অজ বিশ্ব প্রতিবন্ধী দিবস, ঝালকাঠিতে প্রায় ১৫হাজার প্রতিবন্ধী, ভাতা পাচ্ছেন ১১হাজার ৪০৬ জনে

প্রকাশিত: ৯:৫০ পূর্বাহ্ণ, ডিসেম্বর ৩, ২০২০ | আপডেট: ৯:৫০:পূর্বাহ্ণ, ডিসেম্বর ৩, ২০২০

অজ ৩ ডিসেম্বও বিশ্ব প্রতিবন্ধী দিবস। ঝালকাঠিতে এখনও শতভাগ প্রতিবন্ধী ভাতা ভুক্ত হয়নি। জেলায় বিভিন্ন বয়সের ১৪ হাজার ৮৭৫জন প্রতিবন্ধী নারী-পুরুষ এর মধ্যে ভাতা পাচ্ছেন ১১হাজার ৪০৬ জন।
জেলা সমাজ সেবা অধিদফতর সূত্রে জানা গেছে, জেলায় মোট অটিজম প্রতিবন্ধী ৬১৮জন, শারিরীক প্রতিবন্ধী ৬ হাজার ৮৮৯জন, মানসিক প্রতিবন্ধী ৮০৬জন, দৃষ্টি প্রতিবন্ধী ১ হাজার ৬৬৩জন, বাক প্রতিবন্ধী ৫৫৭ জন, বুদ্ধি প্রতিবন্ধী ৪৮৪জন, শ্রবণ প্রতিবন্ধী ৫৩৪জন এবং শ্রবণ-দৃষ্টি প্রতিবন্ধী ৮৫জন। উপবৃত্তি প্রাপ্ত শিক্ষার্থী রয়েছে প্রাথমিক স্তরে ৩৯৪ জন, মাধ্যমিক স্তরে ২৩০জন, উচ্চমাধ্যমিক স্তরে ৮৪জন, উচ্চতর স্তরে ৩৩জনসহ মোট ৭৪১জন প্রতিবন্ধী রয়েছেন। এ ছাড়া সেরিব্রাল পালসি ৩৪১জন, বহুমাত্রিক প্রতিবন্ধী ২০২২জন, ডাউনসিনড্রম ৪৮জন এবং অন্যান্য প্রতিবন্ধী রয়েছেন ৮৭জন।
সদর উপজেলায় প্রতিবন্ধী ভাতা পাচ্ছেন ২হাজার ৫৭২জনে, নলছিটি উপজেলায় ৩হাজার ২৪২জনে, রাজাপুর উপজেলায় ২হাজার ১৩১জনে এবং কাঠালিয়া উপজেলায় ২হাজার ২১২জনে। প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীদের মধ্যে উপবৃত্তি পাচ্ছেন সদর উপজেলায় প্রাথমিক স্তরে ৭১জন, মাধ্যমিক স্তরে ৩২জন, উচ্চমাধ্যমিক স্তরে ৭জন, উচ্চতর স্তরে ২জনসহ মোট ১১২জন। নলছিটি উপজেলায় প্রাথমিক স্তরে ৮৫, মাধ্যমিক স্তরে ৫০জন, উচ্চমাধ্যমিক স্তরে ১৬জন, উচ্চতর স্তরে ৮জনসহ মোট ১৫৯জন। রাজাপুর উপজেলায় প্রাথমিক স্তরে ৯৬জন, মাধ্যমিক স্তরে ৬৫জন, উচ্চমাধ্যমিক স্তরে ২৯জন, উচ্চতর স্তরে ৫জনসহ মোট ১৯৫জন। কাঠালিয়া উপজেলায় প্রাথমিক স্তরে ৭২জন, মাধ্যমিক স্তরে ৫৫জন, উচ্চমাধ্যমিক স্তরে ১৭জন, উচ্চতর স্তরে ৭জনসহ মোট ১৫১জন। ইউসিডি আকৃতিতে প্রাথমিক স্তরে ৭০, মাধ্যমিক স্তরে ২৮জন, উচ্চমাধ্যমিক স্তরে ১৫জন, উচ্চতর স্তরে ১১জনসহ মোট ১২৪জন। পরিসংখ্যান অনুযায়ী নলছিটি উপজেলায় প্রতিবন্ধীর সংখ্যা সবচেয়ে বেশি রয়েছে।
জেলা সমাজ সেবা অধিদফতেরের উপ-পরিচালক আঃ রশিদ খান জানান, ঝালকাঠিতে বিভিন্ন বয়সী প্রতিবন্ধী নারী-পুরুষ রয়েছেন ১৪হাজার ৮৭৫জন। তাদের মধ্যে ভাতা পাচ্ছেন ১১হাজার ৪০৬ জন। যেসব পরিবার দুস্থ, অসহায় সেসব পরিবারের প্রতিবন্ধীদের ভাতা প্রদানের আওতায় নেয়া হয়েছে।