নেত্রকোনায় উম্মুক্ত নদীতে জেলেদের মাছ শিকারে বাধাসৃষ্টি করার প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ৬:৩৫ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০২১ | আপডেট: ৬:৩৫:অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০২১

নেত্রকোনা প্রতিনিধিঃ নেত্রকোনা জেলার মোহনগঞ্জ উপজেলার তেঁতুলিয়া ইউনিয়নে কতিপয় প্রভাবশালী লোকজন জলটুনাই নদীতে বিষ প্রয়োগ করে মাছের প্রজাতি ধংস ও উম্মুক্ত এই নদীতে জেলেদের মাছ শিকারে বাধাসৃষ্টি করার প্রতিবাদে গতকাল বিকেলে মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী।

এ বিষয়ে স্হানীয় জেলেরা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাসক বরাবর ছয় জনের নাম উল্লেখ করে অভিযোগ দায়ের করেও কোন প্রতিকার পাচ্ছে না।

অভিযোগে জানা যায়, স্হানীয় কিছু প্রভাবশালী দখলদাররা অবৈধভাবে উম্মোক্ত এই নদীতে মেশিন দিয়ে পানি শুকিয়ে ও বিষ প্রয়োগ করে মাছের বংশ বিনষ্ট করছে।এতে করে হারিয়ে যাচ্ছে মাছের প্রজাতি এবং রুদ্ধ হয়ে গেছে জেলেদের জীবন জীবিকা।

অথচ আইন অনুযায়ী গেজেটে ভূমি মন্ত্রণালয়ের অধিশাখা- ৭ ও বিবিধ-১১/৯৫/৫৭৬ এর আদেশ মূলে এ নদীর মাছ দরিদ্র জেলে সম্প্রদায়ের জীবন মান উন্নয়নে উম্মোক্ত ঘোষনা করা হয়েছে।

কিন্তু সরকারের আইনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে একশ্রেণীর স্বার্থন্বেষী মহল রাজনৈতিক প্রভাব খাটিয়ে জোর পূর্বক নদীটি দখলে নিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকার মাছ আহরন করছে। এতে করে স্হানীয় মৎস্যজীবী জেলে সম্প্রদায়ের জীবন জীবিকার পথ রুদ্ধ হয়ে গেছে এবং বেকার হচ্ছে শতশত জেলে।

অভিযোগের ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আরিফুল ইসলাম বলেন, অভিযোগটি পাওয়ার পর সাথে সাথে আমি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও ভূমি অফিসের নায়েবকে অবহিত করেছি। নদীতে অবৈধভাবে মাছ শিকার করলে তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্হা গ্রহন করা হবে।