কালকিনি পৌর নির্বাচনে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন ঘিরে চরম বিতর্ক

নাজমুল হক নাজমুল হক

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদক

প্রকাশিত: ১১:২৮ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৪, ২০২১ | আপডেট: ১১:২৮:অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৪, ২০২১

মাদারীপুর প্রতিনিধি:

মাদারীপুরের কালকিনি পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামীলীগ প্রার্থীর মনোনয়ন নিয়ে বিতর্ক দেখা দিয়েছে। এরই মধ্যে মনোনয়নের প্রতিবাদে কালকিনি আওয়ামীলীগের একাংশ বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে নেতা-কর্মীরা। অপর অংশ আওয়ামীলীগ মনোনিত প্রার্থী এসএম হানিফের পক্ষে আনন্দ মিছিল করেছে। এই মনোনয়ন ঘিরে কোটি টাকা বাণিজ্যের অভিযোগ উঠেছে। একপক্ষের দাবী, এসএম হানিফ এক সময় বিএনপির নেতা ছিলেন। তিনি নতুন এসে আওয়ামীলীগে যোগ দিয়েছে।
জানা গেছে, আসন্ন কালকিনি পৌর নির্বাচনে আওয়ামলীলীগ থেকে মনোনয়ন পেয়েছে এসএম হানিফ। বুধবার রাতে কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগ থেকে এই মনোনয়ন চুড়ান্ত করা হয়। তবে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন চুড়ান্ত হওয়ার পরই দেখা দিয়েছে বিকর্ত।
কালকিনি পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এনায়েত হোসেন হাওলাদার দাবী করেছেন, যাকে মনোনয়ন দেয়া হয়েছে, তিনি সাবেক বিএনপি নেতা। গত বিএনপি সরকারের আমলে বিএনপির রাজনীতির সাথে সক্রিয়ভাবে জড়িত ছিলেন এসএম হানিফ। এছাড়াও তার আপন ছোট ভাই মানিক সরদার উপজেলা যুবদলে সক্রিয় নেতা। তার স্ত্রীর আপন বড় ভাই মিজানুর রহমান উপজেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক ও পৌর বিএনপির সাবেক আহবায়ক। আমরা নৌকার বিরুদ্ধে নই। আমরা ব্যক্তির বিরুদ্ধে। বিতর্কিত বিএনপির লোককে নৌকা দেয়ার কারনে এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে অবস্থান।
কালকিনি উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সংরক্ষিত আসনের এমপি আধ্যাপিকা তাহমিনা সিদ্দিকী জানান, হানিফ আওয়ামলীগ করতো না। তবে বিএনপির কমিটিতে ছিলো কিনা তাও আমি জানি না। বিএনপিতে ছিলো এমন কোন কাগজ আমি পাইনি। তবে ওরা আগে আওয়ামীলীগ করতো না। ২০০৩ সালে ৭জনকে আওয়ামীলীগে কোআপ করা হয়। সেই ৭জনের একজন ছিলো হানিফ। এব্যাপারে আওয়ামীলীগের মনোনয় প্রাপ্ত নেতা এসএম হানিফ বলেন, আমি আওয়ামলীগ করি সেই কারনেই জননেত্রি শেখ হাসিনা আমাকে নৌকা প্রতীক দিয়েছে।

জিএম/হক