বীরগঞ্জে ৩য় বারের পৌর নির্বাচনে ৫ মেয়র প্রার্থীর প্রচারনা জমজমাট, প্রথম বারের মতো ইভিএমে ভোট গ্রহন

এন.আই.মিলন এন.আই.মিলন

দিনাজপুর প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ৬:৫৬ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৩, ২০২১ | আপডেট: ৬:৫৭:অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৩, ২০২১

এন.আই.মিলন, দিনাজপুর প্রতিনিধি- দিনাজপুরের বীরগঞ্জে ৩য় বারের পৌর নির্বাচনে ৫ মেয়র প্রার্থীর প্রচারনা জমজমাট, প্রথম বারের মতো ইভিএমে ভোট গ্রহন ১৬ জানুয়ারী।

সারাদেশের ন্যয় ২য় ধাপে দিনাজপুরের বীরগঞ্জ পৌরসভার ৩য় তম পৌর নির্বাচনে প্রথম বারের মতো ইভিএমের ভোটে ৫ মেয়র প্রার্থীর প্রচারনা চলছে জমজমাট ভাবে, পাশাপাশি সংরক্ষিত মহিলা ৩টি ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে ১৩ জন এবং সাধারন ৯টি ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে ৪১ জন প্রার্থী প্রতিদন্দীতা করছেন। ৯টি ওয়ার্ডে পুরুষ ভোটার ৭.৫১৩, মহিলা ৮.০৩২ মোট ১৫ হাজার ৫৪৫ জন ভোটার রয়েছে। ৯টি ভোট কেন্দ্রে ৪৯টি বুথ রয়েছে।

নির্বাচনে পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি বর্তমান মেয়র মোঃ মোশারফ হোসেন বাবুল (মোবাইল ফোন মার্কার সতন্ত্র প্রার্থী), জামায়াত সমর্থীত সাবেক মেয়র মাওলানা মোঃ হানিফ (জগ মার্কার সতন্ত্র প্রার্থী), আ’লীগের প্রার্থী উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক মোঃ নুর ইসলাম নুর (নৌকা প্রতীক), জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির প্রার্থী মোঃ মোকারম হোসেন পলাশ (ধানের শীষ প্রতীক) ও ইসলামী আন্দলন বাংলাদেশ এর প্রার্থী মোঃ শাহ আলম (হাত পাখা মার্কা) নিয়ে প্রতিদন্দীতা করছেন।

গত ২০১৯ সালে ১৫ এপ্রিল উপ নির্বাচনে বর্তমান মেয়র সতন্ত্র প্রার্থী মোঃ মোশারফ হোসেন বাবুল পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি হয়েও দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে সতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে মোবাইল প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করে বিজয়ী হয়েছেন। এবারো তিনি সতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে নির্বাচন করছেন।

নৌকা প্রতীক নিয়ে আ’লীগের প্রার্থী উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক মোঃ নুর ইসলাম নুর গত পৌর উপ নির্বাচনেও প্রতিদন্দী প্রার্থী ছিলেন।

সতন্ত্র প্রার্থী সাবেক মেয়র জামায়াতের সাবেক উপজেলা আমীর মাওলানা মোঃ হানিফ পৌর মেয়র থাকা অবস্থায় পদত্যাগ করে ২০১৯ সালে জাতীয় নির্বাচনে অংশগ্রহন করায় পদটি শুন্য হয়ে উপ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।

নতুন মুখ মোঃ মোকারম হোসেন পলাশ ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে প্রতিদন্দীতা করছেন জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির প্রার্থী পৌর যুব দলের সাধারন সম্পাদক। তিনি ৫নং সুজালপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যন মরহুম তজাম্মেল হক তজ মাষ্টারের পুত্র।

নতুন মুখ ইসলামী আন্দলন বাংলাদেশ এর প্রার্থী মোঃ শাহ আলম (হাত পাখা মার্কা) প্রতীক নিয়ে প্রতিদন্দীতা করছেন।

উল্লেক্ষ, বীরগঞ্জ উপজেলা শহরের ৫নং সুজালপুর ইউনিয়নের ৪টি মৌজার আংশিক এলাকার ৬.৩০বর্গ কি.মি. আয়তন নিয়ে গত ২০০২ সালে ১৫ জুন স্থাপিত হয়ে কার্য্যক্রম শুরু করেন। সুজালপুর ইউনিয়ন পরিষদের ১টি অস্থায়ী রুমে সে সময়বীরগঞ্জ উপজেলার তৎকালীন নির্বাহী অফিসার এস.এম আশরাফুজ্জামান প্রথম পৌর প্রশাসক হয়ে বীরগঞ্জ পৌরসভা সল্প সময়ে সরকারের সু-দৃষ্টিতে ২০০৬ সালের ১১ সেপ্টেম্বর সরকার পৌরসভাটিকে ’গ’শ্রেণী হতে খ’শ্রেণীতে উন্নীত করেন এবং গত ২০১১ সালে আনুষ্ঠানিক ভাবে প্রথম ও ২০১৫ সালে ২য় পৌর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ২ বারের নির্বাচনে জামায়াতের প্রার্থী মাওলানা মোহাম্মদ হানিফ বিজয়ী হয়।