থুতনিতে মাস্ক পরে ঘুরলে দ্বিগুণ জরিমানা!

প্রকাশিত: ৭:৫৩ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ২, ২০২০ | আপডেট: ৭:৫৩:অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ২, ২০২০

করোনার ভ্যা’কসিন বাজারে না আসা পর্যন্ত ভা’ইরাসটি নিয়ন্ত্রণে রাখতে মাস্কই একমাত্র ভ’রসা। তবে অনেকের মধ্যেই মা’স্ক ব্যবহারে রয়েছে অনীহা। এ অ’বস্থায় মাস্ক পরা নিশ্চিত করতে মাঠে নে’মেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। তবে সা’ধারণ মানুষ মাস্ক ঘরে রেখে বা’ইরে এসে নানা অজুহাত শোনা’চ্ছেন প্রশাসনকে। কিছু মা’নুষ মাস্ক পরলেও সেটা তারা থুতনিতে রেখে দিচ্ছেন।

র‌্যাবের ভ্রা’ম্যমাণ আদালতের ম্যাজিস্ট্রেট বলেন, সচেতনভাবে বি’ষয়টি অবহেলা করার জন্য এই ধরনের মানু’ষজনের দ্বিগুণ জরিমানা করা হচ্ছে।

বুধবার (২ ডিসেম্বর) রাজ’ধানীর যাত্রাবাড়ী চৌরাস্তা মো’ড়ে দুপুর ১২টা থেকে দেড়টা প’র্যন্ত র‌্যাব-১০-এর তত্ত্বা’বধানে অভিযান পরিচালনা ক’রেন র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পলাশ কুমার বসু। অভি’যানে ৩০ জন ব্যক্তিকে মাস্ক না পরার জন্য ২০০ থেকে ৫০০ টা’কা পর্যন্ত জরিমানা করেছেন এই আদালত। এ ছাড়া অ’ভিযানে ৬০০-৭০০ মাস্ক পথচারীদের মধ্যে বিত’রণ করা হয়।

অভিযান চলা’কালীন পলাশ বসু সাংবাদিকদের বলেন, আ’গের যে কোনও সময়ের চেয়ে মা’স্ক ব্যবহার করা বেড়েছে ব’লা যায়। এখন অনেকেই সচেতন হয়ে’ছেন। আমরা এই সচেতনতা ওপ’রে আরও জোর দিচ্ছি। তবে একটা প’র্যায়ে গিয়ে যদি তাদের সঙ্গে পে’রে ওঠা না যায়, সেক্ষেত্রে জরি’মানা বাড়িয়ে অভিযান আরও ক’ঠোর করা হবে।

র‌্যাবের এই নি’র্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট বলেন, নানা অ’জুহাত দিয়ে কিছু মানুষ মাস্ক ছাড়াই ঘর থে’কে বের হচ্ছেন। আবার একশ্রেণির মানু’ষকে পাবেন যারা মাস্ক পরলেও সেটি থুতনিতে ঝুলি’য়ে রাখছে। এমনও কিছু মানুষ’জনের জরিমানা করা হচ্ছে। তবে স্বাভাবিক জ’রিমানার চেয়ে এদের জরিমানা ডা’বল করা হচ্ছে।

ম্যাজিস্ট্রেট পলাশ কু’মার বসু বলেন, এখানে জরিমানা করা’টাই আমাদের মূল উদ্দেশ্য না। আ’মরা সাধারণ মানুষকে সচেতন ক’রতে চাই। যেন তাদের মা’ধ্যমে অন্য কারও মধ্যে এই ভয়াবহ ভা’ইরাস ছড়িয়ে না পড়ে। তারাও যেন নি’রাপদ থাকতে পারেন।

এই অ’ভিযানে নানা শ্রেণিপেশার ৩০ জনকে জ’রিমানা করা হয়েছে। আদালতের মু’খোমুখি হয়ে তারা নানা অজু’হাত দিচ্ছেন।