স্ত্রী-সন্তানকে হত্যার ১৪ বছর পর ফাঁসির আসামি গ্রেফতার

প্রকাশিত: ৯:০৪ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২৩, ২০২০ | আপডেট: ৯:০৪:অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২৩, ২০২০

বাগেরহাটে স্ত্রী ও এ’কমাত্র সন্তানকে হত্যার ১৪ ব’ছর পরে ফাঁসির দ’ণ্ডপ্রাপ্ত পলাতক আসামি মু’হিত হোসেন শেখকে (৪৮) গ্রে’ফতার করেছে পুলিশ। 

সোমবার বিকা’লে বাগেরহাট জেলার ফ’কিরহাট উপজেলার কাটাখালী এলাকা থে’কে মুহিতকে গ্রেফতার করে কচুয়া থানা পুলিশ। পরে বাগেরহা’ট জেলা ও দায়রা জ’জ আদালতে সোপর্দ করলে মুহিতকে কা’রাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেন বিচারক মোহাম্মদ গাজী রহমান।’

গ্রেফতার মুহিত হোসেন কচুয়া উপজেলার চরকাঠি গ্রামের মৃ’ত হাশেম শেখের ছেলে।

পুলিশ জা’নান, পরকিয়ায় বাধা দেয়ার অপরাধে ২০০৬ সালের ১৪ অক্টোবর রাতে মারধ’রের পরে শ্বাসরোধ করে নিজ স্ত্রী শাফি বেগমকে হ’ত্যা করে মুহিত হোসেন শেখ। পরে হত্যার শিকার শাফি বেগমের ভাই শহিদু’ল ইসলাম বাদী হয়ে মামলা করেন। মামলা থে’কে বাঁচতে ও অন্যের ঘাড়ে দোষ চাপাতে তিন মাস পরে ভাতের সাথে বিষ মি’শিয়ে নিজের একমাত্র ৭ বছর বয়সী মেয়ে শিরিনকে হ’ত্যা করে মুহিত। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তার চার্জশিট ও সাক্ষী’র সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে ২০১২ সালে আদালত মুহিতের ফাঁসির আদেশ দেন। হ’ত্যার পর থেকে মুহিত পলাতক ছিল।
কচুয়া থানার এএ’সআই মো. অলিয়ার রহমান জানান, মুহিত শেখ দীর্ঘদিন ধরে খু’লনার আইসগাতিসহ বিভিন্ন এলাকায় পালিয়ে ছিল। সে সেখা’নে একটি বিয়ে করে আত্মগোপন করে। আমরা গোপন সংবাদের ভি’ত্তিতে অভিযান চালিয়ে কাটাখালী এলাকা থেকে মুহি’তকে গ্রেফ’তার করে আদালতে সোপর্দ করেছি।