সিঁড়ি পেরোনোও ব্যায়াম

জি এম নিউজ জি এম নিউজ

বাংলার প্রতিচ্ছবি

প্রকাশিত: ৯:৩২ পূর্বাহ্ণ, জানুয়ারি ১৮, ২০১৮ | আপডেট: ৯:৩২:পূর্বাহ্ণ, জানুয়ারি ১৮, ২০১৮
সিঁড়ি পেরোনোও ব্যায়াম

কর্মব্যস্ত জীবনে মানুষ চায় কষ্টহীন আরামের জীবন। জীবনকে সহজ করার জন্য অনেক কিছুই নিজের আয়ত্বে এনেছে মানুষ।

যেমন- বহুতল ভবনে ওঠানামার সুবিধার্থে মানুষ সিঁড়ির বিকল্প হিসেবে লিফট ব্যবহার করে। সিঁড়ি দিয়ে ওঠানামা করলে স্বাভাবিকভাবেই অনেক পরিশ্রম হয়, হাঁপিয়ে উঠি আমরা। কিন্তু সিঁড়ি ব্যবহার একধরনের ব্যায়াম, তা অনেকেরই অজানা। বহুতল ভবনে ওঠানামায় নিয়মিত সিঁড়ি ব্যবহার করলে ওজন বৃদ্ধির আশঙ্কা কমে যায়। হৃদযন্ত্রের কার্যক্ষমতাও বাড়ে। এর রয়েছে আরও কিছু উপকারিতা। দেখে নেই সিঁড়ি ব্যবহারে কী উপকার হতে পারে আমাদের-

কর্মক্ষমতা বৃদ্ধি পায়

গবেষণায় দেখা গেছে লিফটের পরিবর্তে সিঁড়ি ব্যবহার করলে অঙ্গপ্রত্যঙ্গ ও পেশী শক্তিশালী এবং বেশি কর্মক্ষম হয়ে ওঠে। ফলে রোগ প্রতিরোধ ও কর্মক্ষমতা বৃদ্ধি পায়।

হৃদযন্ত্রের কার্যক্ষমতা বাড়ে

সিঁড়ি দিয়ে ওঠানামা করার সময় সারা শরীরে অক্সিজেন সমৃদ্ধ রক্তের সরবরাহ বেড়ে যায়। সেই সঙ্গে হৃদযন্ত্রের কর্মক্ষমতা বাড়তে শুরু করে। ফলে স্বাভাবিকভাবেই কার্ডিওভাসকুলার রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা কমে যায়। হৃদরোগে আক্রান্তদের তাই সিঁড়ি ব্যবহার করা উচিত।

পায়ের পেশীর সচলচতা বাড়ে

সিঁড়ি দিয়ে ওঠানামার সময় আমরা মাধ্যাকর্ষণ শক্তির বিপরীতমুখী হই। তাই এই সময় নিজের ওজন সামলে সিঁড়ির ধাপ বেয়ে ওপরে ওঠার সময় পায়ের পেশীতে চাপ পড়ে। এতে পায়ের নিচের অংশের কর্মক্ষমতা বৃদ্ধি পায়। তেমনি পেটের পেশীর সচলতাও বাড়তে থাকে। ফলে পেটের চর্বিও কমে।

হাড়ের স্বাস্থ্যের উন্নতি ঘটে

সিঁড়ি দিয়ে ওঠা নাম করলে `বোন ডেনসিটি’র উন্নতি ঘটতে শুরু করে। ফলে স্বাভাবিকভাবেই হাড় শক্তপোক্ত হতে শুরু করে। সেই সঙ্গে আর্থ্রাইটিসেরমতো রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কাও কমে যায়। এই কারণেই ৪০ পেরোনো নারীদের লিফটের পরিবর্তে সিঁড়ি ব্যবহারের পরামর্শ দিয়ে থাকেন চিকিৎসকেরা।

শরীরের জয়েন্টের কর্মক্ষমতা বাড়ে

বয়সের সঙ্গে শরীরে জয়েন্টের সচলতাও কমতে শুরু করে। ফলে ব্যথা-বেদনা বাড়তে থাকে। এই অবস্থায় ভুলেও লিফট ব্যবহার করবেন না। কারণ সিঁড়ি ব্যবহার করলে জয়েন্টের কর্মক্ষমতা বেড়ে যায়।

এটা জিমের মতোই কার্যকর

হিসাব মতে, জিমে গিয়ে ৩০ মিনিট ঘাম ঝরানোর সমান উপকার পাওয়া যায় সিঁড়ি ব্যবহার করলে। গবেষণায় দেখা গেছে, সিঁড়ি দিয়ে দ্রুত ওঠানামা করলে যে পরিমাণ ক্যালরি খরচ হয়, তা অন্য কোনো ব্যায়ামে হয় না।

একসঙ্গে দুই ধাপ

গবেষণায় দেখা গেছে সিঁড়ির এক ধাপের চেয়ে দুই ধাপ উঠলে উপকার বেশি। এতে শরীরের উপকারি হরমোনের ক্ষরণ যেমন বেড়ে যায়, তেমনি শরীরের প্রতিটি পেশীর কর্মক্ষমতা বৃদ্ধি পায়। সেই সঙ্গে অক্সিজেন সমৃদ্ধ রক্তের সরবরাহ বেড়ে যায়। ফলে স্বাভাবিকভাবেই প্রতিটি অঙ্গের কর্মক্ষমতাবৃদ্ধি পায়।

ওজন কমতে থাকে

অতিরিক্ত ওজন নিয়ে যারা চিন্তিত তারা তাদের জন্য সিঁড়ি দিয়ে ওঠানামা বেশ উপকারি। নিয়মিত সিঁড়ি ভাঙার অভ্যাস করলে শারীরিক সচলতা বাড়ে। সেই সঙ্গে শরীরে জমতে থাকা অতিরিক্ত ক্যালরি ঝরতে শুরু করে। ফলে স্বাভাবিকভাবেই ওজন কমার সম্ভাবনা থাকে।

 

  • বাংলা ইনসাইডার