ভোলায় উপজেলা করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ কমিটির সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত: ৬:০৬ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২৩, ২০২০ | আপডেট: ৬:০৬:অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২৩, ২০২০

অদ্য ২৩ নভেম্বর ২০২০, সকাল ১১.০০ ঘটিকায় কোস্ট ট্রাস্ট ও ভোলা সদর উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ কমিটির সমন্বয় সভা উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তার সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত হয়েছে। সভায় সভাপতিত্ব করেন ভোলা সদর উপজেলা নির্বাহি অফিসার, জনাব মোহাম্মদ মিজানুর রহমান।

সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন উপজেলা করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ কমিটির উপদেষ্ঠা ও ভোলা সদর উপজেলা চেয়ারম্যান জনাব মোঃমোশারফ হোসেন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান জনাব মোহাম্মদ ইউনুস।এছাড়া আরও অংশগ্রহণ করে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ কমিটির সদস্য সচিব ডাঃ মোঃ মনিরুজ্জামান আহমেদ ও পুলিশ পরিদর্শ(তদন্ত) মোঃ আরমান হোসেনসহ কমিটির অন্যান্য সদস্যবৃন্দ, ইউপি চেয়ারম্যান, সাংবাদিক ও জলবায়ু ফোরাম প্রতিনিধিবৃন্ধ। সভা স ালনা করেন সহকারী পরিচালক, কোস্ট ট্রাস্ট-রাশিদা বেগম।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ কমিটির উপদেষ্ঠা, জনাব মোঃমোশারফ হোসেন বলেন আমরা প্রথম থেকেই করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সম্মিলিত ভাবে কাজ করেছি। আমরা মসজিদের ইমামদের সাথে সভা করে তাদের মাস্ক পরতে, সামাজিক দূরুত্ব বজায় রাখতে সচেতন করবো। এক্ষেত্রে কোস্ট ট্রাস্টর মত অন্যান্য এনজিওসহ আমরা সর্বস্তরে সচেতনতা বৃদ্ধিতে কাজ করবো।

করোনা কমিটির সভাপতি উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা জনাব মোহাম্মদ মিজানুর রহমান বলেন প্রচার বৃদ্ধির মাধ্যমে শীতের শুরুতে আবারও যাহাতে সবাই স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলে এ পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে। আমরা করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় সামনে থেকে কাজ করেছি। এনজিওরা কাজ করছে, আশা করছি আমরা সকলে সমন্বিত ভাবে কাজ করে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ হতে ভোলা সদর উপজেলাকে রক্ষা করতে পারবো। না হলে আবারও লকডাউনের মত কঠিন সিদ্ধান্ত নিতে হতে পারে। তখন খেটে খাওয়া মানুষ গুলো অর্থনৈতিক সমস্যায় পরবে।

উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ইউনুস বলেন, আমরা করোনার শুরুতে যেভাবে ভোলা সদর উপজেলায় করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে কাজ করেছি, তেমনি এখনও কাজ করবো।মানুষ সচেতন না হলে করোনায় আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি বাড়ে।বাজারসহ স্থানে মাস্ক ছাড়া সেবা নয় বিষয়টি নিশ্চিত করতে হবে। সকল জনপ্রতিনিধিগনের এব্যাপারে ভূমিকা রাখলে ভাইরাস প্রতিরোধ করা সম্ভব হবে।

সদস্য সচিব, জনাব ডাঃমোঃ মনিরুজ্জামান আহমেদ সমন্বয় সভায় ভোলায় করোনায় আক্রান্তের হার কম মনে হলেও আসলে টেস্ট খুব কম হয়েছে।মানুষ টেস্ট করতে আগ্রহী নয়। তিনি জানান হাসপাতালে সেবা নিতে আসা লোকজনের শতভাগ মাক্স নিশ্চিত করা যাচ্ছে না। করোনা ভাইরাস পজেটিভ মানুষকে হাসপাতালে অক্সিজেন দিয়ে সেবা নিশ্চিত করতে সমস্যায় আমাদের পড়তে হতে পারে। কারন অক্রিজেন ব্যবস্থাপনা পর্যাপ্ত না।

সভার শুরুতে সহকারী পরিচালক, কোস্ট ট্রাস্ট-রাশিদা বেগম শুভেচ্ছা বক্ত্যের মাধ্যমে সমন্বয় সভার উদ্দেশ্য বর্নণা করে বলেন, উপজেলা করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ কমিটির কার্যক্রমকে সক্রিয়করণ। কোস্ট ট্রাস্ট করোনাকালীন নানাবিধ কার্যক্রম তুলে ধরার পাশাপাশি বর্তমানে জনসচেতনতা সৃষ্টির জন্য প্রতিটি বাজারে হাটবারের সময়ে মাইকিং, কমিউনিটি নারী জন্য স্বাস্থ্য বিধি মেনে উঠান বৈঠক অব্যাহত রেখেছেন।

সভায় আরও বক্তব্য রাখেন ভেদুরিয়া ইউপি চেয়ারম্যান জনাব মোঃতাজুল ইসলাম, প্রবীন সাংবাদিক জনাব আবু তাহের, উপজেলা জলবায়ু ফোরাম সভাপতি মোঃ মোকাম্মেলক হক মিলন,সদস্য-তপু তালুকদার প্রমুখ। সভা পরিচালনায় সার্বিক সহায়তা করে সিএফটিএম প্রকল্পের প্রোগ্রাম অফিসার রাজিব ঘোষ ও একাউন্স অফিসার মোঃ ইব্রাহীম।
আলোচনা শেষে সভায় করোনা ভাইরাস পরিস্থিতি যাতে খারাপের দিকে না যায় সেজন্য জলবায়ু ফোরাম ও উপজেলা প্রশাসন একত্রে কাজ করার অঙ্গিকার করে।