপি (রংপুর-২), দেওয়ান হাবিব, সঙ্গীত শিল্পী এস আই টুটুল, কুমার বিশ্বজিৎ, আখিঁ আলমগীর, আবৃত্তিকার শিমুল মুস্তাফা, ডা. মশিউর রহমান সহ আরো একঝাঁক শিল্পীরা। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে সংগঠনের সভাপতি মুনা চৌধুরী বলেন, ‘করোনার প্রথম দিকে উদ্যোক্তারা যখন এক প্রকার দিশেহারা হয়ে পড়েন তখন আমরা অনুধাবন করি আমাদের তরুণদের একটি প্লাটফর্ম প্রয়োজন যার উদ্দেশ্য হলো দক্ষ উদ্যোক্তা তৈরি করা ও তাদের নিজেদের পণ্য ব্র্যান্ডিং সম্পর্কে প্রয়োজনীয় তথ্য দিয়ে সহায়তা করা। অনুষ্ঠানে উদ্যোক্তাদের নিজেদের পণ্য যেমন জামদানী শাড়ী, মসলিন শাড়ী, জুয়েলারি, ক্ষুদ্রও হস্তশিল্প প্রদর্শন করা হয়। অনুষ্ঠানের মূল আকর্ষণ তরুণদের সঠিক দিক নির্দেশন দেয়া এর জন্য সবাইকে এক ছাদের নিচে আনার প্রচেষ্টা।” সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক তরুন আইনজীবী চিত্রনায়ক ব্যারিস্টার আমান রেজা বলেন,’ ক্ষুদ্র উদ্দ্যেক্তাদের এক ছাদের নিচে আনার চেষ্টা করেছি। সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙ্গালি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের যোগ্য কন্যা আমাদের সকলের প্রিয় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে অদম্য গতিতে ধারাবাহিকভাবে এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ। আমরা ইয়ুথ বাংলা কালচারাল ফাউন্ডেশন আমাদের সংস্কৃতির মাধ্যমে দেশে বিদেশে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর এই উন্নয়ন কর্মকান্ড তুলে ধরে যাচ্ছি। চিত্রনায়ক আমান আরও বলেন,’ ইতিমধ্যে পরপর দুইবার যুক্তরাজ্যে এবং সংযুক্ত আরব আমিরাতে ‘জয় বাংলা উৎসব’ এর মাধ্যমে আমরা সফলভাবে এদেশের সাম্প্রতিক উন্নয়নকে তুলে ধরেছি। এছাড়াও জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর আদর্শও চেতনাকে প্রজন্মের কাছে অব্যাহতভাবে পৌছে দিচ্ছি। বঙ্গবন্ধুর দৌহিত্রী এবং জননেত্রী শেখ হাসিনার কন্যা সায়মা ওয়াজেদ পুতুল এর হাত ধরে ‘ইয়ুথ বাংলা কালচারাল ফাউন্ডেশন’ এর পথ চলা শুরু।’